১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

পোশাক রপ্তানি বন্ধ হলে বিপর্যয় নেমে আসবে ॥ স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

প্রকাশিত : ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০১:৪৯ পি. এম.
পোশাক রপ্তানি বন্ধ হলে বিপর্যয় নেমে আসবে ॥ স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

অনলাইন রিপোর্টার ॥ স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, আমাদের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি তৈরি পোশাক খাত। এর রপ্তানি কখনো বাধাগ্রস্ত হলে আমাদের অর্থনীতিতে বিপর্যয় নেমে আসবে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) সেমস গ্লোবাল আয়োজিত তিন দিনব্যাপী ২৬তম বিল্ড বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল এক্সপো-২০১৯ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এখন থেকেই আমাদের রপ্তানির বিকল্প বাজার তৈরির চিন্তা করতে হবে জানিয়ে তাজুল ইসলাম বলেন, আমাদের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি তৈরি পোশাক খাত। এই তৈরি পোশাক রপ্তানি কখনো কোনো কারণে বাধাগ্রস্ত হলে আমাদের অর্থনীতিতে বিপর্যয় নেমে আসবে।

‘দেশের তৈরি পোশাক খাত থেকে রপ্তানি আয় হয় ৮০ শতাংশের বেশি। বাংলাদেশ থেকে আরও অনেক ধরনের পণ্য রপ্তানি হলেও সেগুলো বেশি এগোতে পারছে না’, বলেন তিনি।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে ৮৫ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা। আমরা উন্নয়নশীল দেশের তালিকাভুক্ত হয়েছি। আমাদের মাথাপিছু আয় হবে ২ হাজার ৫শ ডলার’।

তাজুল ইসলাম বলেন, ‘শুধু কৃষি খাতই নয়, শিল্পায়নও হবে। এসব শিল্প কারখানায় কর্মসংস্থানের জন্য গ্যাস ও বিদ্যুতের প্রয়োজন হবে। একশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর‍া হয়েছে। এর মধ্যে মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে পাঁচ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ প্রয়োজন হবে। এসব অর্থনৈতিক অঞ্চলে লাখ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান তৈরি হবে’।

বিশেষ অতিথি বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আহমেদ কায়কাউস বলেন, দেশের উদীয়মান অর্থনীতিতে এই ধরনের প্রদর্শনী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ম্যাক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার রেজওয়ান ফেরদৌস ও সেমস গ্লোবালের প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড গ্রুপ ম্যানেজিং ডিরেক্টর মেহেরুন এন. ইসলাম।

আয়োজকরা জানান, তিনদিনের এই প্রদর্শনীতে ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপাররা অবকাঠামো উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ সরঞ্জাম, উদ্ভাবনী ধারণা ও পরিষেবা সর্ম্পকে জানার সুযোগ পাবেন।

এবারের প্রদর্শনীতে বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৪টিরও বেশি দেশের ২৬৭টি কোম্পানির ৩শ’র বেশি স্টল অংশ নিয়েছে। প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত বিনামূল্যে প্রবেশ করা যাবে প্রদর্শনীতে।

প্রকাশিত : ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০১:৪৯ পি. এম.

১৭/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

জাতীয়



শীর্ষ সংবাদ: