১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

উৎপাদনে ব্যর্থ সাভার চামড়া শিল্পনগরীর ১১ প্লটের বরাদ্দ বাতিল

প্রকাশিত : ২৪ অক্টোবর ২০১৯
  • শীঘ্রই চিঠি যাবে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বিসিকের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী কারখানা নির্মাণসহ উৎপাদন কার্যক্রমে ব্যর্থ হওয়ায় সাভার চামড়া শিল্পনগরীর ১১ প্লটের বরাদ্দ বাতিল করা হয়েছে। বাতিল প্লট মালিকদের অনুকূলে শীঘ্রই চিঠি ইস্যু করা হবে।

বুধবার শিল্প মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে শিল্প মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীতে (এডিপি) অন্তর্ভুক্ত প্রকল্পগুলোর বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় এ তথ্য জানানো হয়।

শিল্প সচিব মোঃ আবদুল হালিমের সভাপতিত্বে সভায় শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন প্রধান অতিথি ও শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বিশেষ অতিথি ছিলেন। সভায় মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তা, মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন সংস্থা ও কর্পোরেশনের প্রধান এবং সংশ্লিষ্ট প্রকল্প পরিচালকরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় জানানো হয়, ২০১৯-২০ অর্থবছরে শিল্প মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীতে মোট ৪৯টি উন্নয়ন প্রকল্প রয়েছে। এর মধ্যে ৪৫টি বিনিয়োগ প্রকল্প, তিনটি কারিগরি ও একটি নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়িত প্রকল্প রয়েছে। সব মিলিয়ে এসব প্রকল্পে বরাদ্দের পরিমাণ ছিল ১ হাজার ৩শ’ ৪ কোটি ৩১ লাখ টাকা। এর মধ্যে জিওবি খাতে ১ হাজার ১শ’ ৫৮ কোটি ৩১ লাখ টাকা, প্রকল্প সাহায্য খাতে ৫৬ কোটি টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন খাতে ৯০ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে।

সভায় আরও জানানো হয়, চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে সাভার চামড়া শিল্পনগরীর সিইটিপি নির্মাণ শেষ হবে। এ লক্ষ্যে প্রকল্প সংশ্লিষ্ট অংশীজনরা নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করছেন। এ বিষয়ে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানও নিশ্চয়তা দিয়েছে মর্মে সভায় তথ্য প্রকাশ করা হয়। সভায় নবেম্বরের মধ্যে চলতি অর্থবছরের জন্য বিসিকের সব দরপত্র প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার নির্দেশনা দেয়া হয়। একই সঙ্গে আগামী অর্থবছরের জন্য যাবতীয় দরপত্র প্রক্রিয়া জুন, ২০২০ এর মধ্যে সম্পন্ন করার পরামর্শ দেয়।

এ বিষয়ে শিল্পমন্ত্রী বলেন, প্রকল্প বাস্তবায়নে গতানুগতিক মানসিকতা পরিহার করে জনগণের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। দেশের বর্তমান আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অন্য চাকরিজীবীদের চেয়ে বেশি সুবিধা ভোগ করছেন। এটি বিবেচনায় রেখে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে প্রকল্প বাস্তবায়নে সবাইকে আরও উদ্যমী হতে হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নে অর্থায়ন কোন সমস্যা নয়। গুণগতমান বজায় রেখে স্বচ্ছতার সঙ্গে অর্থ খরচ করলে সরকার প্রয়োজনে আরও অর্থ বরাদ্দ দেবে।

শিল্প প্রতিমন্ত্রী বলেন, যে কোন মূল্যে নির্ধারিত সময়ে গুণগতমান বজায় রেখে প্রকল্পের কাজ শেষ করতে হবে। পরিহার করতে হবে ছোট-খাটো কারণ দেখিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়নে বিলম্ব করার প্রবণতা।

প্রকাশিত : ২৪ অক্টোবর ২০১৯

২৪/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: