২০ জানুয়ারী ২০১৮,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ওরা কি বাঁচবে !


ওরা কি বাঁচবে !

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ॥ জেলার শ্রীনগর উপজেলার দোগাছি গ্রামের মো. আবু কালামের ঘরে জন্ম নিয়েছে জোড়া লাগানো শিশু। দেখতে দুটি শিশু হলেও তাদের শরীর কাজ করছে একটি। আজব একসাথে পেটে জোড়া লাগানো অবস্থায় জন্ম নিয়েছে দুটি মেয়ে সন্তান। এরকমটি আর ঘটেছে কিনা তাও বলতে পারেনা কেউ। তবে এর পূর্বে দেশে মাথা জোড়া লাগানো দুটি শিশু জন্ম নিলে চিকিৎসকারা তাদের আলাদা করলেও এ শিশুদের ক্ষেত্রে দুজনকে একসঙ্গে বাঁচানো সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা ।

জানা যায়, মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর উপজেলার দোগাছি গ্রামের মো. আবু কালামের স্ত্রী তাছলিমা আক্তার রিতা (৩৪) গত ৫ ডিসেম্বর মঙ্গলবার ঢাকার ধুপখোলা আজগর আলী হসপিটালে সিজারের মাধ্যমে এক সাথে পেটের সাথে জোরা লাগানো দুটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। সন্তান দুটি এ ভাবে জন্ম নেওয়ার ফলে মা-বাবা আত্মীয় স্বজন সবাই রয়েছে দুচিন্তায়। শিশুদের বেড়ে উঠা ও খাওয়া দাওয়ায় মারাত্মক সমস্যার সৃস্টি হচ্ছে। এদিকে কিছুতেই মা বাবার মনও মানছেনা, তারা এ পযর্ন্ত প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা খরছ করেছেন বাচ্চা দুটো সুস্থ রাখার জন্য। অবশেষে একসাথে পেটে জোড়া লাগানো জমজ শিশু দুটিকে তাদের মার সাথে গতকাল ১০ ডিসেম্বর রবিবার হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেওয়ার পরে গ্রামের বাড়ি দোগাছিতে নিয়ে আসা হয়েছে।

শিশু দুটির বাবা মো.আবু কালাম জানান, বাচ্চা দুটি আজগর আলী হসপিটালের চিকিৎসক প্রফেসর (নবজাতক) জাবরুল এসএম হক এর তত্ত্বাবধানে ছিলো। চিকিৎসক জানিয়েছেন শিশু দুটির একটি হার্ট ও একটি লিভার রয়েছে। তাছাড়া একটি শিশুর মাথার তালুটা পুরোপুরি হয়নি। অর্থাত গ্রাম্য ভাষায় যাকে বলে টাগরা হয়নি। যার ফলে একটি বাচ্চার খাওয়া দাওয়ায় মারাত্মক সমস্যার সৃস্টি হচ্ছে। চিকিৎসকের বরাত দিয়ে শিশু দুটির বাবা বলেন, আমরা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী শিশু দুটি সহ তার মাকে বাড়িতে নিয়ে এসেছি। চিকিৎসক জানিয়েছেন, যদি বাচ্চা শিশু দুটি ৪ থেকে ৬ মাস বেঁচে থাকে, তবে অপারেশনের মাধ্যমে তাদের আলাদা করা সম্ভব। সে ক্ষেত্রে দুটি বাচ্চার মধ্যে যে কোন একজনকে বাঁচানো সম্ভব হবে। কেননা শিশু দুটির একটি হার্ট ও একটি লিভার রয়েছে। একটি হার্ট ও একটি লিভার দিয়ে দুজনকে একসঙ্গে বাঁচানো সম্ভব নয়। জমজ শিশু দুটির চিকিৎসার জন্য তার পরিবার মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ দেশের বৃত্তবানদের সহযোগিতা কামনা করছেন।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: