১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

টাইব্রেকারে স্বপ্নভঙ্গ বাংলাদেশের

প্রকাশিত : ১৬ অক্টোবর ২০১৯

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সেই একই ভেন্যু সেই একই প্রতিপক্ষ। সেই একই ফল। টাইব্রেকারের আরেক নাম ‘হার্ট ব্রেকার’। মঙ্গলবার সাফ অনুর্ধ-১৫ নারী চ্যাম্পিয়নশিপে এই টাইব্রেকারেই স্বপ্নভঙ্গ হলো গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যাদের। ২০১৮ আসরের মতো ২০১৯ আসরের ফাইনালেও ভারতের কাছে হারলো বাংলাদেশ। সেবার হেরেছিল ১-০ গোলে। এবার হারলো টাইব্রেকারে, ৫-৩ গোলে। ফলে ভুটানের চাংলিমিথান স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনালের নির্ধারিত ৯০ মিনিটে কোন দলই গোল করতে পারেনি। তারপর খেলা সরাসরি গড়ায় টাইব্রেকার নামের ভাগ্য পরীক্ষায়। যাতে হেরে কান্নার সাগরে ভাসে বাংলাদেশের কিশোরী ফুটবলাররা। ফলে ভারতকে হারিয়ে বদলা নেয়ার পাশাপাশি শিরোপা পুনরুদ্ধার করা হলো না তাদের।

টাইব্রেকারে বাংলাদেশের অধিনায়ক শামসুন্নাহার জুনিয়রের শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। ভারত ৫ শটের প্রতিটিতেই গোল করে। ফলে তাদের জয় নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় বাংলাদেশের পঞ্চম ও শেষ শটটি নিতে হয়নি। শিরোপা জিতে উল্লাসে ফেটে পড়ে ভারতের মেয়েরা।

ফাইনাল খেলাটি ৫৫ মিনিট হওয়ার পর হঠাৎই স্টেডিয়ামের ফ্লাডলাইট নিভে যায়। আবারও লাইট চালু হতে ২০ মিনিট লেগে যায়। ম্যাচে ভারতকে বেশ ভালমতোই চেপে ধরেছিল বাংলাদেশ। উভয় দলই আক্রমণ করে খেলে এবং একাধিক গোলের সুযোগ পেয়েও তা কাজে লাগাতে পারেনি।

বাংলাদেশের অধিনায়ক ফরোয়ার্ড শামসুন্নাহার জুনিয়র গ্রোয়েন ইনজুরিতে পড়লেও খেলা শুরুর আগে ফিট বলে ঘোষিত হওয়ায় কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন তাকে একাদশে খেলান। শেষ পর্যন্ত শামসুন্নাহারের শট মিসেই শিরোপা জিততে পারেনি বাংলাদেশ।

এই আসরে ২০১৭ আসরের ফাইনালে (ঢাকায় অনুষ্ঠিত) ভারতকে ১-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ।

এই আসরে তিন দেশ পাকিস্তান, মালদ্বীপ ও শ্রীলঙ্কা অংশ নেয়নি। ফলে দলের সংখ্যা কম (৪টি) হওয়াতে লীগ পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে তৃতীয়বারের মতো আয়োজিত এই আসর। শীর্ষ পয়েন্টধারী দুই দল খেলে ফাইনালে।

প্রকাশিত : ১৬ অক্টোবর ২০১৯

১৬/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: