১৯ জানুয়ারী ২০১৮,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ঢাবি শিক্ষক সমিতি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত নীল দলের নিরঙ্কুশ বিজয়


ঢাবি শিক্ষক সমিতি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত নীল দলের নিরঙ্কুশ বিজয়

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শিক্ষক সমিতির ২০১৮ সনের কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে আওয়ামীলীগ সমর্থিত নীল দল। শিক্ষক সমিতির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ কার্যকরী পরিষদের ১৫টি পদের মধ্যে ১৪টিতেই জয় পায় নীল দল। সভাপতি হিসেবে নীল দলের প্রার্থী অধ্যাপক মাকসুদ কামাল ও সাধারণ সম্পাদক পদে অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম নির্বাচিত হয়েছেন।

সোমবার বিকালে বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাব ভবনে নির্বাচনের ফল ঘোষণা করা হয়। বিএনপিপন্থী একজন শিক্ষক সদস্য পদে ব্যতীত সকল পদে জয় পেয়েছে নীল দল বলে নিশ্চিত করেছেন শিক্ষক সমিতি নির্বাচনের প্রধান নির্বাচন কমিশনার রসায়ন বিভাগের প্রফেসর তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী। এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাব চত্বর এলাকা সকাল থেকেই শিক্ষকদের পদচারণায় মুখর ছিল।

সমিতির অন্যান্য পদে নীল দলের বিজয়ীরা হলেন- সহ-সভাপতি উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ও জীববিজ্ঞান অনুষদের ডিন মো. ইমদাদুল হক, যুগ্ম সম্পাদক ইংরেজি বিভাগের অদ্যাপক তাজিন আজিজ চৌধুরী ও কোষাধ্যক্ষ অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ।

সদস্যপদ প্রাপ্তরা হলেন- গণিত বিভাগের অধ্যাপক চন্দ্রনাথ পোদ্দার, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের জিনাত হুদা, সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক মুহাম্মাদ সামাদ, লেদার এন্ড টেকনোলজি এবং ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিউটিটের পরিচালক অধ্যাপক মো. আফতাব আলী শেখ, ক্রিমিনোলজি বিভাগের অধ্যাপক মো. জিয়া রহমান, খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক নিজামুল হক ভূঁইয়া, কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক মো: হাসানুজ্জামান, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক সাদেকা হালিম, অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সাবিতা রিজওয়ানা রহমান ও বাংলা বিভাগের অধ্যাপক সৌমিত্র শেখর।

এবার মোট ভোটার ছিলেন দুই হাজার ১০ জন। গণনা শেষে বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। শিক্ষক সমিতির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ কার্যকরী পরিষদের ১৫টি পদে এ নির্বাচনে বরাবরের মতই আওয়ামী লীগ ও বিএনপি-জামায়াত সমর্থক শিক্ষকদের দুটি প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। বামপন্থি শিক্ষকদের গোলাপী দল গতবছর আলাদা প্যানেলে নির্বাচনে অংশ নিলেও এবার তারা প্রার্থী দেয়নি।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: