২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

সিপিবির আন্তর্জাতিক সেমিনারে শোষণমুক্ত সমাজ গড়ার ডাক


স্টাফ রিপোর্টার ॥ সমাজতন্ত্রের লাল পতাকা উর্ধে তুলে শোষণমুক্ত সমাজ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন উপমহাদেশের বিভিন্ন দেশের কমিউনিস্ট পার্টির নেতৃবৃন্দ, দেশের শীর্ষ বামপন্থী রাজনীতিবিদ ও বুদ্ধিজীবীরা। অক্টোবর সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের শতবর্ষ উপলক্ষে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) উদ্যোগে শুক্রবার ঢাকার তোপখানা রোডের বিএমএ মিলনায়তনে ‘সমকালীন পুঁজিবাদ ও অক্টোবর বিপ্লবের প্রাসঙ্গিকতা’ শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক সেমিনারে তারা এই আহ্বান জানান।

সেমিনারে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য হায়দার আকবর খান রনো। সেমিনারে বক্তব্য রাখেন, ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি-মার্কসবাদীর (সিপিআইএম) পলিটব্যুরো সদস্য বৃন্দা কারাত, ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিআই) কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রবোধ পা-া, নেপালের কমিউনিস্ট পার্টির (ইউএমএল) কেন্দ্রীয় নেতা বিজয় বাহাদুর কুনাড়, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা মনজুরুল আহসান খান, ভাষা সংগ্রামী আহমদ রফিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী, অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার সমন্বয়ক সাইফুল হক। সেমিনার পরিচালনা করেন সিপিবি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হাসান তারিক চৌধুরী।

সেমিনারে বৃন্দা কারাত বলেন, ধর্মবর্ণ, লিঙ্গভেদ, জাতপাতের নামে যে বৈষম্য সমাজে চলছে তার পরিচালক নয়া উদারনীতিবাদ। পৃথিবীতে বৈষম্য এমন জায়গায় পৌঁছেছে যে, ৩.৮ বিলিয়ন মানুষের সম্পদের সমান মাত্র আট ব্যক্তির সম্পদ। যেখানে মানব সমাজে উৎপাদন ব্যবস্থার এত উন্নতি হয়েছে সেখানে খাদ্যের অভাবে মানুষ মারা যাবে এটা বরদাশত করা যায় না। রুশ বিপ্লব দেখিয়েছিল মানুষের মধ্যে ভেদাভেদ, বৈষম্য মিটিয়ে দেয়া সম্ভব। আজকের দুনিয়ায় এ কারণেই রুশ বিপ্লব প্রাসঙ্গিক। তিনি বলেন, ভারতের বহুত্ববাদী সমাজে সাম্প্রদায়িক হিন্দুত্ববাদী শক্তির যে উত্থান ঘটছে তার দ্বারা গোটা উপমহাদেশ আক্রান্ত হবে। শ্রমিকশ্রেণীকে অক্টোবর বিপ্লবের শিক্ষায় দীক্ষিত করে তার নেতৃত্বে এই অবস্থার আমূল পরিবর্তন ঘটাতে হবে।

প্রবোধ পা-া তার বক্তব্যে বলেন, লগ্নিপুঁজির বিরুদ্ধে যে সংগ্রাম এই সংগ্রাম সারা দুনিয়ার মেহনতি মানুষকে আজ এক করেছে। অক্টোবর বিপ্লবের শতবর্ষে পৃথিবীর সর্বত্র সমাজতন্ত্রীদের লাল পতাকার মিছিল প্রমাণ করেছে এই যুগ সমাজতন্ত্রের যুগ। পুঁজিবাদের পতন শুধু অনিবার্যই নয়, অপরিহার্য বটে। তিনি সারা দুনিয়ার মার্কসবাদীদের পারস্পরিক সহযোগিতা ও সংহতি জোরদার করার আহ্বান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, চলমান পুঁজিবাদী ব্যবস্থাকে সংশোধনের কোন সুযোগ নেই। মানুষের ওপর শোষণ ও নির্যাতন বন্ধে তাই সমাজতন্ত্রই ভরসা। এজন্য লাল পতাকাকেই উর্ধে তুলে ধরতে হবে। তিনি বলেন, সোভিয়েত ইউনিয়নসহ সমাজতান্ত্রিক দেশগুলোতে মানুষের ওপর মানুষের প্রভুত্বের অবসান ঘটেছিল। শুধু অর্থনৈতিক শোষণ নয়, অন্যান্য ধরনের সামাজিক শোষণেরও অবসান ঘটেছিল। এসব দৃষ্টান্ত পুঁজিবাদ-সাম্রাজ্যবাদের অধীন দেশসমূহেও প্রগতিশীল ধ্যানধারণা, চিন্তাচেতনাকে নতুন ও উন্নতস্তরে উন্নীত করতে সাহায্য করেছিল।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: