২০ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

হিলি স্থলবন্দরে পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ৮ থেকে ৯ টাকা

প্রকাশিত : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৩৩ পি. এম.
  হিলি স্থলবন্দরে পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ৮ থেকে ৯ টাকা

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে একদিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৮-৯ টাকা বেড়েছে। একদিন আগেও প্রতিকেজি পেঁয়াজ ৪৮-৫২ টাকায় বিক্রি হলেও এখন বিক্রি হচ্ছে ৫৭-৬০ টাকায়। আর পাইকারিতে দাম বাড়ার প্রভাব খুচরা বাজারেও পড়েছে। বর্তমানে প্রতি কেজি ভারতীয় পেঁয়াজ ৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে আর দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০-৯০ টাকা কেজি দরে। কয়েকদিন আগেও ভারতীয় পেঁয়াজ ৫০ টাকা এবং দেশি পেঁয়াজ ৬০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। আগামী ২০/২৫ দিনের মধ্যে ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে পেঁয়াজ উঠতে শুরু হলে সরবরাহ বাড়ার সাথে দাম কমে যাবে বলে জানান হিলি স্থলবন্দর আমদানি রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশীদ।

পেঁয়াজ সরবরাহকারী সবুজ হোসেন জানান, ভারত আমদানি মূল্য বাড়িয়ে দেওয়ায় পেয়াজ আমদানী বর্তমানে তা কমে ১২-১৩ ট্রাকে দাঁড়িয়েছে। হিলির বাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা রমিজ উদ্দিন, সুফিয়ান, রাজ্জাকসহ আও অনেকে বলেন, প্র্রতিদিন যেভাবে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে, তাতে সাধারণ মানুষদের পেঁয়াজ খাওয়া ছেড়ে দিতে হবে। বাজারে কোন নিয়ন্ত্রণ নেই। এমন অবস্থায় বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করা উচিত।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশীদ জানান, ভারতে বন্যার কারণে উৎপাদন কম হওয়ায় সেদেশেই পেঁয়াজের সংকট দেখা দিয়েছে। সেখানেও দাম বেড়েছে। ফলে আমাদের চাহিদা মতো পেঁয়াজ রফতানি করতে পারছে না। পেঁয়াজ আমদানি ও চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম হওয়ায় দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে। এছাড়াও ২ অক্টোবর থেকে দুর্গাপূজা উপলক্ষে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ১০ দিন আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকবে। সেসময় পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ থাকবে। এতে করেও পেঁয়াজের দাম বাড়তে পারে। তবে আশা করা যায়, আগামী ২০/২৫ দিনের মধ্যে ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে পেঁয়াজ উঠতে শুরু হলে সরবরাহ বাড়বে। তখন দামও কমে যাবে।

প্রকাশিত : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৩৩ পি. এম.

২০/০৯/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: