২১ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

অনৈতিক কাজে রাজি না হওয়ায় ওমানে অমানুষিক নির্যাতন করা হয় নারগিসকে

প্রকাশিত : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:০০ পি. এম.
অনৈতিক কাজে রাজি না হওয়ায় ওমানে অমানুষিক নির্যাতন করা হয় নারগিসকে

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ অসহায় পরিবারে ভাগ্যের চাকা ঘোরাতে দালালের খপ্পরে ওমান গিয়ে অমানুষিক নির্যাতনের স্বীকার হয়ে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সহায়তা দেশে ফিরে এসেছেন শারিরিক নির্যাতনের স্বীকার গৃহবধূ নারগিস বেগম। সোমবার সকালে নিজবাড়িতে বসে নির্যাতনের বর্ণনা করতে গিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পরেন নারগিস। ঘটনাটি জেলার গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়নের সিংগা গ্রামের।

ওই গ্রামের কামাল মাতুব্বরের স্ত্রী নারগিস বেগম জানান, চলতি বছরের মে মাসে পূর্ব পরিচিত উজিরপুর উপজেলার মোড়াকাঠী গ্রামের মান্নান সরদারের পুত্র সিরাজুল ইসলাম তাকে ওমানে বিশ হাজার টাকা বেতন ও ভাল চাকরির প্রলোভন দেখায়। পরিবারের অর্থনৈতিক চাকা সচল করার জন্য তিনি দালাল সিরাজের কথায় রাজী হয়ে তার (সিরাজ) দাবিকৃত ৮০ হাজার টাকা তুলে দেন। পরবর্তীতে ১৭ জুন তাকে ওমান পাঠানো হয়। সেখানে সিলেট জেলার পারভীন বেগম নামের এক ওমান প্রবাসী তাকে বিমানবন্দর থেকে রিসিভ করে তার বাসায় নিয়ে যায়।

নারগিস বেগম আরও জানান, ওমানে যাওয়ার কয়েকদিন পরে প্রবাসী পারভীন তাকে টাকার বিনিময়ে অনৈতিক কাজ করার প্রস্তাব দেয়। পারভীনের কথায় রাজি না হওয়ায় তাকে অমানুষিক নির্যাতন করা হয়। বিষয়টি তিনি (নারগিস) মোবাইল ফোনের মাধ্যমে দালাল সিরাজুল ইসলামকে জানালে সে (সিরাজুল) পারভীনের কথায় রাজি হওয়ার জন্য বলে ফোনের লাইন বিচ্ছিন্ন করে দেয়। পরবর্তীতে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সহায়তায় দেশ থেকে টাকা পাঠানোর পর অতিসম্প্রতি তিনি (নারগিস) দেশে ফিরে আসেন।

এ ঘটনায় শারিরিক নির্যাতনের স্বীকার হওয়া নারগিস বেগম রবিবার দালাল সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে ক্ষতিপূরনের দাবিতে বামরাইল ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সিরাজুল ইসলাম জানান, নারগিস ওমানে চাকরি না করে দেশে ফিরে এসে নির্যাতন ও অনৈতিক কাজের মিথ্যে অভিযোগ ছড়াচ্ছে।

প্রকাশিত : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:০০ পি. এম.

১৬/০৯/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: