২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ৮ ফাল্গুন ১৪২৬, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

হজ এজেন্সিগুলোর প্রতারণা সম্পর্কে তথ্য চেয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গত হজ মৌসুমে যেসব হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে প্রতারণা ও জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে- সেগুলো সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট তথ্য চেয়েছে সৌদি আরবের হজ কর্তৃপক্ষ। প্রতি বছরই হজ নিয়ে কিছু সংখ্যক এজেন্সির বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ ওঠে। যা শুধু বাংলাদেশের হজযাত্রীদেরই বেকায়দায় ফেলে না, সৌদি আরবের হজ সংস্থা মোয়াচছাছাকেও নানামুখী প্রশ্নের মুখোমুিখ হতে হয়। এ ধরনের সমস্যায় বাংলাদেশ সরকার কি ধরনের ব্যবস্থা নিয়ে থাকে তা জানার জন্যই এসব তথ্য চাওয়া হয়েছে। ধর্ম মন্ত্রনালয় সূত্র জানিয়েছে, প্রতিবছর এ ধরনের অভিযোগ ঢাকা ও সৌদি হজ কর্তৃপক্ষ ত˜ন্ত করে। এবারও তারই ধারাবাহিকতায় কয়েকটি এজেন্সি সম্পর্কে তথ্য ও ব্যাখ্যা চেয়েছে মোয়াচ্ছাছা। প্রাথমিকভাবে ২০১৯ সালে হজের সময় বাংলাদেশের ১৭ হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে উত্থাপিত ত্রুটি বা অনিয়ম প্রসঙ্গে ব্যাখ্যা চেয়েছে দক্ষিণ এশিয়া মোয়াল্লেম সংস্থা (মোয়াচ্ছাছা)। এসব হজ এজেন্সির কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে সৌদি হজ ও ওমরা মন্ত্রণালয়ের হজ সিস্টেম ইতোমধ্যেই ইনএ্যাক্টিভেটেড করা হয়েছে।

অভিযুক্ত হজ এজেন্সিগুলো হলো- স্টার ট্রাভেলস, হোসাইন এয়ার সার্ভিসেস, রাসা শারা ওভারসিজ, সাহারা ট্রাভেলস এ্যান্ড ট্যুরস, এম এস জারিফ এন্টারপ্রাইজ, আল হাবিব হজ গ্রুপ, ইন্টারন্যাশনাল এয়ার সলিউশন, মারভেলাস এয়ার কিং, সেতু ট্রাভেলস এ্যান্ড ট্যুরস, পলি ওয়ার্ল্ড সার্ভিস, আকবর ট্রাভেলস, মাইলস্টোন এয়ার সার্ভিস, এয়ার কানেকশন ট্রাভেলস এ্যান্ড ট্যুরস, নাফিসা এয়ার ট্রাভেলস ইন্টারন্যাশনাল, বিদেশ ভ্রমণ, লিভানা এভিয়েশন ও দেলায়ার ট্রাভেলস অ্যান্ড অ্যান্ড ট্যুরস। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব আবুল কাশেম মুহাম্মদ শাহিন স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে অভিযুক্ত এজেন্সিগুলোকে অনতিবিলম্বে উত্থাপিত অভিযোগ বিষযে মেলে ([email protected]) সব প্রতিষ্ঠানকে জবাব দাখিলের জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯

১০/১২/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: