১২ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

প্রতি বছরই বাংলাদেশ হতে জনশক্তি রফতানি বাড়ছে


প্রতি বছরই বাংলাদেশ হতে জনশক্তি রফতানি বাড়ছে

সংসদ রিপোর্টার ॥ বর্তমান সরকারের আমলে প্রতিবছরই বাংলাদেশ হতে জনশক্তি রফতানি বাড়ছে। বাংলাদেশ হতে বিশ্বের ১৬৫টি দেশে কর্মী প্রেরণ হচ্ছে। ২০১৫ সালে বিদেশগামী কর্মীর সংখ্যা ছিল সাড়ে ৫ লাখ ৫৫ হজার। ২০০৬ সালে তা বৃদ্ধি পেয়ে ৭ লাখ ৫৭ হাজার হয়েছে। ২০১৭ সালের জানুয়ারি হতে অক্টোবর পর্যন্ত মাত্র ১০ মাসেই ৮ লাখ ৩৪ হাজার ৭৭৩ জন কর্মী বিদেশে গেছেন।

রবিবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম ওমরের প্রশ্নের জবাবে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী এ তথ্য জানান। মন্ত্রীর অনুপস্থিতিতে তাঁর পক্ষে প্রশ্নের উত্তর দেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

তিনি জানান, প্রধান প্রধান শ্রম বাজারসমূহ তথা সৌদিআরব, ওমান, কাতার, বাহরাইন, লেবানন, মালয়েশিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া, জর্ডান প্রভৃতি দেশের সঙ্গে কর্মী প্রেরণের বিষয়ে বাংলাদেশ চুক্তি/সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে। সরকারের গৃহীত নানামুখী কূটনৈতিক তৎপরতার ফলে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিদেশগামী কর্মীর সংখ্যা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে।

সরকার দলীয় সংসদ সদস্য আলী আজমের সম্পুরক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বিদেশে নারী শ্রমিকরা নির্যাতনের শিকার হন, এমন ঢালাও অভিযোগ সঠিক নয়। ঢালাওভাবে এমনটি হলে মা-বোনেরা সেখানে যেতো না। কোথাও কোথাও এমনটি হয়ে থাকে। তবে এমন ঘটনার খবর পেলে দূতাবাসগুলো ব্যবস্থা নিয়ে থাকে। তিনি আরও বলেন, অনেক স্থানেই অনেক কারণে নির্যাতনের ঘটনা ঘটে থাকে। তবে বিদেশে গিয়ে কেউ নির্যাতনের শিকার হলে আমরা সকলেই কষ্ট পেয়ে থাকি। এবিষয়ে মন্ত্রণালয় ও দূতাবাসগুলো সতর্ক রয়েছে।

জাতীয় পার্টির নুরুল ইসলাম ওমরের সম্পুরক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, শ্রমিক নির্যাতনের ঘটনা শুধু সৌদি আরব নয়, কুয়েত, মালেশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে হয়ে থাকে। তবে এমন ঘটনার খবর পেলে দূতাবাসগুলো তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়ে থাকে। বিদেশে শ্রমিকদের নিরাপদ কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করতে সরকার সচেষ্ট রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমামের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, ২০০৪ সরকার দলীয় সংসদ সদস্য এস এম জগলুল হায়দারের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, ২০০৪ সাল থেকে অদ্যাবধি বিশ্বের ৬৯টি দেশে গমনকারী বাংলাদেশী নারী কর্র্মীর সংখ্যা ৬ লাখ ৬০ হাজার ১৬৯ জন। এর মধ্যে সৌদি আরবে সর্বাধিক এক লাখ ৯০ হাজার ৪৬২ জন নারী কর্র্মী রয়েছে।

সরকার দলীয় সংসদ সদস্য গাজী ম ম আমজাদ হোসেন মিলনের প্রশ্নের জবাবে খাদ্যমন্ত্রী এ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম জানান, পিএফডিএস (পাবলিক ফুড ডিস্টিবিউশন সিস্টেম) খাতের চাহিদা অনুযায়ী পর্যাপ্ত চাল মজুদ রয়েছে। বর্তমানে ৪ লাখ ৯ হাজার মেট্রিক টন চল ও ১ লাখ ৬৭ হাজার মেট্রিক টন গম মজুদ রয়েছে। প্রতিমাসে গড়ে ১ লাখ মেট্রিক টন চাল সরবরাহ করা হয়। সে হিসাবে এ চাল দিয়ে আগামী ৪ মাস পর্যন্ত চাহিদা পূরণ করা যাবে।

তিনি আরও জানান, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে সরকারিভাবে (জি টু জি ও আন্তর্জাতিক দরপত্রের মাধ্যমে) ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া, মায়ানমার, ভারত হতে চাল আমদানি করা হয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: