১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশের পাশে থাকার আশ্বাস ৩ ব্রিটিশ এমপির


নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ, ১০ নবেম্বর ॥ আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের অবস্থা সরেজমিন পর্যবেক্ষণ করতে বাংলাদেশ সফররত ব্রিটিশ পার্লামেন্টের তিন এমপি ও চার সিটি কাউন্সিলরকে হবিগঞ্জে জাঁকজমকপূর্ণ সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। লন্ডন প্রবাসী ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী রোটারিয়ান আবুল কাসেমের ব্যক্তিগত প্রচেষ্টা ও উদ্যোগে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে জেলা শহরের ‘আমিরচাঁন কমপ্লেক্স’ অডিটরিয়াম হলে এ সংবর্ধনা দেয়া হয়। এ উপলক্ষে আয়োজন করা হয় সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট রোটারিয়ান ও প্রাক্তন পৌর চেয়ারম্যান শহীদ উদ্দিন চৌধুরী। প্রবাসী আবুল কাসেম ও বিশিষ্ট সংস্কৃতিকর্মী রোটারিয়ান শর্বানী দত্তের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এমএ মুনিম চৌধুরী বাবু এমপি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ডাঃ মুশফিকুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ ফজুলর জাহেদ পাবেল, সহকারী পুলিশ সুপার (উত্তর সার্কেল) মোঃ রাসেলুর রহমান। অনুষ্ঠানে ম্যানচেস্টার সেন্ট্রাল আসনের এমপি লুসি পাওয়েল, পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিক বার্মিংহাম লেডিওড আসনের এমপি শাবানা মাহমুদ ও ম্যানচেস্টার উইটিটেন আসনের এমপি জেফ স্মিথ, ব্রিটিশ কাউন্সিলর লুৎফুর রহমান, কাউন্সিলর আবিদ চোহান, কাউন্সিলর বাসাত শেখ ও কাউন্সিলর আলী ইলিয়াছকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন ইউকে নর্থওয়েস্ট শাখার সভাপতি ময়নুল আমীন বুলবুল, জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের কমান্ডার এ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী পাঠান, বিশিষ্ট সাংবাদিক রোটারিয়ান হারুনুর রশীদ চৌধুরী, জেলা আইনজীবী পরিষদের সভাপতি এ্যাডভোকেট আফিল উদ্দিন, দৈনিক সমাচার সম্পাদক গোলাম মোস্তফা রফিক, কবি ও সাহিত্যিক তাহমিনা বেগম গিনি প্রমুখ। ব্রিটিশ পার্লামেন্টের তিন এমপি ও কাউন্সিলরগণ উপস্থিত সব অতিথির সঙ্গে একে একে কুশল বিনিময় করেন। এরপর শুরু হয় আলোচনা পর্ব। এতে বক্তারা সরকারের ডিজিটাল প্রযুক্তির আওতায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকা- তুলে ধরেন। পাশাপাশি চলমান সঙ্কট রোহিঙ্গা ইস্যুও আলোচনায় উঠে আসে। রোহিঙ্গা মুসলমানদের বাংলাদেশ সরকার আশ্রয় এবং খাদ্যসহ অন্যান্য মৌলিক সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, তাদের মিয়ানমার ফিরিয়ে না নিলে অচিরেই বাংলাদেশ সরকারকে এক ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হতে পারে। বক্তারা তিন এমপি ও কাউন্সিলরদের মাধ্যমে ব্রিটিশ সরকারের হস্তক্ষেপ চান। রোহিঙ্গাদের তাদের দেশে ফেরত পাঠাতে মিয়ানমারের প্রতি জোরালো চাপ প্রয়োগের অনুরোধ জানান। ব্রিটিশ ৩ এমপি ও কাউন্সিলরগণও বক্তাদের সঙ্গে একমত পোষণ করেন। বিষয়টি ব্রিটিশ সরকারকে অবহিত করার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ারও আশ্বাস দেন তারা। অনুষ্ঠানে তিন ব্রিটিশ এমপি ও ৪ কাউন্সিলরকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। এই পর্ব শেষে রাত পৌনে ১২টার দিকে সংবর্ধিত ব্রিটিশ এমপি ও কাউন্সিলরসহ আমন্ত্রিত অতিথিরা নৈশভোজে অংশ নেন। পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন অতিথিরা।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: