১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

চট্টগ্রামে হচ্ছে তিন মেট্রোরেল

প্রকাশিত : ১৬ অক্টোবর ২০১৯
  • দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান থামবে না ॥ কাদের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বন্দরনগরী চট্টগ্রামবাসীর জন্য সুখবর। রাজধানী ঢাকার পর মেট্রোরেল যাচ্ছে এবার চট্টগ্রাম মহানগরীতে। সেখানে তিনটি মেট্রোরেল নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার সচিবালয়ে সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন। তিনি জানান, তিনটি লাইনের মোট দৈর্ঘ্য হবে সাড়ে ৫৪ কিলোমিটার, স্টেশন থাকবে মোট ৪৭টি। প্রতি কিলোমিটারে প্রায় ১ হাজার ৫৪৫ কোটি টাকা সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে প্রস্তাবে।

এসময় মন্ত্রী স্থানীয় সরকার নির্বাচন, বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প, দুর্নীতিবিরোধী অভিযানসহ বিভিন্ন বিষয়ে সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের জবাব দেন।

দুর্নীতির বিরুদ্ধে চলমান অভিযান কোন দিনও থামবে না জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘এটা কোন দিনও থামবে না। যতক্ষণ না এটাকে আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারব, লক্ষ্য অর্জন করতে না পারব; ততক্ষণ পর্যন্ত মাদক, সন্ত্রাস, ক্যাসিনো জুয়া, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি এসব অপকর্মের বিরুদ্ধে আমাদের প্রধানমন্ত্রী যে অভিযান শুরু করেছেন তা শেষ হবে না।

দুর্নীতির অভিযোগ উঠলে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের আওয়ামী লীগ দলীয় কাউন্সিলররা আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন পাবেন না জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের আওয়ামী লীগ দলীয় অনেক কাউন্সিলরের নামে বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দলীয়ভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে কি না- জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, দেখুন, এটা কেস টু কেস হবে। অপরাধ অনুযায়ী এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। একজন তো অলরেডি এ্যারেস্টেড, আরও একজনের বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ এসেছে। এগুলো যাদের বিরুদ্ধে আসবে তারা পরবর্তী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন পাবেন না, এটা আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি।

তিনি বলেন, এ ধরনের অপকর্মের অভিযোগ যাদের বিরুদ্ধে আছে, তাদের মনোনয়ন দেয়া হবে না। যেখানে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া দরকার দুদককে বলা আছে। দুর্নীতি দমন কমিশন ব্যবস্থা নিতে পারে, যে কারও বিষয়ে।

এসব কাউন্সিলরের মাথার ওপর ছায়া হয়ে যারা ছিল, তাদের ধরা হবে কি না- এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ছায়া তো নয় ছাতা। ছাতাগুলোও খোঁজা হচ্ছে।’

‘ছাতা’দের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া কবে থেকে দৃশ্যমান হবে- জানতে চাইলে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, দৃশ্যমান অলরেডি হচ্ছে। যারা এ্যারেস্ট হয়েছে তারা কি কম গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিল? বড় বড় পদে ছিল। অনেকের বিরুদ্ধে চার্জশীটও হয়েছে। জেলা পর্যায়ের নেতা গত সংসদের এমপির বিরুদ্ধেও দুদকে চার্জশীট হয়েছে। আরও কয়েকটার তদন্ত চলছে।

দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান থেমে গেছে নাকি চলমান আছে- এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা কোন দিনও থামবে না। যতক্ষণ না এটাকে আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারব, টার্গেট এচিভ করতে না পারব; ততক্ষণ পর্যন্ত চলবে।

তিনি আরও বলেন, এবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কাউন্সিলকে সামনে রেখে আমাদের টার্গেট- তৃণমূল পর্যায় থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় পর্যায় পর্যন্ত বিতর্কিতদের বাদ দিয়ে নতুন কমিটি করার। এখন সারাদেশেই তৃণমূলের সম্মেলন হচ্ছে। সব বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের প্রতি নির্দেশনা রয়েছে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী ইনফর্মালিও আমাদের সঙ্গে বসেছেন, পরপর দুবার বলেছেন এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। ‘কোন বিতর্কিত ব্যক্তি যাতে দলের নেতৃত্বে না আসতে পারে।’

চট্টগ্রামে তিন মেট্রোরেল ॥ বন্দরনগরী চট্টগ্রামে মেট্রোরেল চালু করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। প্রধানমন্ত্রী জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এ নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানান ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে নির্দেশ দিয়েছেন- চট্টগ্রামে মেট্রোরেলের (এমআরটি লাইন) প্রকল্পের ফিজিবিলিটি স্ট্যাডি (সম্ভাব্যতা যাচাই) শুরু করার জন্য। তার নির্দেশ অনুযায়ী আমি মন্ত্রণালয়ের সচিব ও মেট্রোরেলের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের বলেছি অবিলম্বে ফিজিবিলিটি স্ট্যাডি শুরু করতে হবে, বন্দরনগরী চট্টগ্রামের জন্য এটা একটা নতুন খবর।

চট্টগ্রামে প্রস্তাবিত মেট্রোরেল প্রকল্পে তিনটি এমআরটি লাইন করার কথা বলা হয়েছে। এর মধ্যে কালুরঘাট থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত এমআরটি লাইন-১ এর দৈর্ঘ্য হবে সাড়ে ২৬ কিলোমিটার (২০টি স্টেশন), সিটি গেট থেকে নিমতলা হয়ে শাহ আমানত সেতুর গোল চত্বর পর্যন্ত লাইন-২ এর দৈর্ঘ্য হবে সাড়ে ১৩ কিলোমিটার (১২টি স্টেশন) এবং অক্সিজেন থেকে ফিরিঙ্গিবাজার ও পাঁচলাইশ থেকে এ কে খান পর্যন্ত লাইন-৩ এর দৈর্ঘ্য হবে সাড়ে ১৪ কিলোমিটার ( স্টেশন ১৫টি)।

তিনটি লাইনের মোট দৈর্ঘ্য হবে সাড়ে ৫৪ কিলোমিটার, স্টেশন থাকবে মোট ৪৭টি। প্রতি কিলোমিটারে প্রায় ১ হাজার ৫৪৫ কোটি টাকা সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে প্রস্তাবে। তবে কালুরঘাট থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত প্রস্তাবিত লাইন স্থাপনে আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার ও নির্মাণাধীন এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েকে ‘প্রতিবন্ধক’ মনে করছে প্রাক-যোগ্যতা সমীক্ষাকারী পরামর্শক প্রতিষ্ঠান।

ওবায়দুল কাদের আরও জানান, ঢাকা সিটির সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে যানজট। এটা বড় দুর্ভাবনারও বিষয়। মেট্রোরেলে এমআরটি লাইন-৬ এর কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে চলে এসেছে। এমআরটি লাইন-৫ ও এমআরটি লাইন-১ এর ফিজিবিলিটি শেষ হয়েছে। এ দু’টি প্রকল্পে ৯১ হাজার কোটি টাকার বেশির ভাগই জাপানের জাইকা ফান্ডের।

এমআরটি লাইন-৫ এ সাড়ে ১৬ কিলোমিটার আন্ডার গ্রাউন্ড রেল থাকবে। আর এমআরটি লাইন-১ এ সাড়ে ১৩ কিলোমিটার আন্ডার গ্রাউন্ড সুবিধা থাকবে। খুব শীঘ্রই আমরা এ দু’টির ফিজিক্যাল ওয়ার্ক শুরু করতে যাচ্ছি। টাকা বরাদ্দ ও অনুমোদন হয়ে গেছে, কাজে নির্মাণ কাজ শুরু করতে আর বেশি দেরি হবে না; আমরা এ বিষয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছি।

ঢাকা ও আশপাশের এলাকার যানজট নিরসন ও পরিবেশ উন্নয়নে আধুনিক গণপরিবহন ব্যবস্থা হিসেবে মাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (এমআরটি) বা মেট্রোরেলের পরিকল্পনা, সার্ভে, ডিজাইন, অর্থায়ন, নির্মাণ, পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ২০১৩ সালের ৩ জুন ডিএমটিসিএল গঠন করা হয়। এর ধারাবাহিকতায় ২০৩০ সালের মধ্যে ছয়টি মেট্রোরেলের সমন্বয়ে একটি শক্তিশালী নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার জন্য পরিকল্পনা নেয় সরকার।

এর মধ্যে এমআরটি-৬ এ উত্তরা থেকে কমলাপুর পর্যন্ত মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ সবচেয়ে বেশি এগিয়েছে। প্রথম পর্যায়ে এই প্রকল্প বাস্তবায়নে ২০২৪ সাল পর্যন্ত সময় ধরা হলেও প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পর তা এগিয়ে আনা হয় বলে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছিলেন। এই প্রকল্পের প্রথম ধাপ উত্তরা থেকে আগারগাঁওয়ে এ বছরের শেষ নাগাদ ট্রেন চালুর আশা প্রকাশ করছেন সরকারের কর্মকর্তারা। দ্বিতীয় ধাপ আগারগাঁও থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ২০২০ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ হলেও তা উদ্বোধন করা হবে ২০২১ সালের ১৬ ডিসেম্বর।

প্রকাশিত : ১৬ অক্টোবর ২০১৯

১৬/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: