২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

পুঁজিবাজারে লেনদেন বেড়েছে ১৩.৭০ শতাংশ


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বৃহস্পতিবার মূল্য সূচকের উত্থানে লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিন ডিএসইতে আগের দিনের তুলনায় ১৩ দশমিক ৭০ শতাংশ লেনদেন বেড়েছে। তবে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ শেয়ারের দরপতন হয়েছে। উভয় বাজারেই মূলত ব্যাংক খাতের কোম্পানিগুলোর দরবৃদ্ধির কারণে সূচকের উর্ধগতি দেখা গেছে। কারণ দু’একটি ছাড়া বাকি সবকটি ব্যাংকের দরই বেড়েছে। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে ব্যাংক খাতের মোট ৩১৫ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। যা মোট লেনদেনের ৪১ শতাংশ।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, বৃহস্পতিবার ডিএসইতে ৮৭০ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের তুলনায় ১০৪ কোটি ৯৪ লাখ টাকা বেশি। আগের দিন এ বাজারে ৭৬৫ কোটি ৬০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল। ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নেয় ৩২৫ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৩০, কমেছে ১৪০ এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৫টির শেয়ার দর।

বাজার বিশ্লেষকদের মতে, গত কয়েকদিন ধরে ব্যাংক খাতের কোম্পানিগুলোর চাহিদার বাড়ার পেছনে রয়েছে পরিচালনা পর্ষদে নিজেদের জায়গা পোক্ত করা। কারণ বেশ কিছু ব্যবসায়িক গ্রুপ নতুন করে শেয়ার কিনে পরিচালনা পর্ষদে স্থান পেতে উচ্চ দরে শেয়ার কিনছেন। যার কারণে ব্যাংকের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেড়েছে বেশি। ফলে প্রতিদিনই খাতটির দর বাড়ছে।

সকালে ইতিবাচক প্রবণতা দিয়ে শুরুর পর ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্যসূচক ৩৪ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ১৯৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ্ সূচক ৪ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ৩৪১ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচক ১৪ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২ হাজার ২৪৪ পয়েন্টে। ডিএসইতে খাত ভিত্তিক লেনদেনের চিত্র বিশ্লেষণে দেখা গেছে, দিনটিতে ব্যাংকের লেনদেন ছিল ৪১ শতাংশ। এরপরে ১০৭ কোটি টাকার লেনদেন করে সার্বিক লেনদেনের দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল প্রকৌশল খাতটি। মোট ১৪ শতাংশ শেয়ার লেনদেন হয়েছে খাতটির। ওষুধ এবং রসায়ন খাতের মোট লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৬২ কোটি ৮১ লাখ টাকা। যা মোট লেনদেনের ৮.২৫ ভাগ।

ডিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ সিটি ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, লঙ্কাবাংলা ফাইন্যান্স, ব্র্যাক ব্যাংক, কেয়া কসমেটিক, স্কয়ার ফার্মা, বেক্সিমকো ফার্মা, ইফাদ অটো, এক্সিম ব্যাংক ও আইডিএলসি।

দরবৃদ্ধির সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ রেকিট বেনকিসার, গ্লা´োমিথক্লাইন, জেমিনি সী ফুড, ইস্টার্ন কেবল, বিডি থাই, ইবনে সিনা, ন্যাশনাল টি, প্রাইম লাইফ ও ঢাকা ব্যাংক।

দর হারানোর সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ কাসেম ড্রাইসেল, ওয়াইম্যাক্স ইলেক্ট্রোড, স্কয়ার টেক্সটাইল, সাভার রিফ্যাক্টরিজ, স্কয়ার ফার্মা, গোল্ডেনসন, মুন্নু সিরামিক, মিরাকল ইন্ড্রাস্টিজ, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স ও এমারেল্ড অয়েল।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ৪৮ কোটি ২৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১০৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৯ হাজার ২০২ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৪৭ কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০৬, কমেছে ১১২ এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৯ কোম্পানির শেয়ার।

সিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো সিটি ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, কেয়া কসমেটিক, ওয়াইম্যাক্স ইলেক্ট্রোড, উত্তরা ব্যাংক, ইউসিবি, বিডি থাই, ন্যাশনাল ব্যাংক ও ফু-ওয়াং ফুড।