১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জামানত ফেরত না দিয়ে দোকান ছাড়ার নোটিশ


জামানত ফেরত না দিয়ে দোকান ছাড়ার নোটিশ

সংবাদদাতা, লাকসাম (কুমিল্লা) ॥ লাকসাম উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে দোকান ভাড়া দেয়ার পর জামানত ফেরত না দিয়ে দোকান ছাড়ার জন্য নোটিশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ডেপুটি কমান্ডার আমিন উল্যাহ স্বাক্ষরিত নোটিশে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের প্রয়োজনে ভাড়া দেয়া ৭টি দোকান ঘর ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

ভাড়াটিয়া পলাশ চক্রবর্তী, হাবিবুল হক, শাহ আলম, শফিকুর রহমান মজুমদার ও লাল মনি সাহা জানান, ২০১২ সালে ১৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা জামানাত নিয়ে ৭টি দোকান ভাড়া দেয়া হয়। দু’বছর পর পর চুক্তিপত্র নবায়নের শর্ত থাকলেও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ তা নবায়ন না করে চুক্তিপত্রে উল্লেখিত হারে রশিদের মাধ্যমে ভাড়া আদায় করছে। চুক্তি অনুযায়ী জামানতের টাকা ফেরত দিয়ে ৩ মাস পূর্বে ভাড়াটিয়াদের দোকান ছেড়ে দেয়ার জন্য নোটিশ প্রদানের কথা থাকলেও শর্ত ভঙ্গ করে জামানতের টাকা না দিয়েই মাত্র ১ মাস সময় দিয়ে ডেপুটি কমান্ডার দোকান ছাড়ার নোটিশ দিয়েছেন।

ওই ভাড়াটিয়ারা বর্তমানে উচ্ছেদ আতংকে দিন পার করছেন। দোকানে ঠিকমতো মালামাল উঠাতে পারছেন না। জীবনের সকল সঞ্চল বিনিয়োগসহ ব্যাংক লোন ও অন্যান্য ধার-দেনায় তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

এদিকে, নোটিশ দেয়ার ৪ মাস পরেও অগ্রীম জামানতের টাকা ফেরত না পেয়ে ভাড়াটিয়াগণ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের প্রশাসক ও লাকসাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ বিষয়ে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের প্রশাসক ও লাকসাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রফিকুল হক জানান, নন অফিসিয়ালি ভাড়াটিয়া ও মুক্তিযোদ্ধা নেতৃবৃন্দের বক্তব্য শুনেছি। উভয় পক্ষকে ডেকে বিষয়টি সুরাহার চেষ্টা করা হবে। নচেৎ আইনী প্রক্রিয়া সমাধা হবে।

লাকসাম উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের কমান্ডার আবদুল বারী মজুমদার জানান, আমি অসুস্থ হয়ে বাড়িতে আছি। দোকানদারদের টাকা অবশ্যই ফেরত দেয়া হবে। বিষয়টি দেখার জন্য ডেপুটি কমান্ডার আমিন উল্যাহকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: