১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

বাংলাদেশ-ভারত ইন্দোর টেস্ট শুরু আজ

প্রকাশিত : ১৪ নভেম্বর ২০১৯

মিথুন আশরাফ ॥ বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শুরু হবে আজ। ইন্দোরের হোলকার ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্ট দিয়ে সিরিজ শুরু হবে। ম্যাচটি সকাল ১০টায় শুরু হবে। এ টেস্টটি শেষে ২২ নবেম্বর থেকে কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। ম্যাচটি দিবা-রাত্রিতে গোলাপি বলে খেলা হবে। বাংলাদেশ যে ইন্দোরে প্রথম টেস্টটি খেলতে নামবে, এই ম্যাচ দিয়েই আবার টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলাও শুরু করে দেবে।

মুস্তাফিজুর রহমান কী ইন্দোর টেস্ট খেলবেন? নিশ্চয়তা নেই। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের মধ্যে এক মুস্তাফিজকে নিয়েই যেন ভাবনায় আছেন ভারত ক্রিকেটাররা। ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি যেমন টেস্ট সিরিজপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অনেক ভাল দল বলার সঙ্গে মুস্তাফিজকে নিয়েই বিশেষ ভাবনার কথা জানান। তিনি বলেন, ‘সে খুব ভাল একজন বোলার। সে লাল বলেও বেশ কিছু ম্যাচ খেলেছে। আমরা সাধারণত যাদের খেলি সব বাঁহাতি পেসারই তাদের চেয়ে আলাদা ধরনের বোলার। ওর দিকে বাড়তি মনোযোগ দিতে হবে। কারণ আমাদের দলে না থাকায় বাঁহাতি পেসার আমরা তেমন খেলি না। এটা চ্যালেঞ্জ হবেÑ তবে আমরা এই চ্যালেঞ্জ নিতে মুখিয়ে আছি।’

কোহলির কথায় মনে হচ্ছে শুধু মুস্তাফিজকে নিয়েই তারা আছেন চিন্তায়। তা নয়। বাংলাদেশ দলকে নিয়েও আছে ভাবনা। কোহলি বলেছেন, ‘ওরা (বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা) একই ধরনের কন্ডিশনে খেলে অভ্যস্ত। আমরা জানি, ওরা নিজেদের গেম প্ল্যানটা জানে, ওরা জানে কি করতে হবে। ফল পেতে আমাদের ভাল খেলতে হবে, যেমনটা আগের প্রতিটা ম্যাচে খেলেছি।’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘আমরা কোন দলকে হাল্কাভাবে নিচ্ছি না। বাংলাদেশের কোন বোলার বা ব্যাটসম্যানকে আমরা হাল্কাভাবে নিচ্ছি না। যখন ওরা ভাল খেলে তখন খুব চৌকস দল হয়ে ওঠে। ওদের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা আছে। আমরা আমাদের প্রক্রিয়া ঠিক রেখে এগোব।’

বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক কী ভাবছেন? এর আগে ভারতের বিরুদ্ধে ৯টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ। জয় নেই। হার সাতটিতে। ড্র আছে দুটি ম্যাচে। দুটি ম্যাচেই বৃষ্টির বাগড়া ছিল। টেস্টে বাংলাদেশের ১১তম টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুলও ভাল করেই জানেন ভারত কতটা শক্তিশালী দল। বিশেষ করে নিজেদের মাটিতে। দুই বছর আটমাস ধরে কোন টেস্টই হারেনি ভারত। আর সাত বছর ধরে এক টেস্টের বেশি হার হয়নি। নিজেদের মাটিতে কি ভয়ঙ্কর দল ভারত। তাতেই বোঝা যাচ্ছে। বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা কী নিজেদের সামলে নিয়ে ঝলক দেখাতে পারবেন?

অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান নেই। তিনি একবছর ক্রিকেট খেলতে পারবেন না। ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব তিনবার পেয়ে আইসিসির এ্যান্টি করাপশন ইউনিটকে না জানানোর অপরাধ করেন সাকিব। আইসিসি সাকিবকে তাই নিষিদ্ধ করেছে। যিনি টেস্টে দুর্দান্ত পারফর্মার। তিনি ছাড়া এমনিতেই দুর্বল হয়ে পড়েছে বাংলাদেশ দল। আবার নেই ওপেনার তামিম ইকবালও। তিনি পারিবারিক কারণে সিরিজে নেই। এমন অবস্থায় টি২০তে একটি ম্যাচ জেতা গেলেও টেস্টে কী সাকিব, তামিমকে ছাড়া ভাল কিছু করা সম্ভব?

মুমিনুল মনে করছেন খুবই সম্ভব। কারণ নিজেই জানালেন, ‘প্রস্তুতির ঘাটতি না থাকায় ভারতের বিরুদ্ধে চাপমুক্ত থেকে ভাল করা সম্ভব। আমি কখনও অতীত নিয়ে চিন্তা করি না। ভবিষ্যত নিয়েও করি না। সবসময় বর্তমান নিয়ে ভাবি। যেহেতু ভালভাবে প্রস্তুতি নিয়েছি, ভাল ক্রিকেটও খেলব। সুযোগ কাজে লাগানোর জন্য প্রস্তুত আছি। প্রতিপক্ষের কাউকে হুমকি হিসেবে দেখছি না। এটা একটা চ্যালেঞ্জ। চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে মুখিয়ে আছি।’

ভারতের মাটিতে প্রথমবারের মতো পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে গিয়েছে বাংলাদেশ। প্রথমবারে প্রথম সিরিজেই জেতার আশা জাগায়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজ জেতা যায়নি। ২-১ ব্যবধানে সিরিজ হার হয়েছে। তবে ভারতকে শুরুতেই কাঁপিয়ে দেয়া গেছে। এবার টেস্টেও ভারতের কাঁপন ধরানো গেলেই হয়।

প্রকাশিত : ১৪ নভেম্বর ২০১৯

১৪/১১/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: