১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২ পৌষ ১৪২৬, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 

গৃহিণীরা পেঁয়াজ ছাড়াই রান্না করছেন

প্রকাশিত : ১৪ নভেম্বর ২০১৯

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে পেঁয়াজের দাম। খুচরা বাজারে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৬০-১৭০ টাকায়। বাজার খরচ বৃদ্ধি পাওয়ায় সাধারণ ভোক্তা অতি দামের পেঁয়াজ খাওয়া কমিয়ে দিয়েছেন। বেশিরভাগ পরিবারে অর্ধেকে নেমে এসেছে পেঁয়াজের ব্যবহার। যেসব তরকারি পেঁয়াজ ছাড়াই রান্না করা যায়, তা এই মসলাবাদেই রান্না করছেন গৃহিণীরা। অনেক গৃহকর্তাও দৈনন্দিন বাজার খরচ কমাতে তরকারিতে পেঁয়াজের ব্যবহার কমিয়ে আনার পরামর্শ দিচ্ছেন।

এদিকে, পেঁয়াজের বাজার সামাল দিতে খুব দ্রুত মিসর ও তুরস্কের পেঁয়াজ দেশে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বলছে, আগামী দু’একদিনের মধ্যে আমদানিকৃত ৬০ হাজার মে. টন পেঁয়াজ চট্টগ্রাম বন্দরে এসে পৌঁছবে। এছাড়া পেঁয়াজ আমদানিতে এলসি খোলার পরিমাণ বেড়েছে। বাজার নিয়ন্ত্রণে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে ১৪টি মনিটরিং টিম মাঠে রয়েছে। মিয়ানমার থেকে আমদানিকৃত পেঁয়াজ ন্যূনতম লাভে বিক্রির নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বাণিজ্য সচিব ড. মোঃ জাফর উদ্দীন জনকণ্ঠকে বলেন, আমদানিকৃত বড় লটের পেঁয়াজ দেশে এলে বাজার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। এছাড়া চলতি মাসের শেষ নাগাদ বাজারে নতুন পেঁয়াজ ওঠা শুরু হবে। ওই পেঁয়াজ বাজারে এলে দাম এমনিতে কমে যাবে। তিনি বলেন, মসলা জাতীয় এই পণ্যটি এবার সকলকে ভুগিয়েছে। এবারের শিক্ষা নিয়ে পেঁয়াজ উৎপাদন, মজুদ ও বিপণনের বিষয়টি নিয়ে নতুন পরিকল্পনা করা প্রয়োজন।

প্রকাশিত : ১৪ নভেম্বর ২০১৯

১৪/১১/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: