১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

সর্বশেষ অবস্থা জানাতে হাইকোর্টের নির্দেশ

প্রকাশিত : ১৫ নভেম্বর ২০১৯
  • সাগর-রুনী হত্যাকাণ্ড

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সাংবাদিক সাগর-রুনী দম্পতি হত্যাকাণ্ড নিয়ে র‌্যাবের তদন্তে হতাশা প্রকাশের পর সর্বশেষ কাজের অগ্রগতি জানাতে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। আগামী ৪ মার্চের মধ্যে এই প্রতিবেদন আদালতে দিতে হবে র‌্যাবকে। একই সঙ্গে ওই দিন পর্যন্ত তানভিরের আদালতের হাজির থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। বৃহস্পতিবার বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন। আদালতে আসামি তানভিরের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী ফাওজিয়া করিম ফিরোজ। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল মোঃ সারওয়ার হোসেন। এদিকে আজ ১৪ নবেম্বর এ হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ঢাকা মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাসের আদালতে দাখিলের দিন নির্ধারণ সত্ত্বেও ৬৯ বারের মতো প্রতিবেদন দাখিল পেছাল।

অন্যদিকে দীর্ঘ সময় অতিক্রান্ত হলেও তদন্তের মাধ্যমে সাগর-রুনী হত্যা মামলার রহস্য উদ্ঘাটিত না হওয়া এবং অপরাধীদের চিহ্নিত, গ্রেফতার এবং বিচারের সম্মুখীন না করতে পারা- নিঃসন্দেহে দুঃখ ও হত্যাশার বিষয়। প্রযুক্তি নির্ভর এলিট ও চৌকস বাহিনী র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। জঙ্গী, সন্ত্রাস, মাদক, বেআইনী অস্ত্র উদ্ধার, ভেজাল প্রতিরোধসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় অনন্য সফলতা পেয়েছে বিশেষায়িত এই বাহিনী।

বৃহস্পতিবার সাগর-রুনী হত্যা মামলার আসামি তানভীরের করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দেয়া লিখিত আদেশে এমন মন্তব্য করেন বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

সংবাদ প্রকাশে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ শাখা বৃহস্পতিবার গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি, রাজনীতিক, ব্যবসায়ী ও সরকারী কর্মকর্তাদের নিয়ে বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের জন্য এক গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। বিজ্ঞপ্তিতে গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের তথ্য যথাযথভাবে যাচাই-বাছাই করে সংবাদ প্রকাশের অনুরোধ করা হয়। গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক, অনলাইন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও রাজনৈতিক ব্যক্তি, ব্যবসায়ী, সরকারী কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে বিভিন্ন সময়ে বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ প্রকাশিত হচ্ছে। যার ফলে জনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটার পাশাপাশি ব্যক্তিগত সুনাম ক্ষুণœœ ও সামাজিক অস্থিরতা সৃষ্টিসহ জনমনে বিভ্রান্তি তৈরি হচ্ছে। -বাসস

প্রকাশিত : ১৫ নভেম্বর ২০১৯

১৫/১১/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



শীর্ষ সংবাদ: