১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২ পৌষ ১৪২৬, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 

জাবিতে আন্দোলনরতদের বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয়ে পাল্টা অভিযোগ

প্রকাশিত : ১৩ নভেম্বর ২০১৯
  • তদন্ত করেই ব্যবস্থা ॥ শিক্ষা উপমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনরতদের বিরুদ্ধে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন শিক্ষকদের এক অংশ। উপাচার্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে তার পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন করা শিক্ষকদের অভিযোগ দাখিলের পর উপাচার্যের পক্ষে অবস্থান নেয়া শিক্ষকরাও অভিযোগ দাখিল করেছেন। উপাচার্যের পদত্যাগের দাবির আন্দোলনে রাজনৈতিক ইন্ধন, ব্যক্তিগত ফায়দা লোটার চেষ্টা ও ক্যাম্পাস অস্থির করার তথ্য প্রমাণ তুলে ধরা হয়েছে। শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেছেন, আন্দোলনের কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হতে পারে না।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিশ^বিদ্যালয় শাখা সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আহ্বানের প্রায় দুই সপ্তাহ পর গত শুক্রবার রাতে প্রথমে রাজধানীর বনশ্রীতে শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনির একান্ত সচিব ড. আব্দুল আলীম খানের বাসা ‘ক্লান্ত নিবাস’-এ গিয়ে উপাচার্যের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগপত্র দিয়েছেন জাবির আন্দোলনকারীরা। তাদের পক্ষে জাবির চার শিক্ষক অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন। শিক্ষকদের মধ্যে রয়েছেন- বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ রেজাউল করিম তালুকদার, পরিসংখ্যান বিভাগের অধ্যাপক মোঃ ফজলুল করিম পাটোয়ারি, কম্পিউটার সায়েন্স এ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. আবু সাইদ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান এবং ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক খন্দকার হাসান মাহমুদ।

তবে এরপর শনিবার সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেছিলেন, আমরা অভিযোগকারীদের কাছে তথ্য উপাত্ত চাওয়ার পর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এক ঘণ্টার পথে অভিযোগ নিয়ে আসতে তাদের এতদিন কেন লেগেছে? স্বাভাবিক কারণেই মনে হয়েছে এ দেরিটা দুরভিসন্ধিমূলক। অভিযোগ থাকবে, সেটা জমা হলে তদন্ত হবে। ন্যায়বিচারের জন্য উভয় পক্ষের শুনানির প্রয়োজন আছে। কিন্তু তার আগেই গান-বাজনা-কনসার্ট ঘোষণা দেয়া, গভীর রাতে তালা ভাঙ্গা, তালা লাগানো। বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণার পরও ক্যাম্পাস ত্যাগ না করে কি উদ্দেশ্যে সারারাত অবস্থান করা হচ্ছে? সেটা জানতে চাই। তদন্ত করার জন্য অভিযোগ জমা দেয়ার আগে কনসার্টের অর্থ কোথা থেকে এলো সেটাও তদন্তে রাখব।

ঠিক এমন এক অবস্থার মধ্যে এবার জাবির উপাচার্যবিরোধী আন্দোলনে রাজনৈতিক ইন্ধন, ফায়দা লোটার চেষ্টা ও ক্যাম্পাস অস্থির করার পাঁয়তারার তথ্য-প্রমাণ তুলে ধরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ দাখিল করেছেন উপাচার্যের পক্ষে অবস্থান নেয়া শিক্ষকরা। জাবির শিক্ষক সমিতির একটি অংশের সমর্থনও আছে এই পক্ষে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিশ^বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা মঙ্গলবার দুপুরে জনকণ্ঠকে বলেন, শিক্ষকদের দুই পক্ষই যেহেতু পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দিয়েছেন তাই দুটি অভিযোগই তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

এদিকে মঙ্গলবার রাজধানীর শিশু একাডেমিতে রুম টু রিড বাংলাদেশ আয়োজিত আান্তর্জাতিক শিশু কন্যা দিবসের অনুষ্ঠান শেষে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। তিনি বলেছেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির পক্ষে-বিপক্ষের আন্দোলনরত শিক্ষকদের দুই গ্রুপই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাল্টাপাল্টি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপমন্ত্রী বলেন, জনগণের টাকায় বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত হচ্ছে সেখানে নিজেদের আন্দোলনের কারণে একটি বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে যাবে এটা কখনও হতে পারে না। কোন্ নৈতিকতায় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে দিয়েছেন সেটা শিক্ষকদের কাছে জানতে চাই। শিক্ষকদের তা জবাব দিতে হবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাউশি অধিদফতরের মহাপরিচালক প্রফেসর ড. সৈয়দ মোঃ গোলাম ফারুক, বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান লাকী ইনাম। সভাপতিত্ব করেন রুম টু রিড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর রাখী সরকার।

উপস্থিত ছিলেন শিক্ষাবিদ, শিক্ষানুরাগী, আন্তর্জাতিক/জাতীয় উন্নয়ন সংস্থার প্রতিনিধি ও ঢাকার ১৩টি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকরা।

প্রকাশিত : ১৩ নভেম্বর ২০১৯

১৩/১১/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: