মানুষ মানুষের জন্য
শোক সংবাদ
পুরাতন সংখ্যা
বৃহস্পতিবার, ৯ মে ২০১৩, ২৬ বৈশাখ ১৪২০
টালিউডের মিমি চক্রবর্তী
মোঃ জাবেদ হোসেন
অভিনয় জীবনে দু’টি ছবিতে অভিনয় করেই জাঁদরেল অভিনেত্রীর সুখ্যাতি পাওয়া যেন ভাত না চাইতে মাংস হাজির। অল্পতেই এমন সফলতা দেখে বলতেই হয় ঈশ্বরের পূর্ণ আশীর্বাদপুষ্ট মানুষ। হাল ফ্যাশনের অন্যদের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা চিন্তাধারা নিয়ে অভিনয় জগতে চলা। খোলা মেলা শরীর প্রদর্শনে, সাহসী পর্দা উপস্থিতি, কিংবা আবেদনময়ী ইমেজে অভিনয়ে খুব দ্রুত জনপ্রিয়তা অর্জন করা যায় এমনটা তিনি কখনো বিশ্বাস করেন না। বরং স্নিগ্ধ, লাবণ্যময়ী সুন্দর চেহারা, সহজ-সরল সাবলীলতায় মনকাড়া অভিনয়, পর্দায় স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতির মাধ্যমে দর্শক হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। বোজেনা সে বোজেনা ছবির সে রিয়ার কথা বলছি যাকে দেখে এই রিয়াকে দ্বিতীয়বার দেখার ইচ্ছা জাগেনি এমন দর্শক খোঁজে পাওয়া মুশকিল হবে। রিয়া নামে পরিচিতির আগে দোলা নামেই দর্শকদের নিকট পরিচিত ছিল ‘বাপি বাড়ি যা’ ছবির মাধ্যমে। দোলা বা রিয়া নামে পরিচিতি পাওয়া এই মানুষটির আসল নাম মিমি চক্রবর্তী। দোলা ও রিয়া বিশেষ করে রিয়া নামটি ওপার বাংলা এবং এপার বাংলার দর্শকদের কাছে এতই জনপ্রিয় হয় যার ভারে তাঁর আসল নামটিই চাপা পড়ে যায়। অভিনয় যে ধ্যান-জ্ঞ্যান, ছোটকালের ইচ্ছে বা স্বপ্ন ছিল এমনটি নয়। বরং সখের বশে এসেই অভিনয়ের হঠাৎ বজ্রপাতে টালিগঞ্জে যে হৈ চৈ ফেলে দিলেন তা দেখে স্বয়ং চলচ্চিত্র বোদ্ধারাই অবাক! দু’টি ছবিতে অভিনয় আর সে দু’টিই পেয়েছে আকাশ সমান জনপ্রিয়তা ও সফলতা যা দেখে টালিগঞ্জের অনেকে তাকে অভিনেত্রীদের দেবী হিসাবেই ধারণা করছেন। মিমি চক্রবর্তী নামের এই মেয়েটির জন্ম অর নাচলে। পিতার বাড়ি জলপাই গুড়িতে, তবে তিনি অর নাচলের আলো–বাতাসেই মানুষ হয়েছেন। ওখানকার কনভেন্টা স্কুল থেকে পড়া শেষে কলকাতার আশুতোষ কলেজ থেকে ইংরেজীতে গ্র্যাজুয়েশনের মাধ্যমে শিক্ষা জীবনের পাঠ চুকিয়েছেন। কলেজ জীবনে একটু–আধটু মডেলিং করতেন মিমি। ফেমিনা মিস ইন্ডায়াতে সুন্দরী প্রতিযোগিতাও অংশ নিয়েছেন তিনি। সেখানে অল্পের জন্য ভাগ্যটা হাত ছাড়া হয়েছিল। হঠাৎ একদিন ‘চ্যাম্পিয়ন’ সিরিয়ালে অভিনয়ের প্রস্তাব সঙ্গে সঙ্গে রাজিও হয়ে গেলেন। তাঁর অভিনয় কৌশল ও সাবলীলতা দেখে মুগ্ধ হন হালের শ্রেষ্ঠ প্রযোজক প্রসেনজিৎ। ঠিক কিছু দিন পরই প্রসেনজিৎ এর প্রযোজনায় ঋতু পূর্ব ঘোষের পরিচালনায় ‘গানের ওপারে’ সিরিয়ালে পুপে চরিত্রে দর্শকদের সামনে হাজির হন তিনি।
