২০ জানুয়ারী ২০১৮,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

গেইলের পর রংপুরের চার্লসের সেঞ্চুরি


গেইলের পর রংপুরের চার্লসের সেঞ্চুরি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানরাই আধিপত্য করে যাচ্ছেন টি২০ ক্রিকেটে। বিধ্বংসী ব্যাটিং, বড় রানের ইনিংসগুলো এই ক্ষুদ্র ফরমেটের ক্রিকেটে উপহার দিতে যেন তারাই বেশি পারদর্র্শী। সেটার প্রমাণ যেন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) টি২০। আগের চার আসর এবং চলতি পঞ্চম আসর মিলিয়ে ১১ সেঞ্চুরি দেখা গেছে বিপিএলে। এর মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানরাই হাঁকিয়েছেন ৭টি। এর সর্বশেষটি এসেছে রংপুরের জনসন চার্লসের উইলো থেকে। সোমবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে তিনি ৬৩ বলে ৯ চার, ৭ ছক্কায় ১০৫ রান করে অপরাজিত থাকেন। টি২০ ক্যারিয়ারে এটিই তার প্রথম এবং চলতি বিপিএলে দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। এলিমিনেটর ম্যাচে গত শুক্রবার তারই স্বদেশী ক্রিস গেইল ৫১ বলে অপরাজিত ১২৬ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। তার দেখানো পথেই জ্বলে উঠে রংপুর রাইডার্সের হয়ে খেলা ২৮ বছর বয়সী এ ডানহাতি ক্যারিবীয় ওপেনারও শতক হাঁকালেন। বৃষ্টির কারণে আগের দিন ম্যাচটি স্থগিত হয়, চার্লস ৪৬ রানে অপরাজিত ছিলেন। সেখান থেকেই ব্যাট হাতে সোমবার নেমে আরও ৫৯ রান যোগ করেন তিনি। টি২০ ক্রিকেটে দুইদিনে শতক হাঁকান এ ডানহাতি!

টি২০ ক্রিকেটে দু’দিন ধরে উইকেটে থেকে সেঞ্চুরির ঘটনা আগে বোধকরি দেখা যায়নি। চার্লস সেটা করবেন এমনটাও মনে হয়নি রবিবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচের দিন। কিন্তু বৃষ্টি চার্লসকে সে সুযোগ করে দিয়েছে। রবিবার নির্ধারিত সময়সূচী অনুসারে ছিল বিপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচ। সতীর্থ গেইল ৩ রানেই ফিরে গিয়েছিলেন। আগের দিন ৭ ওভারে ১ উইকেটে ৫৫ রান তুলেছিল রংপুর। এর মধ্যে চার্লসের ব্যাট থেকেই এসেছিল ২৬ বলে ৪৬ রান। এই ব্যাটিং মেজাজটাই বুঝিয়ে দিচ্ছিল বড় একটি ইনিংস খেলবেন তিনি। আগের ম্যাচেই গেইল শতক হাঁকিয়েছিলেন। তবে সেই ম্যাচে দর্শক হয়ে দেখেছেন চার্লস। সেটাই যেন ভেতরে গনগনে আগুন তৈরি করেছিল তার ভেতরে। রবিবার ৭ ওভারে রংপুর ১ উইকেটে ৫৫ রান তোলে। এর মধ্যে ২৬ বলেই ৪৬ রান করে বিশাল একটি ইনিংসের পথে এগিয়ে যান তিনি। তবে বৃষ্টির বিঘœতায় আর খেলা হয়নি, বাকি অংশটুকু হয়েছে সোমবার। এটাই যেন চার্লসকে সুযোগ করে দেয় দারুণ কিছু করার। সোমবারও আগের দিনের ঝাঁঝালো মেজাজ অব্যাহত রেখে ৩৪ বলেই অর্ধশতক আদায় করে নেন তিনি। তাকে এরপরও থামাতে পারেননি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বোলাররা। দ্বিতীয় উইকেটে ম্যাককালামের সঙ্গে তার যে জুটি গড়ে ওঠে সেটা ছিল টর্নেডো গতির। দু’জনের ১৫১ রানের জুটি ছিল মাত্র ৮৯ বলে। টি২০ ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি আদায় করেন চার্লস ৬২ বলে।

এর আগে ১১৪ টি২০ ম্যাচে চার্লস ১৬ হাফসেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন। সর্বোচ্চ ইনিংস ছিল অপরাজিত ৯৪ রানের। গত বছর সেন্ট লুসিয়ায় ২৪ জুলাই ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (সিপিএল) টি২০ আসরে সেন্ট লুসিয়া স্টারসের হয়ে ৫২ বলে ৫ চার, ৭ ছক্কায় এই ইনিংস খেলেছিলেন তিনি গায়ানা আমাজন ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে। এবার সেটিকে ছাড়িয়ে যান। শেষ পর্যন্ত ৬৩ বলে ১০৫ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। বিপিএলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানদের শতক ৭টি। এর মধ্যে গেইল একাই ৪টি (টি২০ ক্রিকেটে সর্বাধিক ১৯ সেঞ্চুরিও গেইলের) এবং এভিন লুইস, ডোয়াইন স্মিথ ১টি করে শতক হাঁকিয়েছেন। বিপিএলের বাকি চারটি শতকের মধ্যে তিনটি বাংলাদেশের- শাহরিয়ার নাফীস, মোহাম্মদ আশরাফুল ও সাব্বির রহমান। অন্য সেঞ্চুরিটি হাঁকিয়েছেন পাকিস্তানের আহমেদ শেহজাদ।