মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০১০, ৪ বৈশাখ ১৪১৭
চাকরিপ্রার্থীদের বিক্ষোভ ঘেরাও অবরোধ
বিদ্যুত সঙ্কটের অজুহাতে রংপুর ডিসি অফিসে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত
নিজস্ব সংবাদদাতা, রংপুর, ১৬ এপ্রিল॥ বিদ্যুত সঙ্কটের অজুহাতে শুক্রবার রংপুর জেলা প্রশাসকের দফতরে এমএলএসএস পদে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করায় চাকরিপ্রার্থীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। চাকরিপ্রার্থীরা সকাল ৯টায় পরীক্ষায় অংশ নিতে এসে ওই পরীক্ষা স্থগিতের নোটিস দেখতে পায়। এতে তারা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে এবং জেলা প্রশাসকের দফতর, বাসভবন ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। এক পর্যায়ে তারা জেলা প্রশাসকের দফতরের সামনে সড়ক অবরোধ করলে পুলিশ পরীক্ষায় অংশ নিতে আসা ওই চাকরিপ্রার্থীদের ওপর লাঠিচার্জ করে। এতে ১০ জন চাকরিপ্রার্থী আহত হয়।
জেলা প্রশাসকের দফতরে ৮৪ জন তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারী নিয়োগের জন্য ২০০৯ সালে নিয়োগ পরীক্ষার জন্য আবেদনপত্র আহ্বান করা হয়। ওই পদের বিপরীতে ৮ হাজার ৬শ' জন চাকরিপ্রার্থী আবেদন করেন। এর পূর্বে ২০০৪ সালে ওই পদে নিয়োগের জন্য দরখাস্ত আহ্বান করা হয়েছিল। সেই পরীক্ষা নেয়ার পর তা আবার বাতিল করা হয়েছিল ২০০৯ সালে। এর পর শুক্রবার অনুষ্ঠিতব্য পরীক্ষা নেয়ার জন্য প্রবেশপত্র ইস্যুসহ সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়। রংপুর শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরীক্ষাকেন্দ্র নির্ধারণ করে পরীক্ষার খাতা এবং পরীক্ষা গ্রহণকারী কর্মকর্তা-কর্মচারী মনোনীত করা হয়। এরপরও হঠাৎ গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ওই নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করে জেলা প্রশাসকের দফতরে একটি নোটিস ঝুলিয়ে দেয়া হয়। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল চট্টগ্রাম, ঢাকা, সিলেট, খুলনা, রাজশাহী, পাবনা, সিরাজগঞ্জসহ বৃহত্তর রংপুরের ৮ জেলায় বিভিন্ন কাজের কারণে অবস্থানরত ওই নিয়োগ পরীক্ষার আবেদনকারীরা শুক্রবার তাদের স্ব-স্ব পরীক্ষাকেন্দ্রে এসে জানতে পারে পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। পূর্ব নোটিস ছাড়াই হঠাৎ পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করায় চাকরিপ্রার্থীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। এ সময় তারা বিভিন্ন পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে বিক্ষোভ মিছিল করে জেলা প্রশাসকের দফতর ঘেরাও করে। পরীক্ষার্থীরা জানায়, পরীক্ষা বাতিলের কারণ জানতে চাইলে সেখানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোখলেছুর রহমান তাদের বলেন, বিদ্যুত সঙ্কটের কারণে প্রশ্নপত্র তৈরি করা সম্ভব হয়নি। তাই পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। এর পর সেখানে উপস্থিত চাকরিপ্রার্থীরা জানতে চায় জেলা প্রশাসকের স্ত্রীর জম্মদিন উপলক্ষে যদি তাঁর বাসভবনে রাজকীয় আলোকসজ্জা করা হয়, তাহলে বিদ্যুত সঙ্কটের অজুহাত দেখিয়ে কেন পরীক্ষা স্থগিত করা হলো? এ অবস্থায় চাকরিপ্রার্থীরা আরও উত্তেজিত হয়ে ওঠে। তারা জেলা প্রশাসনের ওই কর্মকর্তার কোন কথা না শুনে জেলা প্রশাসকের দফতরের সামনে শহরের প্রধান সড়ক অবরোধ করে। এ সময় শহরে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দাঙ্গা পুলিশ ওই সড়ক থেকে অবরোধকারীদের হটিয়ে দিতে সেখানে বেধড়ক লাঠিচার্জ করে। এতে চাকরিপ্রার্থী বিক্ষোভকারী নিরোদ চন্দ্র, মোঃ নুর ইসলাম, সোহেল রানা, রবীন, মোনারুল, মোজাহিদুল, শাহীনুর রহমান, জসীম ও সৈকত আহত হয়। এতে বিক্ষোভকারীরা আরও বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। এর পর তারা মাইক নিয়ে এসে সেখানে অন্য চাকরিপ্রার্থীদের একত্রিত করে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বেলা সাড়ে ১০টায় জেলা প্রশাসকের বাংলো ঘেরাও করে। এ সময় জেলা প্রশাসকের বাংলোর সামনে বিপুল সংখ্যক দাঙ্গা পুলিশ মোতায়েন করা হয়। সেখানে তারা বিক্ষোভ করতে থাকে। জেলা প্রশাসক তাঁর বাংলোর বাইরে অবস্থান করছিলেন। খবর পেয়ে জেলা প্রশাসকের স্টাফ অফিসার ম্যাজিস্ট্র্রেট মোবাশ্বের হাসান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্র্রেট রুহুল আমিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মাহবুব-উল-আলম জেলা প্রশাসকের বাংলোতে আসেন। তাঁরা বিক্ষোভকারীদের মাইকযোগে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করার ব্যাখ্যা হিসেবে বলেন, বিদ্যুত সঙ্কটের কারণে প্রশ্নপত্র তৈরি করা সম্ভব হয়নি। তাই পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। তিনি আগামী ২/১ মাসের মধ্যেই ওই নিয়োগ পরীক্ষা নেয়া হবে বলে আশ্বস্ত করেন। এ সময় চাকারিপ্রার্থীরা চিৎকার করে বলতে থাকে, যদি বিদ্যুত সঙ্কটের কারণে প্রশ্ন পত্র তৈরি করা সম্ভব না হয়, তাহলে কী করে জেলা প্রশাসকের পত্নীর জন্মদিন উপলক্ষে গত মঙ্গলবার তাঁর বাংলোয় রাজকীয় আলোকসজ্জা করা হয়েছিল? তারা এ জন্য জেলা প্রশাসকের অপসারণ দাবি করে। তখন ওই কর্মকর্তারা বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন। এর পর বেলা ১২টায় দেড় ঘণ্টা পর বিক্ষোভকারীরা জেলা প্রশাসকের বাংলো থেকে তাদের ঘেরাও তুলে নেয়। রংপুরের বাসিন্দা নুরে আলম জানান, তিনি গাজীপুর থেকে পরীক্ষা দিতে এসেছেন। একই রকম কথা জানালেন ঢাকা থেকে আসা মিলন মিয়া, শফিউল, সিলেট থেকে আসা মোঃ মশিউরসহ অনেকে। তারা জানান, পরীক্ষাকেন্দ্রে এসেই জানতে পারেন পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে রংপুরের জেলা প্রশাসক বিএম এনামুল হক জানান, ৮৪টি পদের বিপরীতে আবেদনকারীদের লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার জন্য প্রবেশপত্র ইস্যু করা হয়। প্রবেশপত্রে ভুল থাকায় এবং দু'দিন আগে ঝড়ের কারণে পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে।
টাকার শোক ভুলতে না পেরে দিনমজুরের আত্মহত্যা
সংবাদদাতা, কিশোরগঞ্জ, ১৬ এপ্রিল ॥ জেলার নিকলীতে টাকার শোক ভুলতে না পেরে পাগলপ্রায় ইমাম উদ্দিন (৩০) নামে এক কৃষক নিজের গলায় ছুরি চালিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। পরিবারের সদস্যরা শত চেষ্টা করেও বাঁচাতে পারলেন না ইমাম উদ্দিনকে। অবশেষে মৃত্যুকে তিনি আলিঙ্গন করলেন। মৃত্যুর মাঝেই খুঁজে নিলেন টাকার শোক ভোলার শান্তি। শুক্রবার ঘরের দরজা লাগিয়ে নিজের গলায় ছুরি চালিয়ে আত্মহত্যা করেন ইমাম উদ্দিন।
সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কৈবতহাটি গ্রামের ইমাম উদ্দিন এক সময় ছিলেন কৃষি মজুর। নিজের চেষ্টায় সামান্য টাকা সঞ্চয় করে ধানের ব্যবসা শুরু করেন। আস্তে আস্তে গড়ে তোলেন ব্যবসার একটি বড় অঙ্কের পুঁজি। গত ২ মাস আগে তাঁর বাড়িতে চুরি হয়। ঘর থেকে চোর অন্যান্য জিনিসের সাথে চুরি করে নিয়ে যায় ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা। এ টাকা হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়েন তিনি। এক পর্যায়ে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন কিছুটা। টাকার শোকে অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করেন। পরিবারের লোকজন তাঁকে চিকিৎসাও করান। কিন্তু কোন কাজ হয়নি। হারানো টাকার কথা মনে হলেই আবোলতাবোল বলতেন ইমাম উদ্দিন। চেষ্টা করতেন আত্মহত্যার।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তিনি ঘোষণা দেন আত্মহত্যা করবেন। আতঙ্কিত হয়ে পড়েন পরিবারের লোকজন। সারারাত ইমাম উদ্দিনকে সাথে নিয়ে জেগে কাটান পরিবারের সবাই। শেষ পর্যন্ত কোন বাধাই আটকাতে পারেনি তাঁকে। শুক্রবার সকালে সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে ইমাম উদ্দিন দৌড়ে প্রবেশ করেন একই গ্রামের কাঞ্চন মিয়ার ঘরে। ভেতর থেকে বন্ধ করে দেন ঘরের দরজা। তার পর ধান কাটার কাঁচি দিয়ে নিজের গলা কেটে ফেলেন। আশপাশের লোকজন ঘরের দরজা ভেঙ্গে আশঙ্কাজনকভাবে হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।


ধর্ষণের পর গৃহবধূকে হত্যা
স্টাফ রিপোর্টার, সাতীরা ॥ শুক্রবার ভোরে তালা উপজেলার ইসলামকাটি ইউনিয়নের ঘোনা গ্রামের অন্ত:সত্ত্বা এক গৃহবধূকে ধর্ষণের পর কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। নিহত গৃহবধূর নাম রাবেয়া খাতুন (৩০)। ধর্ষকদের দেখে ফেলায় রাবেয়ার স্বামী রোকন শেখকে সস্ত্রাসীরা কুপিয়ে জখম করে। এ সময় স্বামী রোকন ও তার দুই সন্তান রাব্বি ও নাজমিনকেও পেটানো হয়।
রোকনের পরিবার জানায়, ভোর বেলা বাথরম্নমের জন্য ঘরের বাইরে বের হলে সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীরা রাবেয়া খাতুনকে বাথরম্নমের পাশেই পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষকদের চিনে ফেলায় রাবেয়ার চিৎকারে স্বামী ও সনত্মানেরা বাইরে বেরিয়ে আসে। এ সময় সন্ত্রাসীরা প্রথমে গৃহবধূ রাবেয়াকে কুপিয়ে হত্যা করে ।
ভৈরবের বাঁশগাড়ি গ্রাম এখন পুরুষশূন্য
নিজস্ব সংবাদদাতা, ভৈরব, ১৬ এপ্রিল ॥ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ভৈরবের গজারিয়া ইউনিয়নের বাঁশগাড়ি গ্রামে দু'পরে সংঘর্ষে আজিজুর রহমান (৩০) ও শাহজাহান (৩২) নামে দু'জন নিহত ঘটনায় থানায় পৃথক দু'টি মামলা হয়েছে। গ্রেফতার এড়াতে গ্রামটি পুরুষশূন্য গ্রামে পরিণত হয়েছে। নিহত দুই পরিবারে চলছে শোকের মাতম। গ্রামটিতে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প বসানো হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে গ্রামটি ঘুরে কোথাও পুরুষ লোক পাওয়া যায়নি।
বৃহস্পতিবার সকালে ভৈরবের গজারিয়া ইউনিয়নের বাঁশগাড়ি গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু'পরে সংঘর্ষে আজিজুর রহমান ও শাহজাহান নামে দু'জন নিহতসহ উভয়পরে আহত হয়েছে কমপক্ষে অর্ধশত লোক। সংঘর্ষ চলাকালে কমপক্ষে ২০টি বাড়িঘরে হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হত্যা ঘটনায় শুক্রবার সকালে থানায় পৃথক দু'টি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর একটির বাদী নিহত শাহজাহানের স্ত্রী জামেলা খাতুন; অপরটির নিহত আজিজুল হকের স্ত্রী পদুনা বেগম। এ দু'টি মামলায় ৭৪ জনকে এজাহারভুক্তসহ ১শ' ২৫ জনকে আসামি করা হয়। আসামিদের মধ্যে দু'টি মামলার এজাহারভুক্ত দু'জন করে ৪ জনকে পুলিশ গ্রেফতার করে শুক্রবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করে। এরা হলো আক্তার, হাবিব, জুয়েল ও নূরুজ্জামান।
গোপালগঞ্জে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে মুক্তির জন্য মানববন্ধন
নিজস্ব সংবাদদাতা, গোপালগঞ্জ, ১৬ এপ্রিল ॥ সন্ত্রাসীদের জিম্মি অবস্থা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য গোপালগঞ্জের গোবরা ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে। শুক্রবার বেলা ১১টায় ঢাকা-খুলনা মহসড়কের সদর উপজেলার ঘোনাপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিভিন্ন ব্যানার ও প্ল্যাকার্ড প্রদর্শনসহ ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন ও আলোচনাসভা কর্মসূচী পালন করে। এ ছাড়াও তারা তাদের অসহনীয় অবস্থার বিবরণ ও এ অবস্থা থেকে উত্তরণের দাবি জানিয়ে জেলা প্রশাসককে লিখিত আবেদন করেছে।
গত বুধবার গোবরা গ্রামের হাটখোলা প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত ঐতিহ্যবাহী চৈত্রসংক্রান্তির মেলায় মেয়েদের উত্ত্যক্ত করাকে কেন্দ্র করে দু'দল যুবকের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও এক পর্যায়ে সংঘর্ষে প্রায় ২০ জন আহত হয়। ওই এলাকায় উত্তেজনাকর পরিস্থিতির কথা স্বীকার করে গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রোকনুজ্জামান সরদার বলছেন, অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে সংঘর্ষের পর থেকে এখনও পর্যন্ত ওই এলাকায় আমাদের পুলিশ বাহিনী টহলে রয়েছে। ইতোমধ্যে জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে দু'গ্রামবাসীকে নিয়ে একত্রে বসে বিষয়টি সমাধানের জন্য।
পদ্মায় ইমারত পরিদর্শনে পানি বিশেষজ্ঞ দল
স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ শুক্রবার রাজশাহীর বাঘার পদ্মায় নিমজ্জিত পুরনো ইমারতের তথ্যানুসন্ধানে নেমেছিলেন আন্ডার ওয়াটার ফটোগ্রাফার কাজী হামিদুল হক, সালামান সাইফ, মুনতাছির মামুন। তাদের সঙ্গে ছিলেন প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের রাজশাহী বিভাগীয় আঞ্চলিক পরিচালক বদরুল আলম, চীফ ফটোগ্রাফার তহিদুন নবী, পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাবডিভিশনাল ইঞ্জিনিয়ার মুক্তার হোসেন ও মোহাম্মদ আলী। সকাল থেকে প্রায় ৪/৫ ঘণ্টা সময় ধরে তারা পানির নিচে ডুব দিয়ে মুঘল আমলের প্রাচীন ইমারতের অবস্থান সম্পর্কে তথ্যানুসন্ধান চালান। পানির মধ্যে প্রাচীন ইমারত সম্পর্কে আন্ডার ওয়াটার ফটোগ্রাফার হামিদুল হক বলেন, একটি ইমারত উত্তর-দক্ষিণ লম্বা। ইমারতের ছাদ ও দেয়াল ভেঙ্গে পড়ায় অন্য ইমারতের দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ ঠিক করা যায়নি। তবে বিদ্যমান ইমারতের কোন কোন অংশ বালুতে ভরাট হয়ে গেছে। প্রাচীন ইমারতের ধ্বংসাবশেষ বালুর নিচেও থাকতে পারে বলে তারা ধারণা করছেন। প্রাচীন ইমারত সংরণের ব্যাপারে প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতরের আঞ্চলিক পরিচালক বদরুল আলম জানান, আজকের কার্যক্রমের পুরো বিষয়টি মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট অধিদফতরে জানানোর পর তারা কি করবেন তা এখনই বলা যাচ্ছে না। পদ্মায় পানি বৃদ্ধি পেলে প্রাচীন ইমারতের ধ্বংসাবশেষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর হবে বলে মন্তব্য করেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাবডিভিশন ইঞ্জিনিয়ারদ্বয়। জানা যায়, গত মার্চের ২৪ মার্চ বাঘার চকরাজাপুর এলাকার আব্দুর রহমান ওরফে রহম খার মাছ ধরা জাল আটকে পড়লে তিনি ইমারতের সন্ধান পান। এরপর ২৬ মার্চ গুপ্তধন প্রাপ্তির আশায় তিনি ইমারতের ইট খুলে নদীর ধারে জমা করলে ঘটনাটি জানাজানি হয়। ওই দিন থেকেই পানির নিচে বিদ্যমান ইমারত পর্যবেণ করতে পদ্মা নদীতে উৎসুক মানুষের ভিড় জমে যায়। ২৮ মার্চ প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন
নিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল, ১৬ এপ্রিল ॥ বিয়ের দাবিতে প্রতারক প্রেমিকের বাড়িতে গিয়ে দু'দিন ধরে আমরণ অনশন পালন করছে প্রেমিকা। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে ধনবাড়ী উপজেলার মুশুদ্দি বন্দচরপাড়া গ্রামে।
গ্রামবাসী জানায়, গোপালপুর উপজেলার ভাদুড়িরচর গ্রামের তারা মিয়ার মেয়ের সঙ্গে হাদিরা ফাজিল মাদ্রাসার আলীম শ্রেণীর ছাত্র এবং ধনবাড়ী উপজেলার মুশুদ্দি বন্দচরপাড়া গ্রামের তারা শেখের ছেলে রাসেল মিয়ার দুই বছর ধরে মন দেয়া-নেয়া চলছিল। বৃহস্পতিবার তাসলিমা স্কুলে গেলে প্রেমিক রাসেল তাকে বিয়ের প্রলোভনে ফুসলিয়ে নিজের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে তাসলিমার সঙ্গে জোরপূর্বক দৈহিক সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করে। তাসলিমা তাতে রাজি না হওয়ায় রাসেল ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে বাড়ি থেকে তাড়ানোর চেষ্টা চালায়। কিন্তু প্রেমিকা তাসলিমা প্রতিশ্রুতি মোতাবেক তাকে বিয়ে করার জন্য চাপ দেয়। রাসেল এবং তার পরিবারের কেউই বিয়েতে রাজি না হওয়ায় তাসলিমা ওই দিন বিকেলে প্রেমিক রাসেলের বাড়ির বারান্দায় বসে আমরণ অনশন শুরু করে। বেগতিক দেখে রাসেল ও তার পরিবারের সকলেই ঘরে তালা ঝুলিয়ে বাড়ি থেকে গা-ঢাকা দেয়। শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত বিয়ের দাবিতে তাসলিমাকে ওই বাড়িতে অনশন করতে দেখা যায়। প্রেমিক-প্রেমিকার এ খবর আশপাশে ছড়িয়ে পড়লে শত শত উৎসুক মানুষ ওই বাড়িতে ভিড় জমায়।
বোয়ালখালীতে গণপিটুনিতে ৩ ডাকাত নিহত
স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে গণপিটুনিতে তিন ডাকাতের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে বোয়ালখালী উপজেলার কধুরখীল ইউনিয়নের কৈবর্ত্যপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। গণপিটুনিতে নিহতদের নাম-পরিচয় অজ্ঞাত।
বোয়ালখালী থানার ওসি আবদুল মালেক প্রত্যদর্শীদের বরাত দিয়ে জানান, শুক্রবার ভোর ৪টা নাগাদ কৈবর্ত্যপাড়ায় একটি সিএনজি অটো রিকশাযোগে ৬ যুবক এসে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। তাদের গতিবিধি সন্দেহজনক হওয়ায় এই এলাকার নৈশ প্রহরীরা ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার শুরু করে। এর পর গ্রামের শত শত লোক বেরিয়ে এসে ঐ যুবকদের ধাওয়া দেয়। ওসি জানান, ধাওয়া দিয়ে জনতা তিন যুবককে আটক করে বেধড়ক পিটুনি দিলে সেখানেই তারা নিহত হয়। অপর তিন যুবক দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে ভীতি সঞ্চার করে পালিয়ে যায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি ছুরি উদ্ধার করেছে। নিহত ৩ জনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে বোয়ালখালী থানা পুলিশ জানায়।


গণধোলাইয়ের শিকার ছাত্রলীগের ২ ক্যাডার
নিজস্ব সংবাদদাতা, বাউফল, ১৬ এপ্রিল ॥ চাঁদা চাইতে গিয়ে গণধোলাই খেয়েছে সোহাগ (৩০) ও আতিক (২৭) নামের ২ ছাত্রলীগ ক্যাডার। শুক্রবার সকালে বাউফল পৌর শহরের বাংলাবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।
জানা গেছে, ঘটনার দিন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ক্যাডার সোহাগ ও আতিক বাংলাবাজার এলাকার চা-পান বিক্রেতা আবদুল মজিদের দোকানে চাঁদা চাইলে সে চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। এ নিয়ে ক্যাডারদের সঙ্গে মজিদের বাকবিতন্ডা শুরু হলে তখন স্থানীয় কয়েক ব্যবসায়ী এসে ছাত্রলীগের এই দুই ক্যাডারকে গণধোলাই দেয়। নানা অপকর্মের হোতা ছাত্রলীগ ক্যাডার আতিক ও সোহাগ ওই এলাকার ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে দীর্ঘ দিন ধরে চাঁদাবাজি করে আসছিল। এ কারণে ব্যবসায়ীরা ছিল তাদের ওপর অতিষ্ঠ।
বেনাপোলে বিএনপি নেতার বাড়িতে বোমা হামলা
নিজস্ব সংবাদদাতা, বেনাপোল, ১৬ এপ্রিল ॥ শুক্রবার দুপুরে বেনাপোল পৌর বিএনপির সভাপতি নাজিম উদ্দিনের বাড়িতে বোমা হামলা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। বোমার আঘাতে নিতু (৬) নামে এক শিশু আহত হয়েছে।
পুলিশ ও এলাকার লোকজন জানায়, দুপুর ৩টার দিকে বেনাপোল পৌর বিএনপির সভাপতি নাজিম উদ্দিনের বাড়ির পেছনের গেট দিয়ে ৪/৫ জনের একটি সন্ত্রাসী দল বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করে কাউকে না পেয়ে উঠানের দিকে বোমা ছুড়ে মারে। এ সময় সেখানে থাকা শিশুকন্যা নিতু বোমার স্প্রিন্টারে মারাত্মকভাবে আহত হয়। তাকে স্থানীয় রজনী কিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। নিতু নাজিম উদ্দিনের ভাড়াটিয়া মনির হোসেনের কন্যা। সে বেনাপোল বন্দর প্রি-ক্যাডেট এ্যান্ড হাইস্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী।

নওগাঁ ও কুমিল্লায় মূর্তি উদ্ধার
নিজস্ব সংবাদদাতা, নওগাঁ, ১৬ এপ্রিল ॥ পত্নীতলা উপজেলা সদরে অবস্থিত ৪৬ রাইফেল ব্যাটালিয়নের জোয়ানরা প্রায় ৮০ লাখ টাকা মূল্যের একটি কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার করেছে। জানা গেছে, শুক্রবার পোরশা উপজেলার সরাইগাছী এলাকার একটি পুকুরপাড়ে এক দল মূর্তি পাচারকারী মূর্তি বেচাকেনার জন্য দরদাম করছিল।
নিজস্ব সংবাদদাতা কুমিল্লা থেকে জানান, সদর দক্ষিণ মডেল থানা পুলিশ শুক্রবার ভোরে উপজেলার নালবাগ গ্রাম থেকে ৫ কোটি টাকা মূল্যের ৩০ কেজি ওজনের একটি কষ্টিপাথরের মূর্তি উদ্ধার করেছে। পুলিশ জানায়, চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মটুয়া গ্রামের একটি পুকুর খননকালে শ্রমিকরা ওই কষ্টিপাথরের মূর্তি পেয়ে পার্শ্ববর্তী সদর দক্ষিণ উপজেলার নালবাগ গ্রামে নিয়ে আসে।
খুলনায় বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ কাল
স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ আগামীকাল রবিবার খুলনায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল- বিএনপির বিভাগীয় মহাসমাবেশ। বিকেলে নগরীর শিববাড়ী মোড়ে আয়োজিত এ মহাসমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে ভাষণ দেবেন দলের চেয়ারপার্সন, বিরোধীদলীয় নেত্রী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। এ উপলক্ষে শুক্রবার বেলা ১১টায় নগরীর হোটেল রয়্যাল ইন্টারন্যাশনালে এক প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়।
প্রেস ব্রিফিংয়ে মহাসমাবেশ আয়োজক কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য, সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলাম বর্তমান সরকারের সমালোচনা করে বলেন, এ সরকার দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ ও অযোগ্য। সরকারের দুঃশাসন, খুন, দখল, হামলা, মিথ্যা মামলা, নগ্ন দলীয়করণ, দুর্নীতি, রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, টেন্ডার ছিনতাই, নারী নির্যাতন ইত্যাদিতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে জনগণ। চাল, ডাল, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের লাগামহীন উর্ধগতি, অসহনীয় বিদ্যুত সঙ্কটে দুর্বিষহ জনজীবন।
প্রেস ব্রিফিংয়ে নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এম নুরুল ইসলাম দাদু ভাই, বেগম রাজিয়া ফয়েজ, মশিউর রহমান, শাহ কামাল তাজ, নজরুল ইসলাম মঞ্জু এমপি, অধ্যাপক মাজেদুল ইসলাম, হাবিবুল ইসলাম হাবিব প্রমুখ।

আখিরা গণহত্যা দিবস আজ
স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ আজ ১৭ এপ্রিল। আখিরা গণহত্যা দিবস। ফুলবাড়ীবাসীর জন্য অত্যন্ত শোকাবহ একটি দিন। মুক্তিযুক্ত চলাকালীন ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল ফুলবাড়ী উপজেলার এলুয়ারী ইউনিয়নের আখিরা নামক স্থানে পাকিস্তানী সেনা এবং তাদের এদেশীয় দোসর রাজাকার, আলবদর বাহিনীর হাতে ৫০ হিন্দু পরিবারের প্রায় ১শ' নারী-পুরুষ, শিশু-কিশোর নিমর্মভাবে হত্যাযজ্ঞের শিকার হন। এই নিহতদের স্মরণে আজও নির্মিত হয়নি কোন স্মৃতিস্তম্ভ। এলাকাবাসী এসব নিহতকে স্মরণ করলেও উপজেলা প্রশাসন কিংবা কোন সংগঠনের পক্ষ থেকে কখনই কোন প্রকার কর্মসূচী গ্রহণ করা হয় না। ফলে প্রতিবছর এই দিনটি নীরবে আসে, নীরবে চলে যায়।
দুই হাজার দরিদ্র রোগীর ফ্রি চিকিৎসা
নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ, ১৬ এপ্রিল ॥ শুক্রবার উপজেলার মুড়াপাড়া ডিগ্রী কলেজ মাঠে রূপগঞ্জ প্রেসকাব ও আল রাফি হসপিটালের উদ্যোগে ২ হাজার দরিদ্র রোগীর ফ্রি চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়েছে। চিকিৎসাসেবা প্রদানকালীন সময়ে নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী (বীরপ্রতীক) উপস্থিত থেকে দরিদ্র রোগীদের চিকিৎসার খোঁজখবর নেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন রূপগঞ্জ প্রেসকাব সভাপতি মীর আব্দুল আলীম, আল রাফি হসপিটালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাজী আব্দুল মতিন, ডা. মেজবাউদ্দিন, আশরাফুল আলম খোকন, সাংবাদিক মকবুল হোসেন, আশিকুর রহমান হান্নান, রাসেল আহমেদ, খলিল সিকদার, এ. হাই মিলন, জাহাঙ্গীর আলম হানিফ, জিএম সহিদ, রিয়াজ হোসেন, আনোয়ার হোসেন, এসএম শাহাদাত ও নজরুল ইসলাম।

৩৬ ঘণ্টা বিদ্যুতহীন গাইবান্ধা
নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা, ১৬ এপ্রিল ॥ বুধবার রাতের প্রচণ্ড ঝড় ও শিলাবৃষ্টির কারণে ৩৬ ঘণ্টা টানা বিদ্যুতহীন সময় কাটাতে হয়েছে গাইবান্ধা শহরবাসীকে। বিদ্যুত না থাকায় একদিকে গরমে মানুষ হাঁসফাঁস করেছেন। অন্যদিকে পৌর পানি সরবরাহ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়ায় পানির চাহিদা মেটাতে ছুটতে হয়েছে রাস্তার ধারে টিউবওয়েলে। সেখানে লাইনে দাঁড়িয়ে খাবার পানি সংগ্রহ করা গেলেও ব্যবহার্য অন্যান্য পানি সংগ্রহ করতে হয়েছে অপরিচ্ছন্ন পুকুর থেকে। এই সময়ের মধ্যে পচে গেছে মাছ-মাংসসহ ফ্রিজে রাখা অন্যান্য খাবার। হাসপাতালসহ বিভিন্ন দোকানের ফ্রিজে রাখা অনেক ওষুধপত্রের কার্যকারিতা নষ্ট হয়ে গেছে। স্থানীয় দৈনিক পত্রিকাগুলো প্রকাশ করা সম্ভব হয়নি।

না'গঞ্জে অপহৃত
ব্যবসায়ী উদ্ধার
স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ ॥ নারায়ণগঞ্জে মুক্তিপণের দাবিতে নরসিংদীর এক ব্যবসায়ীকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা। সন্ত্রাসীরা অপহৃত পরিবারের কাছে মোবাইল ফোনে ৪ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। দাবিকৃত টাকা না দিলে তাকে হত্যার হুমকি দেয়। অপহৃত ব্যবসায়ীর পরিবার বিষয়টি র্যাব-১১কে জানায়। অপহরণের দু'দিন পর র্যাব-১১ এর নারায়ণগঞ্জ শহর ক্যাম্প অফিসের একটি দল শুক্রবার বিকেলে বন্দর উপজেলার মদনগঞ্জ এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহৃত ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করেছে।

সড়ক দুর্ঘটনায় হত ২
নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজীপুর , ১৬ এপ্রিল ॥ জেলায় শুক্রবার সকালে ট্রাক-পিকআপ ভ্যান সংঘর্ষে দুই জন নিহত এবং ৫ জন আহত হয়েছে। নিহতরা হলো কেএম ইব্রাহিম (২৫) এবং জুলহাস (৩০)।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রদের থানা ঘেরাও
নিজস্ব সংবাদদাতা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ১৬ এপ্রিল ॥ ঘাটিয়ারা গ্রামের তাবলীগ জামাতের অনুসারীদের ওপর হামলার ঘটনায় অস্থির হয়ে উঠেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর। গত ২ দিন ধরে চলছে মিছিল, বিক্ষোভ, মানববন্ধন। সদর থানা পুলিশ হামলাকারীদের গ্রেফতার না করায় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে স্থানীয় মাদ্রাসার ছাত্র-শিকরা। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে পুলিশ স্থানীয় জেলা আওয়ামীলীগের নেতাদের মাধ্যমে সদর থানায় সালিশ সভা আহ্বান করে। আজ শুক্রবার দুপুরে সদর থানায় মাদ্রাসার নেতৃবৃন্দ ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতাদের সালিশ সভা বসে। এতে সদর ৩ আসনের সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট লুৎফুল হাই সাচ্চু, জেলার পুলিশ সুপার মুখলেছুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আমানুল হক সেন্টু, প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এ সময় হাজার হাজার মাদ্রাসার ছাত্র ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদর থানার মূল ফটকে অবস্থান নেয়। বন্ধ করে দেয় থানার সামনের সড়কটি। টিএ রোড ব্রিজ থেকে থানা এলাকার বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নেয়। এতে শহরের থানা এলাকা সড়কগুলো কার্যত অবরম্নদ্ধ হয়ে পড়ে।
সাংবাদিক বাবারা তোকে কেমনে বাঁচায়...
সংবাদদাতা, ভালুকা, ময়মনসিংহ, ১৬ এপ্রিল ॥ ভালুকা পৌরসভার ফায়ার সার্ভিস এলাকা থেকে একটি সংঘবদ্ধ চোরের দল ১১ এপ্রিল রাতে বিভিন্ন কৃষকের ৪টি গরম্ন চুরি করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই এলাকার কৃষক আছর আলীরও ২টি গরম্ন চুরি হয়। পরদিন বিভিন্ন দৈনিকে চুরির সংবাদ ছাপা হয়। সংবাদ প্রকাশের পর চোরের দল কৃষক আছর আলীকে (০১৭৪০-৮৩৩১৯৯ নম্বর) মোবাইল ফোনে হুমকি দিয়ে আসছে। বলছে, "তুই চুরির ঘটনা সাংবাদিকদের জানিয়েছিস, পত্রিকায় খবর এসেছে। আমরা তোকে দেখে ছাড়ব। তোর যা আছে সব চুরি করে নিয়ে যাব। দেখি, তোর সাংবাদিক বাবারা তোকে কেমনে বাঁচায়?" ঘটনাটি এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।
দিনাজপুরের ৮০ ভাগ চালকল বন্ধ
সাজেদুর রহমান শিলু, দিনাজপুর ॥ দিনাজপুরের ফুলবাড়ি উপজেলার চালকল ধানের অভাবে ৮০ শতাংশ বন্ধ হয়ে গেছে। এ কারণে জেলায় প্রায় ৩০ হাজার নারী-পুরুষ চাতাল শ্রমিক বেকার হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেছেন, কিছু মজুদদারের কারণে বাজারে ধান-চালের সরবরাহ কমে যাওয়ায় ধান-চালের দামও বেড়ে গেছে।
শহরের পাইকারি চালের ব্যবসায়ী প্রশান্ত কুমার সাহা বলেন, আমরা কম দামে চাল কিনতে পারলে বিক্রিও কম দামে করি। কিন্তু উত্তরাঞ্চলের সব জায়গায় দাম বেড়ে যাওয়ায় চাল কম দামে বিক্রি করতে পারছি না। চাতাল ব্যবসায়ী মাজেদুর রহমান বলেন, বিভিন্ন হাটবাজার থেকে চড়া দামে ধান কিনতে হচ্ছে। তার সঙ্গে খাজনা, বয়লার ও শ্রমিক খরচসহ সব মিলিয়ে প্রতি কেজি মোটা জাতের চালের উৎপাদন খরচ পড়ছে ২৬ থেকে ২৮ টাকা। আর চিকন জাতের খরচ পড়ছে ৩২ থেকে ৩৮ টাকা। ফলে অনেকে বয়লার চালু রাখতে পারছেন না। চালকল মালিক সলেমান আলী বলেন, ধানের সরবরাহ হাটবাজারে এতই কম যে, মিল চালাতে প্রয়োজনীয় ধান পাওয়া যাচ্ছে না। চালকল মালিক সমিতির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বলেন, গত আমন মৌসুমে উত্তরাঞ্চলে ধানের উৎপাদন কম হয়েছে। বাজারে স্বাভাবিক সরবরাহ না থাকায় চালের দাম বাড়ছে। তাছাড়া বিভিন্ন স্থান থেকে ধান কেনার পর ট্রাক ভাড়া, হাটবাজারের খাজনাসহ যে খরচ হচ্ছে তাতে চাল বাজারে বিক্রি করতে গিয়ে পোষাতে পারছেন না বয়লার মালিকরা। জেলার শতাধিক চালকলের মধ্যে ৮০ শতাংশ বন্ধ হয়ে গেছে। বাকিগুলো চলছে ধুঁকে ধুঁকে। এ কারণে চালকল মালিকদের মধ্যে মাত্র ৫ শতাংশ চাল সরবরাহের চুক্তি করেছেন খাদ্য বিভাগের সঙ্গে। সমিতির সাধারণ সম্পাদক বলেন, চালের বাজার নিয়ন্ত্রণ প্রকৃত ব্যবসায়ীদের হাতে নেই। যাদের প্রচুর টাকা রয়েছে, তাঁরা বোরো ও আমন মৌসুমে ধান কিনে মজুদ করছেন। তারাই সময় বুঝে দাম বাড়িয়ে ধান বাজারে ছাড়ছেন। অন্যদিকে প্রকৃত ব্যবসায়ীরা বয়লার চালু রাখতে হিমশিম খাচ্ছেন। জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মামুন-উর-রশীদ বলেন, বয়লার মালিকদের প্রতি ১৫ দিন পর ধান-চালের মজুদ তথ্য খাদ্য বিভাগে দেয়ার কথা। কিন্তু সে নিয়ম কেউই মানছেন না। তবে চালের বাজার স্থিতিশীল রাখতে পৌর এলাকায় ওএমএস ডিলারদের মাধ্যমে ২২ টাকা কেজিতে চাল বিক্রি অব্যাহত রয়েছে।
ডাকাত চক্রের কাছে গুলি বিক্রি করে সওদাগর!
মাকসুদ আহমদ, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে লাইসেন্স করা বন্দুকের গুলি অবৈধ পথে ডাকাত চক্রের কাছে বিক্রি করে রীতিমতো সওদাগর! সওদাগর বনে বিত্তশালী হয়েছে বাঁশখালীর ছিদ্দিক। নিরাপত্তার বন্দুক দিয়েই শেষ পর্যন্ত বাণিজ্য গড়ে তুলেছে ডাকাত দলের সঙ্গে। দীর্ঘ প্রায় ১০ বছরের বাণিজ্যের কথা অবশেষে আদালতে ১৬৪ ধারার জবানবন্দীতে স্বীকার করেছে সে। তার মোবাইলে রয়েছে প্রায় অর্ধশত ডাকাত সদস্যের মোবাইল নম্বর। সমপ্রতি রাঙ্গুনীয়ায় মুখোশধারী এক ডাকাতির ঘটনায় মসজিদের এক মুয়াজ্জিনসহ ৫ ডাকাত সদস্যকে গ্রেফতার করেছে হাটহাজারী থানা পুলিশ।
পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে সিদ্দিক জানায়, ২০০১ সালে একটি একনলা বন্দুকের লাইসেন্স নেয়। এরপর থেকে সে চট্টগ্রামের আতঙ্ক ডাকাত সর্দার খলিলসহ অন্যদের গুলি সরবরাহ করে আসছিল। লাইসেন্স থাকায় গুলি কিনতে বেগ পেতে হয়নি। এক প্যাকেট কার্তুজ মাত্র ৭ হাজার ৫শ' টাকায় কিনে ডাকাতদের কাছে ১৫ হাজার টাকায় বিক্রি করত সে। তার মোবাইলে খলিল ডাকাতসহ প্রায় অর্ধশত ডাকাতের মোবাইল নম্বর রয়েছে। গত সোমবার পর্যন্ত হাটহাজারী সার্কেলের এএসপি বাবুল আক্তার ও থানা পুলিশের টানা দুই দিনের অভিযানে ৫ ডাকাত এবং একনলা বন্দুকের লাইসেন্সধারী সিদ্দিককে পুলিশ গ্রেফতারের পর বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর নানা তথ্য।
হাটহাজারী পুলিশ জানিয়েছে, ডাকাতদের কাছ থেকে ডাকাতি করা ৬টি মোবাইল সেট উদ্ধার করেছে। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে সিদ্দিক ও আমিন ছাড়া সকলের বিরম্নদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক ডাকাতি মামলা রয়েছে ও কারাভোগের নজিরও আছে। সোমবার ভোর রাতে বাঁশখালীর নিজ বাড়ি থেকে সিদ্দিক সওদাগরকে একটি একনলা বন্দুক ও সাত রাউন্ড কার্তুজসহ গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিকে ইলিয়াস ডাকাতদের গাড়ি ভাড়া করে দেয়। এ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ট্রাক (কুমিলা ট-৬৩৪৩) আটক করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত বজল ও রেজাউল করিম দীর্ঘদিন যাবৎ ডাকাতির সঙ্গে জড়িত। গ্রেফতারকৃত আসামি আমিন মাদ্রাসায় পড়াশুনা করে। সে ফৌজদারহাট আব্দুলাহ ঘাটা জামে মসজিদের মোয়াজ্জিন। সে গত দেড় মাস পূর্বে বজল ও গফুরের সঙ্গে একটি ডাকাতিতে অংশ নেয়। বজল ও রেজাউলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক ডাকাতি মামলা ও ওয়ারেন্ট রয়েছে। এ ব্যাপারে অভিযানে হাটহাজারী সার্কেলের এএসপি বাবুল আক্তার জানান, সিদ্দিকের কারণে ঐ এলাকার ডাকাত সর্দাররা সহজেই গুলি হাতের কাছে পেত। তার একনলা বন্দুকের লাইসেন্স বাতিল এবং গুলি দিয়ে ডাকাতদের সহায়তা করা বা ব্যবসা গড়ে তোলায় তার বিরম্নদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।
যমুনার তীর সংরক্ষণে ৩৬৬ কোটি টাকার প্রকল্প
অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ সরকার এবার যমুনা নদীর ভাঙ্গন হতে সাধারণ মানুষের জানমাল এবং সম্পদ বাঁচাতে একটি প্রকল্প গ্রহণ করল। প্রকল্পটির অধীনে জামালপুরের বাহাদুরাবাদ ঘাট থেকে ফুটানির বাজার এবং সরিষাবাড়ী উপজেলার পিংনা বাজার হয়ে ইসলামপুরের হরিণধরা হয়ে হাড়গিলা পর্যন্ত দীর্ঘ যমুনা নদীর তীরে বাঁধ তৈরি এবং সংরক্ষণ করা হবে। প্রকল্পটিতে ব্যয় হবে ৩শ' ৬৬ কোটি টাকা। মঙ্গলবার শেরেবাংলানগরের জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদে (এনইসি) অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির সভায় (একনেক) প্রকল্পটির অনুমোদনও দেয়া হয়েছে। এ ছাড়াও বৈঠকে ১ হাজার ২শ' ৫১ কোটি টাকার মোট আটটি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। বৈঠকে অনুমোদন পাওয়া অন্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে_ কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীনে 'সেচ এলাকা বর্ধিতকরণ ও উন্নয়ন প্রকল্প।' ৫১ কোটি টাকায় প্রকল্পটি বাসত্মবায়ন করা হবে মৎস্য ও পশুসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অধীনে 'পভারটি রিডাকশন এ্যান্ড লাইভলিহোড সিকিউরিটি ফর দ্য পিপল অব ইকোনমিক্যালি ডিপ্রেসড এরিয়া প্রকল্প।' প্রকল্পটিতে ৮১ কোটি টাকা ব্যয় করা হবে। পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের 'সিরাজগঞ্জ জেলার চৌহালী উপজেলার যমুনা নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্প। এতে ব্যয় হবে ৩৬ কোটি টাকা। পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের 'চাদপুর জেলার পুরানবাজার সংলগ্ন ইব্রাহিমপুর-সাখুয়া এলাকায় মেঘনা নদীর ভাঙ্গন হতে চাঁদপুর সেচ প্রকল্পের সংরক্ষণ প্রকল্প। ১শ' ৫৬ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি বাসত্মবায়ন করা হবে। জানা যায়, বৈঠকে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, পরিকল্পনামন্ত্রী এয়ার ভাইস মার্শাল একে খন্দকার, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন এবং পানিসম্পদমন্ত্রী রমেশচন্দ্র সেনসহ আরও অনেক মন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর সকল উপদেষ্টা এবং সংশ্লিষ্ট সচিবরা উপস্থিত ছিলেন।
