১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

গ্যালারি জুমে শুরু চিত্র প্রদর্শনী ‘অনুষঙ্গ’

প্রকাশিত : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯
গ্যালারি জুমে শুরু চিত্র প্রদর্শনী ‘অনুষঙ্গ’
  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গ্যালারিতে প্রবেশ করেই চোখে পড়বে ময়ূরের অবয়ব, আবক্ষ মানুষের ছবি, বেড়াল, তরুণীর হাতে পাখির ছবি, বন্যাপ্লাবিত গ্রামের ঘর-বাড়ি, হাতির অবয়বসহ বৃক্ষরাজি। কালির তরল প্রবাহে সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্ম তুলির আঁচড়ে চিত্রায়িত এসব চিত্রকর্ম নিয়ে রাজধানীর আলিয়ঁস ফ্রঁসেসের গ্যালারি জুমে শুরু হয়েছে ‘অনুষঙ্গ’ শীর্ষক দলীয় চিত্র প্রদর্শনী। প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী শিল্পীরা হলেন-নাসরিন জাহান, সাজিয়া রহমান সন্ধ্যা, জাকিয়া আফরোজ, রাজিন মুসতাফা দীপ্র, প্রীতম পিতু, বাপ্পি লিংকন রায়, প্রদীপ সাহা, শারমিন আকতার লীনা, নবরাজ রায়, নাবিলা নবী, পারভেজ হাসান রিগান, কুন্তল বড়াই, এস এম এহসান, ইকবাল বাহার চৌধুরী ও মাহাবুব আলম।

মঙ্গলবার বিকেলে ১২ দিনব্যাপী এ প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিল্পী হাসান মাহমুদ ও গ্যালারি শিল্পাঙ্গনের পরিচালক রুমি নোমান।

প্রদর্শনীতে মাহাবুব আলম জল রঙে আঁকা তার শিল্পকর্মে তুলে ধরেছেন বৃক্ষরাজি ও ভূপ্রকৃতির দৃশ্য। ইকবাল বাহার চৌধুরীর এ্যাক্রিলিক শিল্পকর্মগুলো আক্ষরিক ও ভাবার্থে এক ঘূর্ণিকেই দৃশ্যমান করে তোলে। তার বিমূর্ত হস্তশিল্প যেন নিশ্চুপ প্যালেট এর এক একটা গল্পের বয়ান।

এস এম এহসানের কোলাগ্রাফগুলো বিন্যাসিত অকপট এবং বক্তব্যসমৃদ্ধ। কুন্তল বড়াইয়ের এ্যাপ্রোচ যেন একটু বিশেষভাবে ধ্রুপদী অথচ প্রান্তসীমায় ঝুলন্ত। যেন তার কাজ নিচু ও উচ্চ মাত্রার প্রকাশবাদী রঙের গোলোক ধাঁধা পাকিয়ে তুলেছে। যেন ইচ্ছে করলেই এক জাদুর ঘূর্ণিতে তারা বহির্বাস্তবতায় কায়াময় হয়ে উঠতে পারে।

পারভেজ হাসান রিগ্যানের ফর্মে রয়েছে বেশ রূপকধর্মিতা এবং তাতে যে রং মূর্ত হয়ে উঠেছে তাও বেশ অনেকটা ঝলমলে এবং ¯িœগ্ধ। হাতেবোনা সুচিশিল্প এবং পশমী গেরোর বুননে নাবিলা নবী এনেছেন ট্যাপেস্ট্রির এক সংগ্রহ, যার শিল্পরূপ প্রতিফলিত করে প্রাকৃতিক উপাদানসমূহ। যেমন লাল গোলাপ এবং ফর্মেও সেগুলো বলিষ্ঠ ও মনোমুগ্ধকর।

নবরাজ রায় এর ফর্মও বর্ণনা করে সেই রঙিন তৃণভূমি, যেথা প্রাণী আর পাখি এক হয়ে মিশে গেছে। এ্যাক্রিলিক মাধ্যমের ব্যবহারে শারমিন আকতার লীনা এঁকেছেন প্রতিনিধিত্বমূলক অবয়ব। যেমন গভীর শ্যামলিমা ও পাতার মোটিফের মাঝে কোন তরুণীর হাতে অলংকৃত পাখি। প্রদীপ সাহার শিল্পকর্মে পাওয়া যায় এক ধোঁয়াশার আবরণ, যার আঁড়ালে হয়তো উঁকি দেয় পাহাড়ের ওপর কোন কুঁড়েঘর অথবা প্রকৃতি ও মানবসৃষ্ট স্থাপনার সুখস্থিত মিথস্ক্রিয়া। বাপ্পি লিংকন রায় এর রংগুলো যেন অস্থিরচিত্ত।

প্রদর্শনীটি সবার জন্য উন্মুক্ত এবং চলবে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

প্রকাশিত : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

১৮/০৯/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: