১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

ব্যাংক সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে না আনলে ব্যবস্থা : অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত : ৬ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:০৬ পি. এম.
ব্যাংক সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে না আনলে ব্যবস্থা  :  অর্থমন্ত্রী

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ব্যাংক সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার সরকারী নির্দেশ অমান্যকারী ব্যাংকগুলোর ব্যবসা বন্ধ করা হবে বলে কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, ঋণের বিপরীতে এক অঙ্কে সুদ হার নামিয়ে আনার চেষ্টা চলছে বেশ কয়েক বছর ধরে। গত বছর কেন্দ্রীয় ব্যাংক সুদহার কমিয়ে আনার জন্য সরকারী-বেসরকারী ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দেয়। সেই নির্দেশ মেনে কোন কোন ব্যাংক ইতোমধ্যে সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে এনেছে। তবে বেশির ভাগ ব্যাংক তা করেনি। কিন্তু সরকারী নির্দেশ অমান্য করার সুযোগ কারও নেই। নির্দেশ অমান্যকারী ব্যাংকগুলোর ব্যবসা বন্ধ করে দেয়া হবে।

বুধবার সচিবালয়ে সরকারী ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। এর আগে তিনি সরকারী ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর সম্প্রসারণ প্রকল্পের ঠিকাদার নিয়োগ, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বার্ডের বন্যা নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পের নির্মাণকাজের ভেরিয়েশন প্রস্তাব, চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচীর সেবা ক্রয় সংক্রান্ত চুক্তি এবং ইউরোরিয়া সার আমদানিকৃত সংক্রান্ত চারটি প্রস্তাবের অনুমোদন দেন।

সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, খেলাপি ঋণ আদায় করা হবে। তবে যারা খেলাপি হয়েছেন তাদের ব্যবসা করারও সুযোগ দিতে হবে। আমরা সবাই এদেশের জনগণ। কৃষক, তাঁতী, কামার, কুমার, শিল্পপতি, উদ্যোক্তা, চাকরিজীবি সবার অবদানে আজ বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

এজন্য কাউকে বিপদে ফেলে নয়, বরং এমন উদ্যোগ নিতে হবে যাতে খেলাপি ঋণ আদায় হয়। আবার যিনি খেলাপি হলেন তিনি যাতে আবার ব্যবসাও করতে পারেন। অর্থমন্ত্রী বলেন, এলক্ষ্যে সরকার সংস্কারমুখী কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। এই সংস্কার হবে দেশের ব্যাংকিখাতে, পুঁজিবাজারে, শিক্ষায় এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে। তিনি বলেন, খেলাপি ঋণ আদায় করা হবে-তবে কাউকে জেলে পাঠিয়ে নয়। আবার এটা খেলাপিদের মনে রাখতে হবে তিনি যে টাকা ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছেন তা কিন্তু ট্যাক্স পেয়ারদের অর্থ। এদেশের সাধারণ মানুষের টাকা। রাষ্ট্রের সকলের সঞ্চয়ের টাকা এই অর্থ।

তাই ব্যাংকের টাকা মেরে দেয়ার কোন সুযোগ নেই। অর্থমন্ত্রী বলেন, সরকার এমন একটি ব্যবস্থা করছে যাতে খেলাপিরা টাকা ফেরত দিতে পারেন, আবার তারা ব্যবসাও করবেন। একটি উইন উইন পরিস্থিতি তৈরি করা হচ্ছে। খেলাপিদের যে সুযোগ দেয়া হয়েছে-এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কোটে রিট হয়েছে। আশা করছি দ্রুত রায় আসবে। ২ শতাংশ ডাউনপেমেন্ট দিয়ে যাতে তারা ঋণ পরিশোধের সুযোগ নিয়ে ব্যবসা করতে পারেন সেই ব্যবস্থা কার্যকর করা হবে।

সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনা সংক্রান্ত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা রয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এই নির্দেশ অমান্য করার সুযোগ কোন ব্যাংকের নেই। সরকার এ ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনতে হবে।

ইতোমধ্যে সরকারী ব্যাংকের পাশাপাশি বেসরকারীখাতের অনেক ব্যাংক সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে এনেছে। তবে বেশিরভাগ ব্যাংক সরকারী এ নির্দেশ এখনো কার্যকর করেনি। অর্থমন্ত্রী বলেন, তবে সবাইকে এই নির্দেশ মানতে হবে। তিনি বলেন, ১০ শতাংশের ওপরে সুদ দিয়ে ব্যবসা করা সম্ভব নয়। দীর্ঘদিন ধরে সুদের হার কমিয়ে আনার জন্য ব্যবসায়ীরা দাবি করে আসছেন। আশা করছি, সুদের হার সব ব্যাংক এক অঙ্কের ঘরে নামিয়ে আনবে। অর্থমমন্ত্রী বলেন, ব্যাংকিখাতের সুশাসন নিশ্চিত করতে ব্যাংকিং কমিশন গঠন করা হবে। ইতোমধ্যে এ ব্যাপারে কাজ শুরু করা হয়েছে। মানুষের জন্য জনকল্যাণে এখাতে বিশেষ সংস্কার করা জরুরি হয়ে পড়ছে।

এদিকে, সরকারী ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে চারটি প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়। এরমধ্যে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সম্প্রসারণ একটি অন্যতম প্রকল্প। এরমধ্যে বিমান বন্দরে যাত্রী এবং কার্গো হ্যান্ডেলিং ক্যাপাসিটি বৃদ্ধির জন্য তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণসহ অবকাঠামো নির্মাণে ঠিকাদার নিয়োগ। ২০ হাজার ৫শত আটানব্বই কোটি টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ।

প্রকাশিত : ৬ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:০৬ পি. এম.

০৬/১১/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

জাতীয়



শীর্ষ সংবাদ: