২২ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

এসকোয়্যার নিটের ৫২ লাখ শেয়ার বিক্রিযোগ্য

প্রকাশিত : ১১ অক্টোবর ২০১৯

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত এসকোয়্যার নিট কম্পোজিটের ৫২ লাখ ৮ হাজার শেয়ার বিক্রিযোগ্য (লক ফ্রি) হয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও কোম্পানির প্রসপেক্টাস সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এসকোয়্যার নিটের বিডিংয়ে যোগ্য বিনিয়োগকারীরা ২ কোটি ৮ লাখ ৩৩ হাজার ৩৩২টি শেয়ার ক্রয় করেন। এর মধ্যে ৫০ শতাংশ বা ১ কোটি ৪ লাখ ১৬ হাজার ৬৬৭টি শেয়ার লেনদেনের প্রথমদিনই বিক্রিযোগ্য ছিল। বাকি ৫০ শতাংশের মধ্যে ২৫ শতাংশ বা ৫২ লাখ ৮ হাজার ৩৩৩ শেয়ার আগামী ৯ অক্টোবর বিক্রিযোগ্য হবে।

পাবলিক ইস্যু রুলস অনুযায়ী, উদ্যোক্তা/পরিচালক ও ১০ শতাংশ বা তার বেশি শেয়ার ধারণকারীদের জন্য ৩ বছর লক ইন প্রযোজ্য হবে। এছাড়া উদ্যোক্তা/পরিচালক ও ১০ শতাংশ বা তার বেশি শেয়ার ধারণকারীদের হস্তান্তরকৃত শেয়ারে লক ইন ৩ বছর, আইপিও অনুমোদনের ৪ বছর পূর্বে ইস্যুকৃত শেয়ারে ১ বছর, অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের ক্ষেত্রে ১ বছর ও বাকি অন্যসব শেয়ারে ২ বছর লক ইন রাখা হবে। আর যোগ্য বিনিয়োগকারীদের মোট শেয়ারের ৫০ শতাংশ লক ইন থাকে। এর মধ্যে ২৫ শতাংশ শেয়ারে ৬ মাস ও বাকি ২৫ শতাংশ শেয়ারে ৯ মাস লক ইন থাকে। যা কোম্পানির লেনদেনের প্রথম দিন থেকে হিসাবযোগ্য।

এসকোয়্যার নিটের বিক্রি অযোগ্য থাকা ৫০ শতাংশের মধ্যে বাকি ২৫ শতাংশ বা ৫২ লাখ ৮ হাজার ৩৩৩ শেয়ার ৯ জানুয়ারি বিক্রিযোগ্য হবে।

উল্লেখ্য, বিডিংয়ে এসকোয়্যার নিটের কাট-অফ প্রাইস নির্ধারণ হয়েছিল ৪৫ টাকা। এই দরে যোগ্য বিনিয়োগকারীরা বা বিডাররা শেয়ার কিনেছিল। আর সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ ডিসকাউন্টে ৪০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিল। যে শেয়ারটি বুধবার লেনদেন শেষে দাঁড়িয়েছে ৩০.৬০ টাকায়। শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত এসকোয়্যার নিট কম্পোজিটের ৫২ লাখ ৮ হাজার শেয়ার বিক্রিযোগ্য (লক ফ্রি) হয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও কোম্পানির প্রসপেক্টাস সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এসকোয়্যার নিটের বিডিংয়ে যোগ্য বিনিয়োগকারীরা ২ কোটি ৮ লাখ ৩৩ হাজার ৩৩২টি শেয়ার ক্রয় করেন। এর মধ্যে ৫০ শতাংশ বা ১ কোটি ৪ লাখ ১৬ হাজার ৬৬৭টি শেয়ার লেনদেনের প্রথমদিনেই বিক্রিযোগ্য ছিল। বাকি ৫০ শতাংশের মধ্যে ২৫ শতাংশ বা ৫২ লাখ ৮ হাজার ৩৩৩ শেয়ার বুধবার বিক্রিযোগ্য হয়। পাবলিক ইস্যু রুলস অনুযায়ী, উদ্যোক্তা/পরিচালক ও ১০ শতাংশ বা তার বেশি শেয়ার ধারণকারীদের জন্য ৩ বছর লক ইন প্রযোজ্য হয়। এছাড়া উদ্যোক্তা/পরিচালক ও ১০ শতাংশ বা তার বেশি শেয়ার ধারণকারীদের হস্তান্তরকৃত শেয়ারে লক ইন ৩ বছর, আইপিও অনুমোদনের ৪ বছর পূর্বে ইস্যুকৃত শেয়ারে ১ বছর, অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের ক্ষেত্রে ১ বছর ও বাকি অন্যসব শেয়ারে ২ বছর লক ইন রাখা হবে। আর যোগ্য বিনিয়োগকারীদের মোট শেয়ারের ৫০ শতাংশ লক ইন থাকে। এরমধ্যে ২৫ শতাংশ শেয়ারে ৬ মাস ও বাকি ২৫ শতাংশ শেয়ারে ৯ মাস লক ইন থাকে। যা কোম্পানির লেনদেনের প্রথম দিন থেকে হিসাবযোগ্য।

এসকোয়্যার নিটের বিক্রি অযোগ্য থাকা ৫০ শতাংশের মধ্যে বাকি ২৫ শতাংশ বা ৫২ লাখ ৮ হাজার ৩৩৩ শেয়ার ৯ জানুয়ারি বিক্রিযোগ্য হবে।

উল্লেখ্য, বিডিংয়ে এসকোয়্যার নিটের কাট-অফ প্রাইস নির্ধারণ হয়েছিল ৪৫ টাকা। এই দরে যোগ্য বিনিয়োগকারীরা বা বিডাররা শেয়ার কিনেছিল। আর সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ ডিসকাউন্টে ৪০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিল।

প্রকাশিত : ১১ অক্টোবর ২০১৯

১১/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: