১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

রোমান সানার মায়ের চিকিৎসা খরচ বহন করবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯
  • স্বর্ণজয়ী আরচার গণভবনে

রুমেল খান ॥ ‘আমার স্বপ্নপূরণ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা পেয়ে আমি আবেগে আপ্লুত হয়েছি। ভীষণ খুশি। কি বলব, ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। আমি বাক্যহারা।’ কথাগুলো রোমান সানার, গত ১৩ সেপ্টেম্বর ফিলিপিন্সের মাটিতে এশিয়া কাপ ওয়ার্ল্ড আরচারি স্টেজ-৩ এ রিকার্ভ পুরুষ এককের ফাইনালে স্বর্ণপদক জেতেন রোমান। নিঃসন্দেহে তার এই অর্জন বাংলাদেশের ক্রীড়া-ইতিহাসের অবিস্মরণীয় এক সাফল্য। দেশে ফিরেই রোমান আক্ষেপ করেছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সামান্য জয়ে তাদের অভিনন্দনের জোয়ারে ভাসিয়ে দেয়া হয়, অর্থ-গাড়ি-বাড়ি-জমি দেয়া হয়; অথচ আরচারিতে তিনি এর চেয়েও বড় সাফল্য কুড়িয়ে আনার পরও সেভাবে কারোর অভিনন্দন-প্রশংসা পাননি। ২৪ বছর বয়সী রোমানের এই আক্ষেপ ছুঁয়ে যায় ক্রীড়াপ্রেমীদেরও। তারা এ নিয়ে সরব হন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

আন্তর্জাতিক আরচারিতে অষ্টমবারের মতো স্বর্ণজয়ী রোমানের সেই আক্ষেপ দূর হয়েছে মঙ্গলবার রাতে। ক্রীড়াপ্রেমী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে ডেকে পাঠান এই তারকা তীরন্দাজকে। শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি রোমানকে আদর করেছেন, করিয়েছেন মিষ্টিমুখ। শুধু তাই নই, গভীর মনোযোগ দিয়ে শুনেছেন রোমানের তীরবাজ হওয়ার কাহিনী। সবশেষে মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান রোমানের আর্থিক সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। হৃদরোগ সমস্যায় ভোগা রোমানের মায়ের চিকিৎসার ব্যাপারেও দিয়েছেন আশ^াস।

গণভবনে রোমানের সঙ্গে গিয়েছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, আরচারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজিব উদ্দিন আহমেদ চপল, সভাপতি লে. জেনারেল মইনুল ইসলাম (অব), আরচারি কোচ মার্টিন ফ্রেডারিক।

জনকণ্ঠকে আরচারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক চপল জানান, ‘প্রধানমন্ত্রী তার ব্যক্তিগত সহকারীর মাধ্যমে আমাদের মেসেজ দেন। যাওয়ার পর রোমানের সঙ্গে অনেকক্ষণ গল্প করেন তিনি। কিভাবে আরচারিতে আসলো, উঠে আসার গল্পটা শোনেন তিনি। এরপর ওর হাতে চেক দিয়েছেন। আর্থিক অঙ্কটা জানানো হয়নি দেবে। ২০২৩ সালে যুব ওয়ার্ল্ডকাপ কক্সবাজারে আয়োজন করার অনুমতি চাইলে তিনি সানন্দেই তা মঞ্জুর করেছেন। আচারির অন্যান্য সুযোগ সুবিধা দিতে চেয়েছেন তিনি।’

গত জুনে নেদারল্যান্ডসে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ আরচারিতে ব্রোঞ্জপদক জিতে আলোচনায় এসেছিলেন। এবার রিকার্ভ পুরুষ এককের মতোই আরও দু’টি ইভেন্টে বাংলাদেশকে রুপা ও ব্রোঞ্জ জিততে নেতৃত্ব দেন তিনি। রিকার্ভ পুরুষ দলগত ইভেন্টে রোমান সানা, মোহাম্মদ তামিমুল ইসলাম ও মোহাম্মদ হাকিম আহমেদ রুবেলের সমন্বয়ে বাংলাদেশ দল ফাইনালে চীনের কাছে ৫-৩ সেট পয়েন্টে হারলেও রুপা জেতে। আর রিকার্ভ মিশ্র দলগত ইভেন্টে বিউটিকে সঙ্গে নিয়ে ব্রোঞ্জ পদক ম্যাচে ৫-১ সেটে চাইনিজ তাইপেকে হারায় বাংলাদেশ।

আন্তর্জাতিক আরচারিতে বাংলাদেশী হিসেবে সবচেয়ে বেশি একক ৮টি স্বর্ণপদকধারী আরচার এখন রোমানই। ২০১৬ সালের অলিম্পিকে গলফার সিদ্দিকুর রহমানের পর এবার দ্বিতীয় বাংলাদেশী ক্রীড়াবিদ হিসেবে সরাসরি অলিম্পিক গেমসে খেলার যোগ্যতা অর্জন করার কৃতিত্ব দেখান রোমান। হল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় বিশ্ব আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে উঠে এই আরচার চমকপ্রদ সাফল্য কুড়িয়ে নেন। এর ফলে তিনি অর্জন করেন ২০২০ সালে টোকিও অলিম্পিকে খেলার যোগ্যতা।

২০১৩, ২০১৪ এবং ২০১৬ ... টানা তিন বছর জাতীয় আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপে স্বর্ণ জেতার কৃতিত্ব আছে সুদর্শন আরচার রোমানের। রুমানের আগে ও পরে এমন কৃতিত্ব আর কোন আরচারের নেই। পাঠকের জ্ঞাতার্থে জানাই, ২০১৫ সালে কিন্তু জাতীয় আরচারির আসর অনুষ্ঠিত হয়নি। হলে হয়তো ওই বছরও সোনা জিততেন সানা! তার আরেকটি কৃতিত্ব হলোÑ ২০১৪ আসরে রোমান ৩৩৫ পয়েন্ট স্কোর করে ভেঙ্গে দেন ইমদাদুল হক মিলনের ২০১০ সালে গড়া ৩৩৩ পয়েন্টের জাতীয় রেকর্ড। তার এই রেকর্ড এখনও অক্ষুণ্ণ।

প্রকাশিত : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

১৮/০৯/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: