২০ জানুয়ারী ২০১৮,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে একজন এনজিও এক্সপার্টের দৈনিক ব্যয় ৩’শ ডলার


রোহিঙ্গা ক্যাম্পে একজন এনজিও এক্সপার্টের দৈনিক ব্যয় ৩’শ ডলার

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ কক্সবাজারের সমাজ মানবাধিকার সমাজ, রোহিঙ্গাদের সঙ্গে স্থানীয়দের অধিকারকের সমুন্নত রাখুন এ প্রতিপাদ্যকে নিয়ে কক্সবাজার সিভিল সোসাইটি- এনজিও ফোরাম (সিসিএনএফ) এর উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উদযাপন করা হয়েছে। রবিবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত পরর্বর্তীতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সিসিএনএফ এর কো-চেয়ারম্যান আবু মোর্শেদ চৌধুরী খোকার সভাপতিত্বে সেমিনারের প্রধান অথিতি জেলা প্রশাসক মো: আলী হোসেন রোহিঙ্গা শরণার্থীদের কারনে কক্সবাজারের আর্থ ও সামাজিক জীবন কি প্রভাব পরবে- তার উপর গবেষণা প্রনয়ণের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন। সিসিএনএফকে এ ব্যাপারে সহযোগিতা করার জন্য আহবান জানিয়ে এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসন সার্বিক সহযোগিতা করবে মর্মে আশ্বাস প্রদান করেন।

মানববন্ধনে সিসিএনএফ এর কো-চেয়ারম্যান আবু মোর্শেদ চৌধুরী অচিরেই রোহিঙ্গাদের মানবিক মর্যদা দিয়ে তাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করতে আর্ন্তজাতিক মহলকে আহবান জানান। সেই সঙ্গে রোহিঙ্গাদের জন্য যে ত্রাণ সহযোগিতা আসছে, তার একটি অংশ স্থানীয় জনসাধারণের আতœ-সাসামাজিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে ব্যয় করার জন্যও অনুরোধ জানান।

এময় কোস্টের নির্বাহী পরিচালক রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, বর্তমানে প্রায় ১হাজার বিদেশী আইএনজিও ও ইউএন এক্সপার্ট কাজ করছে। প্রতিজনের পিছনে দৈনিক ব্যয় হচ্ছে কমপক্ষে ৩’শ ডলার অর্থাৎ প্রায় ২৪ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা। এছাড়া নেপালে ভুমিকম্পের পরে আইএনজিওদের সরাসরি কাজ করা থেকে সরকার নিষিদ্ধ করে এবং ফিলিপাইনের সরকারও সাইক্লোন হাইওয়ানের পর একই রকম সিদ্ধান্ত নেয়। তাই বাংলাদেশ সরকার ও রাজনীতিবিদদের ওইরকম সিদ্ধান্ত নিতে হবে। স্থানীয় এনজিওদের মাধ্যমে কাজ করাতে হবে। তিনি বলেন, শরণার্থীদের জন্য আসা বিদেশী সাহায্যের প্রায় ৭০ ভাগ বিদেশী এক্সপার্টদের জন্য ব্যয় হচ্ছে। অথচ বাংলাদেশীরা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার জন্য বিশ্ব খ্যাত। তিনি আইএনজিও ইউএন এর সকল বিদেশী সহায়তার পুর্ণ স্বচ্ছতা ও স্থানীয় জনগণ ও সরকারের প্রতি দায়বদ্ধতা দাবি করেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: