১৯ জানুয়ারী ২০১৮,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

লালমনিরহাটে আওয়ামীলীগ বিএনপি সংঘর্ষ ॥ পুলিশসহ আহত ১৫


লালমনিরহাটে আওয়ামীলীগ বিএনপি সংঘর্ষ ॥ পুলিশসহ আহত ১৫

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট ॥ লালমনিরহাটে আজ শনিবার সকাল ১১ টায় ষ্টেশন রোড়ে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় পুরো ষ্টেশন এলাকা মূহুতে রণক্ষেত্রে পরিনিত হয়। ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে পুলিশের এএসপি সুশান্ত সরকারসহ পুলিশে ৩জন কর্মকতা আহত হয়েছে। আওয়ামীল ও বিএনপির পক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে। পুলিশ পরিস্থিত নিয়ন্ত্রনে নিতে ৫ রাউন্ড সর্টগানের গুলি ছুড়েছে। বিক্ষুব্ধ আওয়ামীলীগ নেতা কর্মীরা ষ্টেশন রোড়ে শ্রমিক দলের একটি অফিসে ব্যাপক ভাংচুর করেছে। পাল্টা জবাব দিতে বিএনপির নেতা কর্মীরা সংঘবদ্ধ হয়ে ষ্টেশন রোড়ে শ্রমিক লীগের অফিসে ব্যাপক ভাংচুর করে। এই ঘটনায় পুরো শহর জুরে তীব্র উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। শহরের প্রাণকেন্দ্র মিশনমোড়ে ও শহরের অলিতে গলিতেসহ গুরু¡পূর্ণ স্থাপনায় পুলিশ পাহাড়া জোরদার করা হয়েছে।

জেলা সদরের বড়বাড়ি এলাকার হারুন অর রশিদ নামে জনৈক ব্যক্তি ১৫ডিসেম্বর রাতে ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটুক্তি করে স্ট্যাটাস দেয়। এই খবরে রাতে ছড়িয়ে পড়লে আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এই ঘটনার জের ধরে ১৬ ডিসেম্বর সকালে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির নেতা কর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

সংঘর্ষে পুলিশের এএসপি সুশান্ত সরকার , সদর থানার ওসি মাহফুজার রহমান, এসআই আলমগীর হোসেন ইট পাট কেলের ঢিঁলে আহত হয়েছেন। সংঘর্ষে আওয়ামীলীগ দবি করেন, সেচ্ছা সেবক লীগের শহর শাখার যুগ্ন সম্পাদক সজল(৩০), যুব লীগের সদর উপজেলা শাখার সহসম্পাদক রাশেদ (৩৫)সহ বেশকয়েক জন নেতা কর্মী আহত হয়েছে। এদিকে জেলা বিএনপির দাবি করেন সংঘর্ষে সেচ্ছা সেবক দলের পৌরশাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল ইসলাম, সদর উপজেলা তাঁতী দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম,বড়বাড়ি সেচ্ছা সেবক দলের সাধারন সম্পাদক নুর নবী সহ বেশ কয়েকজন নেতা কর্মী আহত হয়েছে।

সদর থানার মাহফুজার রহমান জানান, পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। সংঘর্ষে পুলিশ ৫ রাউন্ড সর্ট গানের গুলি ছুড়েছে। সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নিয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: