২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সিপিএ’র ২২তম চেয়ারপার্সন এমিলিয়া


১ নবেম্বর থেকে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শুরু হওয়া কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি এ্যাসোসিয়েশনের ৬৩তম বর্ণাঢ্য আয়োজন ৭ নবেম্বর শেষ হয়। সারা বাংলাদেশে তোলপাড় করা রোহিঙ্গা সঙ্কটের প্রয়োজনীয় সমাধানে অতি সত্বর পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে ৭ দিনব্যাপী এ সম্মেলনের কার্যক্রমের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়। প্রতিটি সম্মেলনের উল্লেখযোগ্য এবং গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়ে থাকে পুরনো কমিটি বাতিল করে নতুন নির্বাহী সদস্যের নাম ঘোষণা করা। এবারের সম্মেলনেও নতুন কমিটির সংশ্লিষ্টদের সামনে উপস্থাপন করা হয়। আর্থ-সামাজিক আর রাজনীতির ক্ষেত্রে নারীর ক্ষমতায়ন বর্তমান বিশ্বের একটি বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ। আর এসব আন্তর্জাতিক ফোরামের গঠনতন্ত্রে নারী নেতৃত্ব লিঙ্গ সমতার এক অনিবার্য ইতিবাচক পদক্ষেপ হিসেবে সঙ্গত কারণেই বিবেচিত হতে পারে। সিপিএর বৃহৎ আর মহৎ কার্যক্রমের গত তিন বছরের মূল নেতৃত্বে ছিলেন বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন। প্রতি তিন বছর অন্তর এই আন্তর্জাতিক কমনওয়েলথ সংগঠনটিতে নতুন নেতৃত্ব নির্বাহী কমিটি সংগঠন পরিচালনার দায়িত্বে নির্বাচিত হন সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটাধিকারের ভিত্তিতে। পর পর দু’বার সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটের ভিত্তিতে নারী প্রতিনিধি মূল আসনে অধিষ্ঠিত হন। এই আনুষ্ঠানিক সম্মেলন কেন্দ্রের ক্ষুদ্র পরিসরে মোট তিনজন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদের জন্য প্রতিনিধিদের ভোটের মুখোমুখি হন। অংশগ্রহণকারী প্রার্থীদের মধ্যে ইমিলিয়া সর্বাধিক ভোট পেয়ে সংগঠনের নয়া চেয়ারপার্সন নির্বাচিত হন। ক্যামেরুনের ডেপুটি স্পীকার লিফাফা বিদায়ী কমিটির ভাইস চেয়ারপার্সন হিসেবে গত ৩ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। রাজনীতিতে নারীদের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ এবং ক্ষমতায়ন লিঙ্গ সমতাভিত্তিক বিশ্বব্যাপী রাষ্ট্রীয় কাঠামোতে জোরালো ভূমিকা রাখার সম্ভাবনাময় ইঙ্গিতই বহন করে। যা শুধু অভ্যন্তরীণ সংসদীয় ব্যবস্থাতেই নয় বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটেও এর তাৎপর্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সমাজের প্রায়ই অর্ধেক গোষ্ঠী নারী জাতি যদি জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তাদের সময়োপযোগী অবদান রেখে যেতে পারে তাহলে সমতাভিত্তিক প্রেক্ষাপটে তো বটেই উপরন্তু আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও যুগান্তকারী ভূমিকা রাখতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টায় লিপ্ত হবে। যার প্রভাব পড়বে উন্নয়নের বিভিন্ন সূচকে যা নারী-পুরুষের সমান অধিকার, স্বাধীনতা, অর্জন সর্বোপরি কর্তৃত্বের কাঠামোরও এক যুগোপযোগী সংযোজন। এই সমতাভিত্তিক ধারা নিরন্তর হলে নারী-পুরুষের বৈষম্য, ফারাক কিংবা তারতম্যের মতো দৃষ্টিকটু ব্যবধান বিলুপ্ত হতে সময় লাগবে না। বিদায়ী চেয়ারপার্সন বাংলাদেশের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন নতুন নেতৃত্ব সিপিএর ২২তম চেয়ারম্যান ইমিলিয়াকে আন্তরিক অভিবাদন জানিয়ে নবগঠিত কমিটির এই যাত্রাপথকে স্বাগত জানান। ইমিলিয়া এই নয়া কমিটির মূল দায়িত্বভার নিতে গিয়ে ক্যামেরুনের জনগণকে অভিনন্দন এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। নারী-পুরুষের মিলিত শুভ উদ্যোগে সারা বিশ্বের মঙ্গলযাত্রা অবারিত হোক, নিরাপদ আর নির্বিঘেœ আন্তর্জাতিক অঙ্গনের সুস্থ আর স্বাভাবিক পরিবেশ বজায় থাকুনÑ এই প্রত্যাশা সংশ্লিষ্ট সবার।

অপরাজিতা প্রতিবেদক