১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

পেঁয়াজের অদৃশ্য ব্যবসা করলে কঠোর ব্যবস্থা

প্রকাশিত : ১৮ অক্টোবর ২০১৯

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে পেঁয়াজ নিয়ে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত হননি আমদানিকারকরা। এতে ক্ষুব্ধ জেলা প্রশাসক বলেছেন, কেউ অদৃশ্য ব্যবসা করলে এ্যাকশন নেয়া হবে। পেঁয়াজ বিক্রিতে বেশি মুনাফা করার চেষ্টা করা হলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোঃ ইলিয়াস হোসেনের সম্মেলন কক্ষে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে পেঁয়াজ আমদানিকারকরা উপস্থিত না থাকলেও আড়তদার ও কমিশন এজেন্টরা উপস্থিত ছিলেন। তারা বর্তমানে পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধির নেপথ্যে বিভিন্ন কারণ তুলে ধরেন। অল্প সময়ের মধ্যে বাজার স্থিতিশীল হয়ে যাবে বলে আশ^াসও প্রদান করেন। মতবিনিময় সভায় আমদানিকারকরা উপস্থিত না হওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক বলেন, পেঁয়াজ নিয়ে অদৃশ্য ব্যবসা করা যাবে না। অদৃশ্য মানে কালোবাজারি। কালোবাজারিদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, কমিশন এজেন্টদের দোকানে অবশ্যই আমদানিকারকের নাম, টেলিফোন নম্বর ও রসিদ রাখতে হবে। প্রয়োজনে প্রশাসন ও মন্ত্রণালয় আমদানিকারকদের সঙ্গে যোগাযোগ করবে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী চট্টগ্রামে ৮ পেঁয়াজ আমদানিকারক রয়েছেন। তাদের না দেখতে পেয়ে জেলা প্রশাসক ইলিয়াস হোসেন বলেন, আমন্ত্রণ জানানো সত্ত্বেও কেউ আসেননি। তারা অন্য কোন ঠিকানা ব্যবহার করে পেঁয়াজ আমদানি করছেন কি না খতিয়ে দেখা হবে। তিনি বলেন, আমরা

ব্যবসায়ীদের প্রতিপক্ষ নই। বরং পরিপূরক। কিন্তু কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করে অতি মুনাফা করা যাবে না। পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল রাখতে চট্টগ্রাম বন্দর ও টেকনাফ কাস্টমসকে অনুরোধ করা হবে, যাতে করে আমদানির পেঁয়াজ দ্রুত খালাস হয়। মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন খাতুনগঞ্জ ট্রেড এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এ্যাসোসিয়েসনের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ছগীর আহমেদ, চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, চাক্তাই খাতুনগঞ্জ কাঁচা পণ্য আড়তদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, হামিদ উল্লাহ মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইদ্রিস, কনজুমার এ্যাসোসিয়েসন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) নাজের হোসাইন এবং পেঁয়াজ ব্যবসার সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে, খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ীরা বলছেন, চট্টগ্রাম দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি হয় খুবই কম। ভারত থেকে স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ এসে থাকে। হঠাৎ কোন সঙ্কট দেখা দিলে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীরা অন্য দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করে থাকেন।

প্রকাশিত : ১৮ অক্টোবর ২০১৯

১৮/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: