১৪ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

প্রয়োজন সচেতনতা

প্রকাশিত : ৭ নভেম্বর ২০১৯
  • মাহবুবুল হক

বিভিন্ন সামাজিক, অর্থনৈতিক ও অন্যান্য কারণে দীর্ঘদিন ধরেই শিশুশ্রম বাংলাদেশে বিরাজমান। দেশের সার্বিক উন্নয়নের প্রেক্ষাপটে এটি দৃষ্টিকটু। সরকার ২০২১ সালের মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম নিরসনের ঘোষণা দিয়েছে। ২০২৫ সালের মধ্যে চূড়ান্তভাবে শিশুশ্রম নিরসনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। শিশুশ্রমকে কেন্দ্র করে নতুন আইন প্রণয়ন করেছে সরকার। বর্তমানে গার্মেন্টস সেক্টর শিশুশ্রমমুক্ত। এরপরও গোটা দেশে শিশুশ্রম সন্দেহাতীতভাবে ছড়িয়ে রয়েছে। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে শিশুশ্রমকে দ্রুত নিরসন সম্ভব না হলেও সঠিক পদক্ষেপের মাধ্যমে কমিয়ে আনা সম্ভব।

২০১৩ সালের আগে বাংলাদেশে কায়িক শ্রমের সঙ্গে সম্পৃক্ত শিশুর সংখ্যা ছিল ৩৪ লাখ। বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগের ফলে সেই সংখ্যা অর্ধেকে নেমে এসেছে। শিশুশ্রমের বিরদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কলকারখানা পরিদর্শন অধিদফতরকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। শিশুদের দিয়ে কাজ করানোর অপরাধে ইতোমধ্যেই বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও কলকারখানার মালিকের বিপক্ষে ৭০টি মামলা হয়েছে। ৪০টি মামলার রায় হয়েছে। তবে কেবল আইন করলে কাক্সিক্ষত পরিবর্তন আনা সম্ভব নয়, প্রয়োজন সচেতনতা। সচেতনতার মাধ্যমে সমাজ থেকে শিশুশ্রমকে চিরতরে বিদায় করা সম্ভব।

সিরাজগঞ্জ থেকে

প্রকাশিত : ৭ নভেম্বর ২০১৯

০৭/১১/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: