২২ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

তহুরা ম্যাজিকের পরেও বাংলাদেশের আক্ষেপের ড্র!

প্রকাশিত : ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৭:৪৯ পি. এম.
 তহুরা ম্যাজিকের পরেও বাংলাদেশের আক্ষেপের ড্র!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সেই একই মাঠ, সেই একই প্রতিপক্ষ, সেই একই আসর। দুই বছর আগের সেই দুঃসহ স্মৃতি আবার যেন ফিরে এসেছিল শনিবার। তবে অল্পের জন্য সেটা আর হয়নি। ফলে অল্পের জন্য বেঁচে গেল বাংলাদেশ দল। ড্র নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হলো তাদের। ‘এএফসি অ-১৬ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ’-এ গ্রুপ ‘এ’ তে থাইল্যান্ডের আইপিই চনবুরি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করে আসর শেষ করেছে লাল-সবুজ বাহিনী। তবে এগিয়েও থেকে ড্র করায় আক্ষেপটা রয়েই গেল তাদের। জিতলে এই আসরে প্রথম ও স্বান্তনার জয়ের স্বাদ পেতে পারতো গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যারা। আগের ম্যাচে হেরে বিদায়ঘণ্টা বেজে গিয়েছে যে দলের, সে দলের কাছে এই ড্র যেন অনেকটা ‘নাই মামার চেয়ে কানা মামা’র মতোই কিঞ্চিৎ স্বস্তির! তাছাড়া ২০১৭ আসরে ৩ ম্যাচ খেলে সব ম্যাচে হেরে পয়েন্টশূন্য থাকার তুলনায় এবার সমান ম্যাচে ২ হার ও ১ ড্রয়ে ১ পয়েন্ট পাওয়াটাও তো মন্দ নয়।

এই আসরে ২০১৭ সালে এই অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধেই যা একটু ভাল খেলে জয়ের আশা জাগিয়েছিল বাংলাদেশ। ৭৭ মিনিট পর্যন্ত ২-১ গোলে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত দুভার্গ্যজনকভাবে হেরে গিয়েছিল ৩-২ গোলে! ফরোয়ার্ড কৃষ্ণা রাণী সরকার লাল কার্ড পেলে কমে যায় বাংলাদেশের শক্তি। এই সুযোগে বাকি ১০ মিনিটে দুই গোল করে ম্যাচ জিতে যায় অস্ট্রেলিয়া। ফলে আক্ষেপের অনলে দগ্ধ হতে হয়েছিল মনিকা-তহুরাদের।

কি আশ্চর্য, শনিবারও ঠিকই একই পরিস্থিতিতে পড়তে যাচ্ছিল বাংলাদেশ। ৭৭ মিনিট পর্যন্ত এখানেও ২-১ গোলে এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ। এর পরেই আচমকা গোল করে সমতা এনে ফেলে লেডিস সকারুস টিম। শুধু তাই নয়, আরেকটু পরেই রাইটব্যাক আনাই মগিনি ফাউল করে হলুদ কার্ড পেলে ভয়ের শীতল স্রোত বয়ে যায় বাংলাদেশ শিবিরে। এই ফাঁকে অস্ট্রেলিয়াও প্রচণ্ড চাপ সৃষ্টি করে বাংলাদেশের গোলমুখে। তবে ভাগ্য ভালো বাংলাদেশের, শেষ পর্যন্ত আর কোন গোল হজম করেনি তারা। এড়ায় হার।

তবে এই ম্যাচে জিতলে না পারলেও কোন ক্ষতি হয়নি অস্ট্রেলিয়ার। কেননা একই সময়ে অনুষ্ঠিত অপর ভেন্যু চনবুরিতে শক্তিশালী জাপান ৮-০ গোলে স্বাগতিক থাইল্যান্ডকে হারালে গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে সেমিফাইনাল খেলা নিশ্চিত হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার। ৩ ম্যাচে জাপানের পয়েন্ট ৭, সমান ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার পয়েন্ট ৫। এছাড়া থাইল্যান্ড সংগ্রহ করে ৩ পয়েন্ট।

ম্যাচ শেষে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা। সেটা সেমিতে ওঠার আনন্দে, নাকি হারতে হারতে ড্র করার আনন্দে, নাকি তাদের চেয়ে দুর্বল প্রতিপক্ষকে গোলবন্যায় ভাসিয়ে হারাতে না পারার কষ্টে ... সেটা ঠিক বোঝা যায়নি! উল্লেখ্য, বিশ্ব নারী ফুটবলে যেখানে অস্ট্রেলিয়ার ফিফা র‌্যাঙ্কিং ৮, সেখানে যোজন ব্যবধানে পিছিয়ে বাংলাদেশ। তাদের র‌্যাঙ্কিং ১৩০!

ম্যাচের ২১ মিনিটে ফরোয়ার্ড তহুরা খাতুনের চমৎকার গোলে এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। ঋতুপর্ণা চাকমার লম্বা পাস ধরে প্রায় মাঝমাঠ থেকে বল নিয়ে আগুয়ান গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে বা পায়ের শটে বল পাঠায় জালে। প্রথমার্ধ শেষ হয় ১-০ গোলে। ম্যাচের ৭৭ মিনিটে অস্ট্রেলিয়ার ক্লাউডিয়া গোল করে সমতা ফেরায়। এরপর ৭৮ মিনিটে আবারও গোল করে তহুরা খাতুন। এবারও আগুয়ান গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে গড়ানো প্লেসিং শটে গোল। তবে এবার ডান পায়ে। দুই মিনিট পর ডি-বক্সের বাইরে থেকে আচমকা ডান পায়ের উঁচু শটে গোলরক্ষক রূপনা চাকমাকে বোকা বানিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে সমতায় ফেরায় জয়েসে।

এই ড্র দিয়ে এএফসি অনুর্ধ-১৬ নারী চ্যাম্পিয়নশিপ শেষ করলো বাংলাদেশ। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে থাইল্যান্ডের কাছে ১-০ হার দিয়ে শুরু। এরপর জাপানের কাছে ৯-০ গোলে হেরে যায় বাংলাদেশ।

প্রকাশিত : ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৭:৪৯ পি. এম.

২১/০৯/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: