১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

ধীরেসুস্থে ফিরতে চান শারাপোভা

প্রকাশিত : ১১ অক্টোবর ২০১৯

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সময়টা ভাল কাটছে না মারিয়া শারাপোভার। ফর্মহীনতা আর ইনজুরি বেশ ভালই ভুগাচ্ছে রাশিয়ান টেনিসের এই গ্ল্যামারগার্লকে। টেনিস কোর্টে সর্বশেষ অংশ নিয়েছিলেন ইউএস ওপেনে। মৌসুমের শেষ গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টেও একেবারে নিষ্প্রভ ছিলেন তিনি। ফ্ল্যাশিং মিডোতে প্রথম রাউন্ড থেকেই ছিটকে যান মারিয়া শারাপোভা। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী সেরেনা উইলিয়ামসের কাছে হারের পর আর কোন প্রতিযোগিতামূলক টুর্নামেন্টে দেখা যায়নি পাঁচটি গ্র্যান্ডস্লামের মালিককে। এরপর লিঞ্জ ওপেনে খেলার কথা থাকলেও চোটের কারণে নাম প্রত্যাহার করে নেন তিনি। তবে ৩২ বছর বয়সী সেরেনা উইলিয়ামস জানালেন ফেরার জন্য কোনরকম তাড়াহুড়ো নেই তার। বরং ধীরে-সুস্থেই কোর্টে ফেরার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন মাশা।

আগামী সপ্তাহে শুরু হবে লুক্সেমবার্গ ওপেন। সবকিছু সঠিকভাবে এগোলে এই টুর্নামেন্টেও খেলতে পারেন শারাপোভা। তার লক্ষ্য মূলত ২০২০। সে জন্যই এখন খুব সতর্কভাবে খেলতে চান রাশিয়ান তারকা। এ প্রসঙ্গে বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের সাবেক নাম্বার ওয়ান তারকা বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমি এখন ট্র্যাকের মধ্যেই আছি। কিন্তু আরও একটু সময় লাগবে। সম্ভবত আগামী সপ্তাহেও খেলতে পারি। তার আগে কাঁধের চোটের পরীক্ষাটা সেরে নিব। তবে কোনরকমের তাড়াহুড়ো নেই আমার। আমার মূল লক্ষ্য সুস্থ থাকা। এমন লক্ষ্যকে সামনে রেখেই এগোচ্ছি। ২০২০ সালে কোর্টে নিয়মিতই সময় দিতে চাই। ২০২০ সালে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে কোর্টে ফেরার জন্যই এখন থেকে কাজ করতে চাই।’

সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে পাঁচটি মেজর শিরোপার দেখা পেয়েছেন শারাপোভা। সর্বশেষ ২০১৪ সালে ফ্রেঞ্চ ওপেনের চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন তিনি। এরপর আর কোন গ্র্যান্ডস্লাম যোগ করতে পারেননি তার নামের পাশে। তবে এই সময়ে অনেক কঠিন পথ অতিক্রম করতে হয়েছে রাশিয়ান টেনিসের এ গ্ল্যামারগার্লকে। ডোপ টেস্টের কারণে টেনিস থেকে যে নির্বাসনেও যেতে হয়েছিল মাশাকে। তবে সব বাধা অতিক্রম করেই আবার কোর্টে ফেরেন শারাপোভা। এ মৌসুমে তার বড় বাধা হয়ে দাঁড়ায় ডান কাঁধের সার্জারি। যে কারণে প্রায় চার মাস কোর্টের বাইরে থাকতে হয় তাকে। তবে শারাপোভা মনে করেন, এগুলোই এ্যাথলেটের জীবন। তার মতে, ‘এ্যাথলেটের জীবন এমন উত্থান-পতনের মধ্য দিয়েই চলে। আরও ভাল করার জন্য মোটিভেশন আমার আছে। আমি জানি, অর্জনের কোন সীমাবদ্ধতা নেই।’

এদিকে শারাপোভার মতো চোটে জর্জরিত এ্যান্ডি মারের জীবনও। গত বছরের শুরুতেই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে কোমরের চোটে পড়েছিলেন গ্রেট ব্রিটেনের এই সফল প্রতিনিধি। অসহ্য যন্ত্রণায় একটা সময় টেনিস ছাড়ার ঘোষণাও দিয়েছিলেন তিনি। তবে অস্ত্রোপচারে টেবিলে বসে সুস্থ হয়ে আবারও চেনা পরিবেশে ফিরতে চাইছেন মারে। এমনটাই জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেন টুর্নামেন্টের পরিচালক ক্রেগ টিলে। গত সপ্তাহে চায়না ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালের পরই মারের মনে হয়েছে তিনি এখন সুস্থ এবং ফিট। যে কারণে আবারও সাবেক বিশ্বের এক নম্বর তারকা গ্র্যান্ডস্লামের মতো টুর্নামেন্ট দিয়েই চেনা ছন্দে ফিরতে চাইছেন। সেটা সম্ভবত আগামী বছরের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের মধ্যে দিয়েই হতে পারে।

এমনটাই জানিয়েছেন ক্রেগ টিলে, ‘বছরের প্রথম গ্র্যান্ডস্লামে খেলতে পারেন এ্যান্ডি। আমি তার প্রতিনিধিকে ফোন করেছিলাম। সে খুব দ্রুতই অস্ট্রেলিয়া আসতে পারে।’

ক্রেগ আরও বলেন, ‘মারে টেনিস কোর্টে ফিরতে তৈরি। এর মধ্যেই গত বছরের সব কষ্ট ভুলে গেছেন তিনি। এটি সেই সময়ের মধ্যে দুর্দান্ত যে তার শল্য চিকিৎসা হয়েছিল এবং সত্যিই ভালভাবে প্রত্যাবর্তন হয়েছে।’ চোটের কারণে ১৫ বছরের টেনিস ক্যারিয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মারের। এর মধ্যেই অবশ্য এ ব্রিটিশ তারকা ২০১৩ সালে প্রথমবারের মতো উইম্বলডন শিরোপা জেতেন। ক্যারিয়ারে এখন পর্যন্ত সাবেক বিশ্বের এক নম্বর এ তারকা নিজের করে নিয়েছেন তিনটি গ্র্যান্ডস্লাম শিরোপা।

প্রকাশিত : ১১ অক্টোবর ২০১৯

১১/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



শীর্ষ সংবাদ: