১৪ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

লুটপাটের সুযোগ করে দিতে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে ॥ রিজভী


লুটপাটের সুযোগ করে দিতে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে ॥ রিজভী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধিতে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিএনপি। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, বিএনপির পক্ষ থেকে বিদ্যুতের দাম বদ্ধির প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে এই গণবিরোধী সিন্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি করছি। তিনি আরও বলেন, ক্ষমতাসীনদের লুটপাটের সুযোগ করে দিতে আবারও বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে।

রিজভী বলেন, বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমায় বাংলাদেশে বিদ্যুতের উৎপাদন খরচ কমার কথা। কিন্তু বিদ্যুতের দাম না কমিয়ে উল্টো বাড়ানো নজিরবিহীন এবং গণবিরোধী। জনগণের রক্ত চুষে খেতে আবারও বাড়ানো হয়েছে বিদ্যুতের দাম যা আগামী মাস থেকেই কার্যকর হবে। যেখানে বিদ্যুতের দাম কমানোর কথা সেখানে আগের তুলনায় ৫ দশমিক ৩ শতাংশ বৃদ্ধির ঘোষণা আসায় এখন বিদ্যুতের দাম প্রতি ইউনিটে বাড়বে ৩৫ পয়সা।

রিজভী বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেয়। যা শুধু অযৌক্তিক ও গণবিরোধী নয় ভোটারবিহীন সরকারের লুটপাট নীতির বহিঃপ্রকাশ বলে জানান রিজভী। গোটা দেশটাকে গিলে খেতেই সরকার উন্মত্ত হয়ে পড়েছে। ব্যাংক, বীমা, শেয়ারবাজারসহ সমস্ত অর্থনীতিক খাতকে তিলে তিলে খেয়ে তাদের স্বাদ মেটেনি। তাই বার বার গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে গরীবের রক্ত পান করাটাই যেন তাদের মূখ্য উদ্দেশ্য। এর আগে মার্চে সম্পূর্ণ অযৌক্তিকভাবে গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে সরকার।

রিজভী বলেন, ২০১০ সাল থেকে ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ছয় বছরে পাইকারি পর্যায়ে ৬ বার এবং খুচরা পর্যায়ে সাতবার বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে। শুধুমাত্র লুটপাটের জন্যই গরীবের সর্বশেষ সম্বলটুকু আত্মসাৎ করে সরকার আবারও বিদ্যুতের দাম বাড়ালো।

রিজভী বলেন, বিদ্যুতের দামের সঙ্গে সব কিছু সম্পর্কিত। বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সবচেয়ে বিপাকে পড়বে সীমিত আয়ের মানুষ। শিল্প খাতেও পড়বে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রভাব। এমনিতে সরকারের লুটপাট আর ভয়াবহ দুঃশাসনে দেশে কোন বিনিয়োগ নেই। এমন সময় বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করা মানেই বিনিয়োগকারীদের নিরুৎসাহিত করা। এতে গোটা অর্থনীতি হুমকির মুখে পড়বে।

রিজভী বলেন, বিদ্যুতের দাম বাড়ার কারণে বৃহৎ অবকাঠামোর প্রকল্পগুলো এবং রফতানি সক্ষমতা, শিল্প বহুমুখীকরণ ব্যাহত হওয়ার পাশাপাশি ব্যবসা পরিচালনা ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। অর্থাৎ ব্যাপকভাবে কর্মসংস্থান হ্রাস পাবে। দেশে জ্যামিতিক হারে বৃদ্ধি পাবে বেকারত্ব। এমনিতেই এশিয়ার সবচেয়ে বেশী বেকারত্বের হারের দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম।

রিজভী বলেন, বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধিও কারণে, শিল্পে উৎপাদন ব্যয় বেড়ে গেলে বাড়বে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যেও। বর্তমানে নিত্যপণ্যসহ সব কিছুর দাম বৃদ্ধিতে সাধারণ মানুষ দিশেহারা। তার উপর বিদ্যূতের দাম বৃদ্ধির মাশুলও দিতে হবে নি¤œ আয়ের মানুষদের। কৃষি খাতেও এর বিরূপ প্রভাব পড়বে। বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির ফলে কৃষি উৎপাদন ব্যাপকভাবে ব্যাহত হবে। এমনকি কয়েক দফা বন্যায় দেশে তীব্র খাদ্য সঙ্কট চলছে তার ওপর বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধিতে কৃষকেরা দিশেহারা হয়ে পড়বে। বিদ্যূতের দাম বৃদ্ধি হবে কৃষি ও শিল্পখাতের জন্য মড়ার ওপর খাড়ার ঘা।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: