১৭ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

নীলফামারীতে ভালচার প্রজাতির শকুন উদ্ধার


নীলফামারীতে ভালচার প্রজাতির শকুন উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী॥ বিরল প্রজাতির একটি শকুন উদ্ধার হয়েছে। নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার গাবরোল কয়লা পাড় এলাকার একটি ফসলি জমি হতে অসুস্থ্য অবস্থায় উদ্ধার করা হয় এই শকুনটি। প্রানী সম্পদে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে আজ রবিবার সকালে শকুনটি বনবিভাগের মাধ্যমে দিনাজপুরের পাখি চিকিৎসা কেন্দ্রে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জলঢাকা উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ তারিকুল ইসলাম জানান উদ্ধারকৃত শকুনটি ভালচার নামে বিরল প্রজাতির। এ ধরনের শকুন এখন আর দেখা যায় না। এ প্রজাতির শকুন এখন বিলুপ্তির পথে। এ ধরনের শকুন দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে আকাশে উড়তে পারে। দেশ স্বাধীনের আগে শকুনের আনাগোনা লক্ষ্য করা গেলেও এখন আর তেমনটা চোখে পড়ে না। ধারনা করা হচ্ছে খাদ্য সংকটে শকুনটি অসুস্থ্য হয়ে পড়েছিল। ঠিকমতো খাবার পেলে সুস্থ্য হয়ে উঠবে।

জলঢাকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাঃ রাশেদুল হক প্রধান জানা পাখিটির শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে একটি ধান ক্ষেতে থেকে আহত অবস্থায় পাখিটিকে উদ্ধার এলাকার গোলাম রব্বানীর (৪৫) ও তার ছেলে ওয়াশিকুজ্জামান লোশন (১৮) । তারা তাদের বসতবাড়ির পাশের ধান ক্ষেতে বিরল প্রজাতির শকুনটি দেখতে পায়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ম আহত অবস্থায় পাখিটিকে উদ্ধার করে উপজেলা পরিষদে নিয়ে আসে। এরপর উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসে পাঠিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করা হয়। শকুনটি এখন দিনাজপুরের পাখি চিকিৎসা কেন্দ্রে রয়েছে। সুস্থ্য হলে তাকে রংপুর চিড়িয়াখানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: