১৫ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ইপিএলে জয় পেয়েছে সব বড় দল


ইপিএলে জয় পেয়েছে সব বড় দল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আন্তর্জাতিক ফুটবলের বিরতি শেষে আবারও শুরু হয়েছে ক্লাব ফুটবলের লড়াই। শনিবার প্রথমদিনেই মাঠে নেমেছিল ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের সবগুলো জায়ান্ট ক্লাব। তবে ভক্ত-অনুরাগীদের হতাশ করেনি কেউ। বড় জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে বড় সব ক্লাব। নিজেদের মাঠে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ৪-১ গোলে হারিয়েছে নিউক্যাসল ইউনাইটেডকে। বড় জয় পেয়েছে চেলসিও। বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা এদিন ৪-০ গোলে হারিয়েছে ওয়েস্ট ব্রমউইচকে। এ্যানফিল্ডে লিভারপুল ৩-০ ব্যবধানে পরাজিত করেছে সাউদাম্পটনকে। ডার্বি ম্যাচে আর্সেনাল ২-০ গোলে হারিয়েছে টটেনহ্যাম হটস্পারকে। একই ব্যবধানে লিচেস্টার সিটিকে হারিয়ে পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছেড়েছে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ম্যানচেস্টার সিটিও।

শনিবার নিজেদের মাঠ ওল্ডট্র্যাফোর্ডে নিউক্যাসল ইউনাইটেডকে স্বাগত জানায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। আর এই ম্যাচে ইনজুরি কাটিয়ে দলে ফিরেই গোলের দেখা পান পল পগবা। ফ্রেঞ্চ তারকা পগবা ছাড়াও এদিন ইনজুরি কাটিয়ে দীর্ঘদিন পর দলে ফিরেন সুইস সুপারস্টার জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ। বদলি খেলোয়াড় হিসেবে ইব্রাহিমোভিচ শেষ ১৩ মিনিট মাঠে ছিলেন। এই জয়ে টেবিলের শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির চেয়ে এখনও আট পয়েন্ট পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে অবস্থান করছে ইউনাইটেড। অথচ ম্যাচের শুরুতেই অবশ্য শঙ্কায় পড়েছিল স্বাগতিকরা। ১৪ মিনিটে ডুয়াইট গেইলের গোলে নিউক্যাসেল এগিয়ে গেলে ওল্ডট্র্যাফোর্ড স্তব্ধ হয়ে যায়। ৩৭ মিনিটে পগবার দারুণ এক ক্রসে হেডের সাহায্যে এ্যান্থনি মার্শাল প্রতিপক্ষের গোলরক্ষক রব এলিয়টকে পরাস্ত করলে সমতায় ফেরে ইউনাইটেড। হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির কারণে দুইমাস বিশ্রামে ছিলেন পগবা। বিরতির ঠিক আগে লেফট-উইং কর্নার থেকে এ্যাশলে ইয়ংয়ের ৩০ গজ দূর থেকে ক্রসে পোস্টের খুব কাছ থেকে স্মলিং মাথা ছুঁইয়ে ইউনাইটেডকে এগিয়ে দেন। কিন্তু তখনও প্রথমার্ধের নাটক শেষ হয়নি। কাউন্টার এটাক থেকে হেইডেনের শট অসাধারণ দক্ষতায় রুখে দেন ডেভিড ডি গিয়া। ফিরতি বলে ম্যাট রিচির শট গেইলের হাঁটুতে লেগে বাইরে চলে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই নিউক্যাসেল আক্রমণের সুযোগ হাতছাড়া করে। তবে ৫৪ মিনিটে লুকাকুর পাস থেকে বক্সের ভেতর রাশফোর্ডের সহজ হেডে অনেকটা ফাঁকায় দাঁড়ানো পগবা গোল করলে পুরো স্টেডিয়াম উল্লাসে ফেটে পড়ে। মারফির ২৫ গজ দূর থেকে জোরালো শট আটকাতে ডি গিয়াকে খুব একটা কষ্ট করতে হয়নি। কিন্তু ৭০ মিনিটে জুয়ান মাতার সহায়তায় এলিয়টকে একা পেয়ে সহজেই পরাস্ত করেন বেলজিয়াম তারকা রোমেলু লুকাকু। ইউনাইটেডের গোল উৎসবের দিনে জয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছে ম্যানচেস্টার সিটিও। গাব্রিয়েল জেসুস ও কেভিন ডি ব্রুইনের গোলে পেপ গার্ডিওলার দল এদিন খুব সহজেই হারায় লিচেস্টার সিটিকে। কিং পাওয়ার স্টেডিয়ামে বিরতির ঠিক আগে এগিয়ে যায় সিটিজেনরা।

রাহিম স্টার্লিংয়ের পাস ধরে বাঁ থেকে ডেভিড সিলভা বল বাড়ান ছয় গজ বক্সে ঢুকে পড়া জেসুসকে। অনায়াসেই লীগে নিজের অষ্টম গোলটি করেন ব্রাজিলের এই তারকা ফরোয়ার্ড। দ্বিতীয়ার্ধের চতুর্থ মিনিটে লেরয় সানের কাটব্যাক পেয়ে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বিদ্যুতগতির শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন বেলজিয়ামের মিডফিল্ডার কেভিন ডি ব্রুইন।

এই জয়ের ফলে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে পেপ গার্ডিওলার দল। ১২ ম্যাচে ১১ জয় ও এক ড্রয়ে ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান তাদের। দিনের অন্য ম্যাচে এদিন এডিন হ্যাজার্ডের জোড়া গোলে ওয়েস্ট ব্রমউইচকে তাদেরই মাঠে ৪-০ ব্যবধানে হারিয়েছে চেলসি। গতবারের চ্যাম্পিয়নদের সংগ্রহে এখন ২৫ পয়েন্ট। আরেক ম্যাচে মোহামেদ সালাহর জোড়া গোলে সাউদাম্পটনকে ৩-০ গোলে হারানো লিভারপুলের দখলে ২২ পয়েন্ট। দিনের প্রথম ম্যাচে নিজেদের মাঠে টটেনহ্যাম হটস্পারকে ২-০ গোলে হারায় আর্সেনাল। এর ফলে তাদেরও পয়েন্ট লিভারপুলের সমান ২২। তবে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে আর্সেন ওয়েঙ্গারের দল।