গানের ওপারে সিরিয়ালটি ছিল কবিগুরু রবিঠাকুরের সার্ধশত (১৫০ তম) জম্মবার্ষিকী উপলক্ষে একটি বিশেষ শ্রদ্ধা নিবেদন অনুষ্ঠান। সেখানে পুপে নামে এমন একজন সিরিয়াস গানের শিল্পী হিসাবে অভিনয় করেন যা শুধু প্রসেনজৎ নয় সকল দর্শকদেরই মন কেড়ে নিয়েছেন। পারফরমেন্স বিবেচনা করে প্রসেনজিৎ বুঝেছিল সিনেমার জন্য এই মেয়ে পাকাপোক্ত তাই নিজের প্রযোজিত ‘বাপি বাড়ি যা’ ছবির জন্য মিমিকে দোলা চরিত্রে অভিনয়ের জন্য প্রস্তাব দেন । “দোলা চরিত্রের ভূমিকা ও গুরুত্ব দেখে ছবিটিতে কাজ করতে রাজি হই। তাছাড়া প্রসেনজিৎদা যেখানে আছে সে ছবিতে অভিনয় না করে এই সুযোগ কেঊ হাতছাড়া করে”? বললেন মিমি। দোলা চরিত্রের অভিনয়ে এমনই জাদু ছুঁয়ানো, যে দেখে সেই মোহিত হতে বাধ্য।
কদিন সেলফোনটা রিং হতেই রিসিভ করলে ওপর প্রান্ত থেকে ভেসে এলো ‘রাজ চক্রবর্তী বলছি’। সময়ের সেরা পরিচালকের ফোন পেয়ে মিমি তো যথারীতি হতভম্ব! মিমির ভাষায় “রাজদা আমাকে তাঁর প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ভেঙ্কটেশ ফিল্মের অফিসে যেতে বলেন। সেখানে গিয়ে জানতে পারলাম রাজদার পরিচালনায় শ্রীকান্ত মোহতার প্রযোজনায় বোজেনা সে বোজেনা ছবিটি নির্মাণ করতে যাচ্ছে। সেখানকার রিয়া চরিত্রটির জন্য আমাকে নির্বাচন করা হয়েছে। আমি স্ক্রিপটি পড়লাম এবং রাজদা যখন আমাকে চরিত্রটি বুঝিয়ে দিলেন তখন থেকে উন্মুখ হয়ে ছিলাম কবে থেকে শূটিং শুরু হবে। শূটিংয়ে নিজেকে রিয়া চরিত্রে পুরোপুরি ফুটিয়ে তুলতে চেষ্টা করেছিলাম”।
দু’টি মাত্র দু’টি ছবিতে অভিনয় করেই যথারীতি চায়ের কাপে ঝড়ের সৃষ্টি করে জনপ্রিয়তার শীর্ষ শিখরে উঠে গেলেন মিমি। “গোল্লায় যাবে বা চাপা পড়ে যাবে এমন কোন কাজ আমি করি না। যাই করি মন দিয়েই করতে চাই।” কারও প্রশংসা করা যার চরিত্রের সাথে ঠিক যায় না সে প্রসেনজিৎ ও বলতে বাধ্য হলেন “আগামী দিনে টালিউডে সেরা বাজি মিমি। ওর স্টাইল, এটিসিউড, চলাফেরা, ধারণা সবই বেশ ভালো। টালিউডের প্রথম শ্রেণীর অভিনেত্রী হওয়ার জন্য যা দরকার মিমির মাঝে সে সব যথেষ্ট আছে।”
বোঝেনা সে বোঝেনা ...... অথবা নারে না আরতো পারেনা ...... গানগুলো একবার আনমনে আওড়ানি দুই বাংলার সিনেমা প্রেমীদের মাঝে এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া কঠিন। কাপুর, মুখার্জী, পতৌদি পরিবারের মতো পারিবারিক সূত্রে অভিনয় করার সুযোগ পাননি মিমি । পরিবারের কেউ অভিনয় জগতের সঙ্গে জড়িত নয় । সে রকম পরিবার থেকে এসে নিজ গুণে সিনেমা জগতের পর্দা কাঁপিয়ে দিয়েছেন মিমি। মিমিকে অলরেডি ভার্সেটাইল অভিনেত্রী আখ্যা দিয়েছেন শ্রীকান্ত মোহতা।