১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

স্বাগতিক ভুটানকে হারিয়ে শুভসূচনা করতে চায় বাংলাদেশ

প্রকাশিত : ৮ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:২০ পি. এম.
স্বাগতিক ভুটানকে হারিয়ে শুভসূচনা করতে চায় বাংলাদেশ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শিরোপা জিততে হলে পেরুতে হবে চারটি ধাপ। তারই প্রথমটি কাল বুধবার। প্রথম ধাপ সাবলীলভাবেই পেরুতে চায় তারা। কোন হোঁচট খেতে চায় না মোটেও। মুখ থুবড়ে পড়ে যাবারও কোন ইচ্ছে নেই। মোট কথা প্রথম পরীক্ষাতেই ভালভাবে পাশ করে করতে চায় শুভসূচনা। বলছি বাংলার বাঘিনীদের কথা। সাফ অনুর্ধ-১৫ নারী চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপা পুনরুদ্ধারের মিশনে বুধবার থেকে ভুটানের থিম্পুর চাংলিমিথান স্টেডিয়ামের মাঠে নামছে তারা। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টায় তারা মোকাবেলা করবে স্বাগতিক ভুটানকে। এর আগে দুপুর ৩টায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারত বনাম নেপালের ম্যাচ দিয়ে উদ্বোধন হবে এবারের তৃতীয় আসর।

ম্যাচ নিয়ে জনকণ্ঠের সঙ্গে ফেসবুকে আলাপ হয় লাল-সবুজ বাহিনীর দ্রোণাচার্য্য গোলাম রব্বানী ছোটনের সঙ্গে। তিনি জানান-মঙ্গলবার দলের অনুশীলন ও প্রস্তুতি ভালমতোই হয়েছে। দলের ফুটবলাররা সবাই সুস্থ। কারোও কোন ইনজুরি নেই।

ভুটানকে হারানোর ব্যাপারে কতটা আশাবাদী বা আত্মবিশ্বাসী আপনারা? এই প্রশ্নের জবাবে ছোটন বলেন, ‘ভুটান ভাল দল। আমরা তাদের সমীহ করি। তবে আমরা তাদের চেয়েও ভাল দল। অবশ্যই আমরা জয়ের জন্যই খেলবো। এ ব্যাপারে আমরা যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী।’

ছোটন আরও যোগ করেন, ‘অবশ্যই আমরা আক্রমণাত্নক ফুটবলই খেলবো।’

ভুটানের কাছে এর আগে শুধু এই আসর নয়, কোন পর্যায়ের ফুটবলেই কখনই হারেনি ছোটনের শিষ্যারা। এই আসরে ২০১৮ সালের সেমিতে ভুটানকে ৫-০ গোলে হারিয়েছিল বাংলাদেশের কিশোরীরা। এছাড়া ২০১৭ সালের আসরে লিগ পর্বে হারিয়েছিল ৩-০ গোলে। তার মানে দুই ম্যাচে ভুটানের জালে ৮ বার বল পাঠিয়ে তাদের কাছ থেকে এখনও কোন গোল হজম করেনি বাংলাদেশ। আজও সেটার ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চাইবে তারা, সেটাই স্বাভাবিক।

তবে তাদের এই পরিকল্পনায় বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে প্রচণ্ড শীত। থিম্পুতে তাপমাত্রা এখন ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বভাবতই প্রশ্ন চলে আসে-শামসুন্নাহার, রূপনারা কি এত শীতের মধ্যে স্বাভাবিকভাবে খেলতে পারবে? তিার ওপর দলে এবার ১৪ নতুন খেলোয়াড় আছে। এমন আবহাওয়ায় ওদের মানিয়ে নিতে সমস্যা হবে না? তাদের কি মাঠে নেমে পড়ার মতো ফুল হাতা জার্সি ও হাতমোজা আছে? এ প্রসঙ্গে ছোটনের ভাষ্য, ‘এর আগেও ঠিক এমন আবহাওয়ার মধ্যেই আমাদের মেয়েরা নেপাল ও ভুটানে খেলেছে। কাজেই আশা করি এ নিয়ে কোন সমস্যা হবে না।’

বয়সের কারণে অতীত সাফল্যের কারিগর বেশিরভাগ ফুটবলারই এবারের বাংলাদেশ দলে নেই। বর্তমান দলের ২৩ ফুটবলারের ১৪ জনই নতুন। তাই সাফের শিরোপা পুনরুদ্ধারের বড় চালেঞ্জ কোচ ছোটনের সামনে।

অতীত পরিসংখ্যানে বাংলাদেশই এগিয়ে ভুটান থেকে। যদিও দু’বছর আগে নিজেদের ঘরে শিরোপাজয়ী দলটির বেশিরভাগ ফুটবলারই নেই এই দলে। কিন্তু কোচ ছোটনের কঠোর পরিশ্রমের ফসল এবারের সাফ দল। সুব্রত কাপ, জেএফএ অ-১৪ কাপ, ইউনিসেফ অ-১৬ ফুটবল এবং বঙ্গমাতা স্কুল ফুটবলআসর থেকে বেছে বেছে দক্ষ-সম্ভাবনাময়ী ফুটবলারদের দলে নিয়েছেন ছোটন। দলের ৯ জনের এর আগে সাফে খেলার অভিজ্ঞতা আছে। ৭ জন খেলেছে সুব্রত কাপে। নতুন আর পুরাতনের মিশেলে গড়া এই দলটিকে নিয়ে সাফের শিরোপা পুনরুদ্ধারের প্রত্যাশা কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের,‘এই মেয়েরা নিবির অনুশীলনের মধ্যেই ছিলো। নতুন ও পুরাতনের মিশ্রনে হয়েছে দলটি। আশা করি তারা আমাদের হতাশ করবে না। আমাদের লক্ষ্য শিরোপা জেতা। টুর্নামেন্টের সব দলই ভালো। সবার উপর শ্রদ্ধা রেখেই আমরা জয়ের জন্য খেলতে নামবো।’

গত আসরে অল্পের জন্য শিরোপা ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ। হয়েছিল রানার্সআপ। তবে এ আসরে সেই হতাশা থেকে বের হয়ে আসার লক্ষ্য নিয়ে দলীয় অধিনায়ক শামসুন্নাহার জুনিয়রের অভিমত, ‘গত আসরে ভালো খেলতে পারিনি। এবার আমাদের লক্ষ্য শিরোপা জেতা। সবাই দোয়া করবেন যেন ভাল খেলতে পারি।’

প্রকাশিত : ৮ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:২০ পি. এম.

০৮/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলা



শীর্ষ সংবাদ: