১৯ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

স্বাগতিক ভুটানকে হারিয়ে শুভসূচনা বাংলাদেশের

প্রকাশিত : ৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:৪০ পি. এম.
স্বাগতিক ভুটানকে হারিয়ে শুভসূচনা বাংলাদেশের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বুধবার সন্ধ্যায় থিম্পুর চাংলিমিথান স্টেডিয়ামে যখন খেলা শুরু হয়, তখন তাপমাত্রা ছিল ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাগতিক-প্রতিপক্ষর মতো ঠাণ্ডার সঙ্গেও লড়তে হয়েছে। শেষ পর্যন্ত লড়াইয়ে জয়ী হয়েছে বাংলাদেশের কিশোরী ফুটবলারই। ভুটানকে ২-০ গোলে হারিয়ে সাফ অনুর্ধ-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে শুভসূচনা করলো বাংলাদেশ। খেলার প্রথমার্ধেই সবগুলো গোল করে লাল-সবুজ বাহিনী।

এর আগে একই ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত দিনের প্রথম ম্যাচে ভারত ৪-১ গোলে হারায় নেপালকে। অঅগামী ১১ অক্টোবর বেলা ৩টায় নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে নেপালকে মোকাবেলা করবে এই আসরে ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ।

জেতার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিল বাংলাদেশ দল। শুরু থেকে ভুটানকে চেপে ধরে তারা। আক্রমণও শাণায় বেশি। বলের নিয়ন্ত্রণও বেশি ছিল তাদেরই।

প্রথম গোল পেতে ২২ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যাদের। ভুটানের ডি-বক্সের সামনে বল পেয়ে রেহেনা আক্তার ব্যাকপাস দেয় সতীর্থ ফরোয়ার্ড শাহেদা আক্তার রিপাকে। সেখান থেকেই ডান পায়ের জোরালো-দুর্দান্ত ভলিতে ভুটানের গোলরক্ষক নরবু জাংমোকে বোকা বানিয়ে জালে বল পাঠিয়ে উল্লাসে ফেটে পড়ে রিপা (১-০)।

৩১ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে বাংলাদেশ। বা প্রান্ত দিয়ে ফরোয়ার্ড রোজিনা আক্তার বল নিয়ে ঢোকার চেষ্টা করলে ভুটানের এক ডিফেন্ডার বাধা হয়ে দাঁড়ায়। রোজিনা তখন সতীর্থ রিপার সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান পাস খেলে বল নিয়ে ঢুকে পড়ে ভুটানের বক্সের ভেতর। ভুটানের দুই ডিফেন্ডার পেছনে থেকে প্রাণপণে বাধা দেয়ার চেষ্টা করে। এদিকে বিপদ বুঝে সামনে এগিয়ে আসে ভুটানি গোলরক্ষকও। কিন্তু লাভ হয়নি। রোজিনার বা পায়ের প্লেসিং শট জাল কাঁপায় ভুটানের (২-০)।

এই স্কোরলাইনের বিরতিতে যায় দু’দল। দ্বিতীয়ার্ধে বাংলাদেশ আরও কিছু আক্রমণ করলেও আর কোন গোল করতে পারেনি। ফলে ২-০ গোলের জয় নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাদের।

ভুটানের কাছে এর আগে শুধু এই আসর নয়, কোন পর্যায়ের ফুটবলেই কখনই হারেনি ছোটনের শিষ্যারা। এই আসরে ২০১৮ সালের সেমিতে ভুটানকে ৫-০ গোলে হারিয়েছিল বাংলাদেশের কিশোরীরা। এছাড়া ২০১৭ সালের আসরে লিগ পর্বে হারিয়েছিল ৩-০ গোলে।

বয়সের কারণে অতীত সাফল্যের কারিগর বেশিরভাগ ফুটবলারই এবারের বাংলাদেশ দলে নেই। বর্তমান দলের ২৩ ফুটবলারের ১৪ জনই নতুন। তাই সাফের শিরোপা পুনরুদ্ধারের বড় চালেঞ্জ কোচ ছোটনের সামনে।

২০১৭ সালের শিরোপাধারী বাংলাদেশ। যদিও দু’বছর আগে নিজেদের ঘরে শিরোপাজয়ী দলটির বেশিরভাগ ফুটবলারই নেই এই দলে। কিন্তু কোচ ছোটনের কঠোর পরিশ্রমের ফসল এবারের সাফ দল। সুব্রত কাপ, জেএফএ অ-১৪ কাপ, ইউনিসেফ অ-১৬ ফুটবল এবং বঙ্গমাতা স্কুল ফুটবল আসর থেকে বেছে বেছে দক্ষ-সম্ভাবনাময়ী ফুটবলারদের দলে নিয়েছেন ছোটন। দলের ৯ জনের এর আগে সাফে খেলার অভিজ্ঞতা আছে। ৭ জন খেলেছে সুব্রত কাপে।

প্রকাশিত : ৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:৪০ পি. এম.

০৯/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলা



শীর্ষ সংবাদ: