১৮ জানুয়ারী ২০১৮,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র রক্ষায় জাতীয় পার্টির ভূমিকা ঐতিহাসিক ॥ এলজিআরডিমন্ত্রী


৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র রক্ষায় জাতীয় পার্টির ভূমিকা ঐতিহাসিক ॥  এলজিআরডিমন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর ॥ এলজিআরডি মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, গণতন্ত্র শেষ হয়ে গেল বলে যারা বলেছে; তারাই কিন্তু গণতন্ত্রের বারোটা বাজিয়েছে। ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে এরশাদ সাহেব যদি তার দল নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করতেন তা‘হলে বাংলাদেশের রাজনীতি চলে যেত তৃতীয় শক্তির হাতে।

তখন গণতন্ত্র ৫০ বছরের জন্য হারিয়ে যেতো। এ নির্বাচনে এরশাদ ও জাতীয় পার্টি যে ঐতিহাসিক ভূমিকা রেখেছে ইতিহাস একদিন তার মুল্যায়ন করবে। শনিবার দুপুরে মাদারীপুরের শিবচর পৌরসভায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে-এর বড় বোন চৌধুরী ফাতেমা বেগম পৌর অডিটোরিয়াম ও প্রবাহমান‘৭১ ভাস্কর্য উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন আরো বলেন, পদ্মাসেতু নিয়ে খালেদা জিয়ার মন্তব্য প্রমাণ করে তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন। বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া পদ্মা সেতু নিয়ে যা’ই বলুক না কেন নির্ধারিত সময়ের আগেই পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হবে। ৭ কিলোমিটারের বেশী ৪৪টি পিলারের উপরে পদ্মা সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে। খালেদা জিয়ার যদি মানসিক ভারসাম্য থাকতো তাইলে ‘জোড়া তালি দিয়ে পদ্মা সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে’ এমন মন্তব্য করতেন না। কারণ প্রতিটি সেতুই জোড়াতালির পর একটু একটু করে পিলার সংযোগ দিয়ে নির্মাণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন, বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাকে বজায় রাখার জন্য আগামী নির্বাচনে বর্তমান সরকারকে আবার নির্বাচিত করার জন্য দলীয় প্রার্থীকে ভোট দিতে হবে। এ সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশের উন্নয়ন হয়। জাতীয় পার্টি মহাজোটে আছে এবং ভবিষতেও থাকবে।

শিবচর পৌর মেয়র আওলাদ হোসেন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগ সংসদীয় দলের সাধারণ সম্পাদক ও অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত কমিটির সভাপতি নূর-ই-আলম চৌধুরী এমপি, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, এলজিআরডির চীফ ইঞ্জিনিয়ার আবুল কালাম আজাদ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মিয়াজ উদ্দিন খান, ফরিদপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন খান, মাদারীপুর জেলা প্রশাসক মোঃ ওয়াহিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মনির চৌধুরী, ও সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে, শিবচর উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম তালুকদার, শিবচর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শামসুদ্দিন খান, সহসভাপতি সাবেক মেয়র আঃ লতিফ মোল্লা, সাবেক পৌর প্রশাসক আলহাজ মোসলেমউদ্দিন খান প্রমুখ।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: