২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

হালকা শীতে ফ্যাশনেবল ফুলস্লিভ


বড় বড় গালা অনুষ্ঠান কিংবা কান চলচ্চিত্র উৎসবে বিশ্বের নামী দামী অভিনেত্রীদের দেখা যায় এরকম পোশাকে মোড়ানো। একে গাউনও বলা যায়। তাই এরকম পোশাক নিয়ে একটু বেশি উৎসাহ কাজ করছে সবার মাঝে। তাছাড়া হালকা শীতে স্বস্তিকর পোশাক পরতে আর তাতে ফুলস্লেভের বিকল্প নেই। তাই তরুণীদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে এটি।

ফুলস্লেভের ডিজাইনে এখন এসেছে নানান বৈচিত্র্য। সব ফুলস্লেভ এক নয়। সাধারণত গাউনের মধ্যে কোনটার ডিজাইন একেবারে সাদামাটা, কোনটা বেশ গর্জিয়াস, কোনটায় ব্যবহার করা হয়েছে কন্ট্রাস্ট। আবার সাদামাটা গাউনের ওপরের টপসে একটি বো লাগিয়ে গাউনকে স্টাইলিশ করা হয়েছে। কোন গাউনের কোমরে বেল্টজুড়ে দেয়া। এভাবে স্টাইলিশ এডিশন যোগ করে সিম্পল ফুলস্লেভকে ট্রেন্ডি করা হয়েছে।

ক্যাজুয়াল ফুলস্লেভের ফ্যাশন এখন তুঙ্গে। যারা ক্যাজুয়ালি যারা পরতে চান, তাদের মিডিয়াম লং গাউন পরাই ভাল। তবে ফুলস্লেভের লেন্থ যাই হোক না কেন, এর ডিজাইন আর প্যাটার্নে চাই ভিন্নতা। ক্যাজুয়ালি পোশাকের কোনটা এক পার্টের কাপড় দিয়ে তৈরি, কোনটা আবার কোমরের কাছে ইলাস্টিক লাগানো, যাতে দুটি পার্ট আলাদা মনে হয়। আবার কোনটার সঙ্গে কটিযুক্ত। কটি স্টাইলের গাউনগুলোতে কটি লাগানো আবার খুলে ফেলা দুটিই রয়েছে। কিছু রয়েছে বোতাম ছাড়া কটি, যেগুলো গাউনের ওপরে ক্র্যাপের মতো পরতে হয়। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই এসব গাউন স্লিভলেস।

বডি ফিটিং মাথায় না রেখে ফুলস্লেভ পোশাক কেনাটা বোকামি। তাই গাউন ডিজাইনের ক্ষেত্রে আগে মাথায় রাখতে হয় বডি ফিটিং। বডি শেপের সঙ্গে এ্যাডজাস্ট না হলে ভাল লাগবে না। আর এটাই ফুলস্লেভের বৈশিষ্ট্য। এ ছাড়া কোমরের একটু ওপর থেকে কুঁচি দেয়া যায়। তবে কোমরের নিচ থেকে কুঁচিই বেশি চলছে। গলার নক্সায় ভি। এ ছাড়া গলায় লেইস লাগাতে পারেন। বুকের নক্সা করতে পারেন প্লিট ভাঁজ ডিজাইন। হাতা সিøভলেস। আবার চওড়া লেইস দিয়ে করতে পারেন ঘটিহাতা। কোয়ার্টার হাতার মুখে লেইস এবং লং হাতার শেষে বোতামও দেয়া যায়। গাউনের নিচের দিকটা একটু ফোলা থাকলে ভাল দেখায়। আবার সামনে থেকে পেছনের দিক একটু বেশি লম্বা, এমন ডিজাইনও ভাল লাগে। সে ক্ষেত্রে নিচে দিতে পারেন শার্টিন কাপড়ের চিকন পাইপিন। জর্জেট কাপড় হলে নিচটা ভাঁজ করে ডাবল লেয়ার করা যায়।’

গাউনে এখন আসছে দেশিয় লুক। তাই গাউনকে দেশীয় উপযোগী করতে ফরমাল গাউনে কোয়ার্টার অথবা লং হাতা দেয়া যেতে পারে। তবে গাউনের কাপড়টা যেন অবশ্যই জর্জেট, ভেলভেট, নেট অথবা টিস্যুর হয়। নিচের দিকে থাকবে একটু রাউন্ড শেপ ও ফোলা। অনেকেই নিজের পছন্দমতো ফুলস্লেভ পোশাক বানিয়ে পরতে চান। কিছু কাপড় আছে যেগুলো এরকম পোশাকের জন্য বিশেষ উপযোগী। জর্জেট, নেট ও টিস্যু কাপড়ে তৈরি হয় সবচেয়ে ভাল গাউন। নিচের দিকে গাউনটা ফুলে সুন্দরভাবে সেট করার জন্য দিতে হবে ক্যানক্যান নামের এক ধরনের কাপড়। আর জর্জেট কাপড় দিয়ে বানাতে চাইলে নিচে দিতে পারেন সুতি কাপড়। এতে গাউনটা একটু মোটা হবে। শীত আসছে। চাইলে শীত নিবারণের জন্য গেঞ্জি (নিট) কাপড়ের গাউনও বেছে নিতে পারেন।

অনেকের ভাবেন ফুলস্লেভ পরলে হয়ত বেশি মোটা লাগবে বা খাটোদের আরও খাটো লাগবে। তাই ইচ্ছে থাকলেও এরকম পোশাক অনেকে কেনেন না। আসলে কিন্তু কাটছাঁটে একটু পরিবর্তন আনলে যে কোন গড়নেই বেশ মানাবে। কোমরের দিকটা ভারি হলে হাফ বডি স্টাইলে বানানো গাউন পরলে দেখতে ভাল লাগবে। তাহলে কোমরের চওড়া ভাবটা চোখে পড়বে না।

উচ্চতা একটু কম হলে একরঙা ফুলস্লেভগুলো বেছে নিন। লম্বা লাগবে। আর প্রিন্টের পরলে ছোট ছোট প্রিন্ট খুঁজে নিন। ভারি গড়ন হলে প্রিন্সেস লাইন স্টাইলে বানানোগুলো বেছে নিন। একটু লম্বা ও শুকনা দেখাতে সাহায্য করে এটি।

সামনের দিকে একটু ছোট আর পেছনের দিকে একটু বড় দেখতে ফুলস্লেভ পরুন। ভাল মানাবে।

যারা শুকনো বা হ্যাংলা শারীরিক গঠনের তারা উজ্জ্বল রঙের পোশাক বেছে নিন। একটু বড় ফুল বা ডিজাইনের গাউনে আপনাকে বেশ মানাবে।

শিফন জর্জেটের এর কাপড়ে গাউনগুলোই এবার সবচেয়ে বেশি চলছে। দেশীয় ছোঁয়া আনতে টাই ডাইয়ের ব্যবহার করা হয়েছে।

হালকা ঠান্ডা বাতাস আর মেঘমুক্ত আবহাওয়া এসবের কথা চিন্তা করে এবার গাউনগুলোতে উজ্জ্বল রঙের ব্যবহারই বেশি। তবে রাতের পার্টির জন্য কালো, নীল, মেরুন এই রংগুলোও চলছে।

আপনি চাইলে আনারকলি স্টাইলেও ফুলস্লেভ বানাতে পারেন। কিংবা কোমরে ভারি স্টোনের লেস দিয়েও এ পোশাক বানাতে পারেন।

কোথায় পাবেন? কেমন দামে?

দেশের প্রায় সব শপিংমলগুলোতেই আছে বাহারি রঙের, বাহারি ডিজাইনের ফুলস্লেভ। বসুন্ধরা সিটি, চাঁদনী চক, সীমান্ত স্কয়ার সবখানেই পাবেন পছন্দমতো পোশাকগুলি।

তাছাড়া দেশীয় ফ্যাশন হাউস আড়ং, রং, কে ক্র্যাফট, ফড়িং এগুলোতো তো আছেই। কাপড় ও ডিজাইন ভেদে এসব পোশাকের দাম পড়বে ৩ হাজার থেকে শুরু করে ২৫ হাজার পর্যন্ত। কাপড় কিনে বানাতে চাইলে নিউমার্কেট থেকে গজ কাপড় কিনে নিতে পারেন। সঙ্গে পছন্দমতো লেস।