এমপি রনির বিরুদ্ধে অভিযোগ খতিয়ে দেখতে কমিটি গঠন
নিজস্ব সংবাদদাতা, গলাচিপা ॥ সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনির বিরুদ্ধে গলাচিপা উপজেলা আওয়ামী লীগের আনা সংগঠন বিরোধী নানা অভিযোগ পটুয়াখালী জেলার দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক তোলপাড় শুরু করেছে। এরই মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ অভিযোগসমূহ খতিয়ে দেখতে শুরু করেছেন। এজন্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের নির্দেশে চার সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্যতম সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খান মোশারেফ হোসেন জানিয়েছেন, শীঘ্রই উপজেলা আওয়ামী লীগের উভয় পকে ডাকা হবে এবং তাদের বক্তব্য শোনা হবে। বিষয়টি নিষ্পত্তির যথাসাধ্য চেষ্টা করা হবে।
৯ এপ্রিল পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় গলাচিপা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ হারুন অর রশিদ ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা টিটো দলের নির্বাচিত সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনির বিরুদ্ধে সংগঠনবিরোধী কার্যকলাপের বেশ কিছু অভিযোগ তুলে ধরেন। তিন পৃষ্ঠার লিখিত এ অভিযোগনামায় তারা উল্লেখ করেন, আওয়ামী লীগ সরকারের ১৫ মাসে গলাচিপায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাই ৩০/৩৫টি মামলার আসামি হয়েছে। এসব মামলা দায়ের করেছে বিএনপির নেতাকর্মীরা। এতে ইন্ধন যুগিয়েছেন সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি। আসামিদের তালিকায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোসত্মফা টিটো ও সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুজ্জামান লিকন থেকে শুরম্ন করে অনেক নেতাকর্মী রয়েছেন। আর অবাক করার মতো বিষয় হচ্ছে সব মামলাই মিথ্যা এবং অসত্য। শুধুমাত্র দলীয় নেতাকমর্ীদের হয়রানি করার জন্যই এসব করা হয়েছে। সংসদ সদস্যদের সঙ্গে দলীয় নেতাকর্মীদের চেয়ে বিএনপি-জামায়াতের সম্পর্ক অত্যনত্ম ঘনিষ্ঠ। এ সমসত্ম মামলা তারই প্রমাণ। উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রবীণ দুই নেতা বলেন, সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনির অত্যাচার-নির্যাতনে একদিকে দলের সিংহভাগ নেতাকর্মীর ধৈর্য্যচুতি ঘটার উপক্রম হয়েছে। অন্যদিকে ব্যাপক লুটপাট-দুনর্ীতিতে সাধারণ মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। এ অবস্থার জরম্নরী নিরসন প্রয়োজন। অন্যথায় আগামীতে এর খেসারত দিতে হবে। বর্ধিত সভায় কেন্দ্রীয় নেতারা এক পর্যায়ে গোলাম মাওলা রনির বিরম্নদ্ধে আনা অভিযোগ খতিয়ে দেখার জন্য পটুয়াখালীর অপর তিন এমপি-মন্ত্রী ও সাধারণ সম্পাদকের সমন্বয়ে একটি বিশেষ টিম গঠন করে দিয়েছেন। টিমের সদস্যরা হলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ধর্ম প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট মোঃ শাহাজাহান মিয়া, পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মাহবুবুর রহমান, হুইপ আসম ফিরোজ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খান মোশারেফ হোসেন। এ সমসত্ম অভিযোগের বিষয়ে সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি সংবাদকর্মীদের জানান, দলের সভাপতি পরিচয়দানকারী হারম্নন অর রশিদকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। গোলাম মোসত্মফা টিটো দল থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন। তাদের অভিযোগ ভিত্তিহীন। তাঁরা দলের কেউ নন।
নিরাপত্তা কোড মেনে চলার তাগিদ
নিজস্ব সংবাদদাতা, মংলা ॥ আন্তর্জাতিক চোরাচালান রোধে মংলা বন্দরে 'ইন্টারন্যাশনাল শিপ পোর্ট সিকিউরিটি কোড' বাস্তবায়ন করা হবে। বন্দর চ্যানেলের সুন্দরবন ও সাগর এলাকায় আমদানি ও রফতানি পণ্যবাহী জাহাজ ও লাইটারেজ জাহাজে চুরি ও দস্যুতা ঠেকাতে বন্দর ব্যবহারকারী ও শিল্প-কলকারখানার মালিকদের বিশ্বের সারাদেশের সঙ্গে আন্তর্জাতিক জাহাজ নিরাপত্তা কোড মেনে চলার তাগিদ দিয়েছেন সমুদ্র পরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক রিয়ার এডমিরাল (অব) বজলুর রহমান, বিএন। বৃহস্পতিবার দুপুরে মংলা বন্দর কর্তৃপরে সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত পোর্ট সিকিউরিটি কমিটি সভা ও সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন, সমুদ্র পরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক রিয়ার এডমিরাল (অব) বজলুর রহমান, বিএন। বন্দর চেয়ারম্যান কমোডর এম ফারুকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য হাবিবুন নাহার, নৌবাহিনী ও কোস্টগার্ডের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা, বন্দর ব্যবহারকারীসহ অন্যরা। এর আগে ভারতের ৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল মংলা বন্দরে একটি 'বিদ্যুত কেন্দ্র' স্থাপনের জন্য কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করেন।