১৫ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সম্ভাবনাময় বিভিন্ন খাতে চীনের বিনিয়োগ আহ্বান করেছে এফবিসিসিআই


সম্ভাবনাময় বিভিন্ন খাতে চীনের বিনিয়োগ আহ্বান করেছে এফবিসিসিআই

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় বিভিন্ন খাতে চীনের বিনিয়োগ আহ্বান করেছে ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই। সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিনিয়োগ সুবিধা গ্রহণ করে চীনা বিনিয়োগকারীরা লাভবান হতে পারবেন।

এছাড়াও এফবিসিসিআই খুব অল্প সময়ের মধ্যে চীনের গুয়াংডং প্রদেশের সাথে উৎপাদন খাতে যৌথ বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

রবিবার এফবিসিসিআই নেতৃবৃন্দ এবং সফররত সিসিপিআইটি’র (চায়না কাউন্সিল ফর দ্য প্রমোশন অব ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড) ৯ সদস্য বিশিষ্ট এক বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের সাথে বৈঠক করেন এফবিসিসিআই প্রতিনিধিদল। সংগঠনটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিমসহ এফবিসিসিআই পরিচালক জনাব সালাহউদ্দিন আলমগীর, রেজাউল করিম রেজনু প্রমুখ ওই আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন।

সিসিপিআইটি প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন চায়নিজ পিপলস পলিটিক্যাল কনসালটেটিভ কনফারেন্স (সিপিপিসিসি)-এর ভাইস চেয়ারম্যান মি. লিন জিয়ং। মি. লিন বাংলাদেশের সাথে চীনের ঐতিহাসিক বন্ধৃত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে এফবিসিসিআই এবং সিসিপিআইটি, গুয়াংডং-এর মধ্যে বাণিজ্য সম্পর্ক আরও সম্প্রসারণের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। গত বছর চীনের প্রধানমন্ত্রী মি. শি শিনপিং-এর বাংলাদেশ সফরের ফলে বন্ধুত্বপূর্ণ দু’দেশের মধ্যে কৌশলগত অংশিদারিত্ব আরও জোরদার হচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। এছাড়াও মি. লিন গুয়াংডং-এর বিশ্বখ্যাত ইলেক্ট্রনিক এ্যাপ্লায়েন্স বাংলাদেশে রফতানির বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

শেখ ফজলে ফাহিম বাংলাদেশ সরকারের আকর্ষণীয় বিনিয়োগ সুবিধা বিশেষ করে ট্যাক্স হলিডে, করপোরেট কর সুবিধা ইত্যাদি গ্রহণ করে চীনা ব্যবসায়িদেরকে বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। বাংলাদেশের ভৌগলিক অবস্থান এবং সমুদ্র বন্দরগুলোর ( চট্টগ্রাম, মংলা ও পায়রা) সুবিধা গ্রহণ করে চীনা ব্যবসায়িরা এদেশে বিনিয়োগের সুযোগ গ্রহণ করতে পারেন বলে তিনি উল্লেখ করেন। এছাড়াও তিনি ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, কানাডা সহ বিশ্বের অনেক দেশে রফতানির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ যে শুল্কমুক্ত, কোটামুক্ত সুবিধা পেয়ে থাকে তা গ্রহণ করে চীনা ব্যবসায়িদেরকে এদেশে বিনিয়োগের আমন্ত্রণ জানান।

প্রসঙ্গত, গত ২০১৬-১৭ অর্থবছরে বাংলাদেশ ৯৪৯ দশমিক ৪১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য চীনে রফতানি করে এবং চীন থেকে ১০১২৮ দশমিক ১ মিলিয়ন ডলারের পণ্য আমদানি করে। চীনে বাংলাদেশের রফতানিযোগ্য পণ্যগুলো হচ্ছে ওভেন গার্মেন্টস, চামড়াজাত, নীটওয়্যার, পাট ও পাটজাত পণ্য, চামড়া, ফ্রোজেন ফুড এবং প্লাস্টিক ও প্লাস্টিক সামগ্রী। আর চীন থেকে মুলত টেক্সটাইল এবং টেক্সটাইল সামগ্রী, যন্ত্রপাতি ও ইলেক্ট্রনিকস সামগ্রী আমদানি করা হয়।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: