২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

স্বর্ণপদক জয়ী শূটার সাদিয়া চুলার আগুনে দগ্ধ, বার্ন ইউনিটে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন


স্বর্ণপদক জয়ী শূটার সাদিয়া চুলার আগুনে দগ্ধ, বার্ন ইউনিটে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গ্যাসের চুলার আগুনে দগ্ধ হয়ে জাতীয় দলের স্বর্ণপদক জয়ী শূটার সৈয়দা সাদিয়া সুলতানা এখন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ বার্ন ইউনিটে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। সম্ভাবনাময় এই শূটারের এ অবস্থায় উৎকণ্ঠিত তার পরিবার।

ঢাকা মেডিক্যালের বার্ন এ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের আবাসিক সার্জন ডাঃ হোসাইন ইমাম জানান, সাদিয়ার গলা, বুক ও হাত মিলিয়ে ২৫ শতাংশের মতো পুড়ে গেছে। এখনও তার অবস্থা সম্পর্কে কিছুই বলা যাচ্ছে না। রবিবার ড্রেসিংয়ের পর জানা যাবে অবস্থা কতটা গুরুতর।

সাদিয়ার ভাই সৈয়দ সাজ্জাদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ১৫ অক্টোবর রান্না করতে গিয়ে শরীরে আগুন লাগে সাদিয়ার। শুক্রবার রাতে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল থেকে সাদিয়াকে ঢাকা মেডিক্যালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি জানান, চুলা থেকে আগুন লাগে তার ওড়নায়। সেখান থেকেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে শরীরের বাঁ অংশে। সাজ্জাদ জানান, সোমবার তার অস্ত্রোপচার হবে।

২০১০ সালের কমনওয়েলথ শূটিং চ্যাম্পিয়নশীপে ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে সোনা জিতেছিলেন সৈয়দা সাদিয়া সুলতানা। দলগত ইভেন্টে দিল্লীর আসর থেকে সোনা জিতেছিলেন তিনি শারমিন আক্তার রক্তার সঙ্গে জুটি গড়ে। তার আগে ওই বছরই এসএ গেমসেও সোনা জিতেছিলেন তিনি একই ইভেন্টে। এরপর ২০১৩ সালে সবশেষ ১০ মিটার এয়ার রাইফেল থেকে সাফল্য পান বাংলাদেশ গেমসে। এরপর থেকেই শূটিংয়ের বাইরে ছিলেন সাদিয়া। গত চার বছর তিনি একেবারে আড়ালেই ছিলেন খেলার দুনিয়া থেকে। পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল তিনি অসুস্থ। যদিও শূটিং থেকে একেবারে মুখ ফিরিয়ে নেয়ার কারণটা রহস্যই থেকে গেছে। সেই রহস্যের মধ্যেই শনিবার হঠাৎ করে খবর আসে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের বার্ন ইউনিটে ভর্তি কমনওয়েলথ শূটিং চ্যাম্পিয়নশীপের এই সোনাজয়ী।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: