১৩ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রংপুর সিটি নির্বাচন হবে বর্তমান ইসির জন্য একটি পরীক্ষা ॥ এরশাদ


রংপুর সিটি নির্বাচন হবে বর্তমান ইসির জন্য একটি পরীক্ষা ॥ এরশাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, আসন্ন রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন হবে বর্তমান নির্বাচন কমিশনের জন্য একটি পরীক্ষা। এই নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষভাবে করতে ব্যর্থ হলে ইসির প্রতি জনগণের আস্থা প্রশ্নবিদ্ধ হবে। আমরা আশা করি- নির্বাচন কমিশন সেই ঝুঁকি গ্রহণ করবেনা।

বুধবার তাঁর বনানীস্থ কার্যালয়ে বিমানের পাইলট ক্যাপ্টেন মোঃ জাকারিয়া হোসেনের আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পার্টিতে যোগদান অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে এরশাদ বলেন, আমরা একটি সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান দেখার অপেক্ষায় রয়েছি। গোটা দেশবাসীও এ অপেক্ষায়। আশাকরি আমরা কেউই হতাশ হব না।

এসময় উপস্থিত ছিলেন পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহম্মেদ বাবলু, সুনীল শুভ রায়, এস.এম. ফয়সল চিশতী, মেজর মোঃ খালেদ আখতার (অব.), চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা এ্যাড. রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, শফিকুল ইসলাম সেন্টু, যুগ্ম মহাসচিব শফিকুল ইসলাম শফিক, সাংগঠনিক সম্পাদক ফখরুল আহসান শাহজাদা, যুগ্ম দফতর সম্পাদক এম.এ. রাজ্জাক খান, কেন্দ্রীয় নেতা কাজী আবুল খায়ের, আব্দুস সাত্তার, ফজলে এলাহী সোহাগ, শাহাবুদ্দিন আহমেদ বাচ্চু, জহিরুল ইসলাম মিন্টু, মাওলানা খলিলুর রহমান, মনোয়ারা খোদা চৌধুরী মন্টি প্রমুখ।

সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ বলেন, সকলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন নিশ্চিত করতে হলে- নির্বাচন কমিশনকে স্বাধীনভাবে কাজ করতে হবে এবং সম্পূর্ণ নিরপেক্ষতার প্রমাণ দিতে হবে। প্রথম পর্যায়ে সেই প্রমাণ নিতে চাই আসন্ন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের মাধ্যমে।

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি সম্মিলিত জাতীয় জোট (ইউএনএ)-কে নিয়ে এককভাবে নির্বাচনে প্রস্তুতি গ্রহণ করবে। দেশের মানুষ এখন আমাদের দিকেই ঝুঁকে পড়েছে। তাই সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ এবং গণ্যমান্য ব্যক্তি জাতীয় পার্টিতে যোগদান করছেন। এই ধারা অব্যাহত থাকবে। তিনি যোগদানকারী পাইলট জাকারিয়া হোসেনকে জাতীয় পার্টিতে স্বাগত জানিয়ে তাঁকে পার্টির জন্য নিবেদিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানান।

এরশাদ বলেন, দেশের মানুষ জাতীয় পার্টিকে ভালোবাসে। তারা চান আমরা আবারো ক্ষমতায় আসি। দেশ পরিচালনার দায়িত্ব নেই। তাহলে মানুষ সুখে থাকবে। শান্তি পাবে। কারণ আমাদের সময়ে দেশে এত সংকট ছিল না। সবাই ভাল ছিল। সুখে ছিল। শান্তিতে দিন কাটাতেন। এখন তো মানুষের কোন নিরাপত্তা নেই। কখন কি হয় বোঝা যায় না। মানুষ আতঙ্কে বাসবাস করছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: