২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

আকস্মিক সৌদি আরব সফরে ফরাসী প্রেসিডেন্ট


সৌদি আরবে এক অনির্ধারিত সফরের শুরুতে ফরাসী প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন বলেছেন, তিনি লেবাননের স্থিতিশীলতার ওপর জোর দিবেন। জীবন শঙ্কায় গত শনিবার রিয়াদে সরাসরি টেলিভিশন সম্প্রচারে পদত্যাগের ঘোষণা দেন লেবানিজ প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরি। তবে তিনি সৌদি চাপে পদত্যাগ করেছেন বলে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যাপক সন্দেহ-সংশয়ের জন্ম নেয়। Ñবিবিসি অনলাইনের।

ম্যাক্রন বলেন, সৌদি নেতৃবৃন্দের সঙ্গে তিনি যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়ামেন নিয়েও কথা বলবেন। দেশটিতে সাহায্য পৌঁছানোর সীমান্ত-সংলগ্ন সব পথ বন্ধ করে দিয়েছে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট। ইয়ামেন থেকে রিয়াদে একটি দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হলে সোমবার এই অবরোধ আরোপ করা হয়। যদিও সৌদি রাজধানীর নিকটবর্তী এলাকায় ক্ষেপণাস্ত্রটি প্রতিহত করতে সক্ষম হয়। হামলার জন্য ইরান-সমর্থিত হিজবুল্লাহকে দায়ী করছে সৌদি আরব। এদিকে যদি অবরোধ উঠিয়ে নেয়া না হয় কিংবা ত্রাণ সরবরাহ বন্ধ থাকে তবে ইয়ামেন পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিন দুর্ভিক্ষের মুখোমুখি হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে জাতিসংঘ। এতে অন্তত কয়েক লাখ লোক খাদ্যাভাবের শিকার হবেন।

সর্বশেষ খবরে জানা গেছে, সৌদি আরব বৃহস্পতিবার তার নাগরিকদের অতিসত্বর লেবানন ছাড়তে নির্দেশ দিয়েছে। সৌদি ও ইরানের সংঘাতে নিজেদের দেশও জড়িয়ে পড়ছে বলে শঙ্কাবোধ করছেন লেবাননের বহু নাগরিক। রিয়াদের উদ্দেশে রওনা দেয়ার আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে সৌদি সিংহাসনের উত্তরসূরি মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে মুখোমুখি বৈঠকে বসার কথা জানিয়েছেন ম্যাক্রন। তিনি আরও বলেন, আমি চাই, লেবাননের প্রতিটি রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব স্বাধীনভাবে নিজ দেশে বসবাস করবেন। ফরাসী প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, তিনি অনানুষ্ঠানিকভাবে সাদ হারিরির সঙ্গে কথা বলেছেন। পদত্যাগের পর হারিরি নতুন করে কোন বক্তব্য দেননি। তবে তার দফতর থেকে জানা যায়, তিনি রিয়াদে বিদেশী কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠক চালিয়ে যাচ্ছেন।

সৌদিতে লেবানন ত্যাগের নির্দেশ ॥ লেবাননে বসবাসরত সব সৌদি নাগরিককে অবিলম্বে দেশটি ত্যাগ করার নির্দেশ দিয়েছে সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বৃহ¯পতিবার এক বিবৃতি প্রকাশ করে ওই নির্দেশ দেয়া হয়। বিবৃতিতে একই সঙ্গে নতুন করে কোন সৌদি নাগরিককে লেবানন সফরে যাওয়া থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানানো হয়েছে। সৌদি আরব সফরে গিয়ে সাদ হারিরি লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেয়ার কয়েক দিনের মধ্যে এ নির্দেশনা জারি করল সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

হারিরি গৃহবন্দী ॥ সৌদি আরব সাদ আল-হারিরিকে গৃহবন্দী করে রেখেছে বলে ধারণা লেবানন সরকারের। দেশটির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুই শীর্ষ সরকারী কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বলেছেন, তাদের ধারণা আটক অবস্থায় জোর করেই লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে পদত্যাগের ঘোষণা আদায় করা হয়েছে। প্রাণনাশের আশঙ্কার কথা জানিয়ে গত সপ্তাহের শুরুতে পদত্যাগের ঘোষণা দেন লেবাননের প্রধানমন্ত্রী সাদ। এজন্য ইরান ও হিজবুল্লাহকেও দায়ী করেন তিনি। তেহরান এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, ইসরাইল, যুক্তরাষ্ট্র ও সৌদি আরবের সঙ্গে মিলে মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনা বাড়ানোর ষড়যন্ত্রেই সাদ পদ ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। সোমবার সৌদি আরবের গাল্ফ এ্যাফেয়ার্স মন্ত্রী থামের আল সাবহান এক টেলিভিশন সাক্ষাতকারে লেবানন তার দেশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে বলেও অভিযোগ করেন। সাদ আগে থেকেই সৌদি আরবের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত। গত বছরের ডিসেম্বরে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেয়ার আগেও তিনি ২০০৯ থেকে ২০১১ পর্যন্ত একদফা লেবাননের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকদফা সৌদি আরব সফর করা হারিরির পদত্যাগের ঘোষণাটিও রিয়াদে রেকর্ড করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।