১৪ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

টিটু রায়ের পক্ষে আইনজীবী


টিটু রায়ের পক্ষে আইনজীবী

অনলাইন রিপোর্টার ॥ ধর্ম অবমাননা করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার রংপুরের টিটু রায় আইনজীবী পেলেন।

সোমবার তার পক্ষে আইনি লড়াই করতে কাজ শুরু করেছেন স্থানীয় হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সাত আইনজীবী। তারা হলেন-অ্যাডভোকেট কমল মজুমদার, ইন্দ্রজিত সরকার, বিনয় ভূষণ রায়, নরেন্দ্র সরকার, মাশরাফি মো. শিবলী, রিয়াজুল আবেদীন লিটন ও জাকির হোসেন।

রংপুর আইনজীবী সমিতির সহ-সাধারণ সম্পাদক ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রথীশ চন্দ্র ভৌমিক জানান, টিটু রায়ের পরিবার অত্যন্ত গরিব। তারা টিটুর পক্ষে কোন আইনজীবী নিয়োগ করতে পারেনি। আদালতের মাধ্যমে পুলিশ দু'দফা রিমান্ডে নিলেও টিটু রায়ের পক্ষে কোন আইনজীবী ছিল না। তাই রংপুর পূজা উদযাপন পরিষদ, ঘাতক দালাল নির্মল কমিটি, হিন্দু-বৌদ্ধ- খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ এবং সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের পক্ষ থেকে টিটু রায়কে আইনগত সহায়তা দেয়ার জন্য সাতজন আইনজীবী নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

গত শনিবার গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) দ্বিতীয় দফায় টিটু রায়কে চারদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। এর আগে প্রথম দফায় চারদিন রিমান্ডে নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

গত ৬ নবেম্বর রংপুরের সলেয়াশাহ এলাকার ব্যবসায়ী রাজু আহমেদ বাদী হয়ে ঠাকুরপাড়ার টিটু রায়ের বিরুদ্ধে ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ এনে গঙ্গাচড়া থানায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা করেন। এরপর ১৪ নবেম্বর ভোরে ডিবি নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার গোলনা ইউনিয়নের চিড়াভিজা গোলনা গ্রাম থেকে টিটুকে গ্রেফতার করে।

ফেসবুকে ধর্মীয় অবমাননাকর স্ট্যাটাস দেওয়ার অভিযোগে বিক্ষোভকারীরা গত ১০ নভেম্বর রংপুরের সদর উপজেলার হরকলি ঠাকুরপাড়া গ্রামে হিন্দুদের ১১টি বাড়িতে আগুন ও ১৫টি বাড়ি ভাঙচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গিয়ে শটগানের গুলি ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে। এ সময় সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে একজন নিহত হন। সাত পুলিশ সদস্যসহ ২৫ জন আহত হন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: