১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

কলাপাড়ায় আট কিলোমিটার বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত ॥ কুয়াকাটা সৈকত লন্ডভন্ড


কলাপাড়ায় আট কিলোমিটার বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত ॥ কুয়াকাটা সৈকত লন্ডভন্ড

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া ॥ তিন দিনের টানা বৃষ্টিপাত, নিম্নচাপ ও অমাবস্যার প্রভাবে কলাপাড়ার উপকূলীয় জনপদে অন্তত তিন হাজার কৃষক পরিবারে চরম অমানিশা নেমে এসেছে। অস্বাভাবিক জোয়ারের তান্ডবে সম্পুর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে অন্তত চার কিলোমিটার বেড়িবাঁধ। আংশিক বিধ্বস্ত হয়েছে আরও চার কিলোমিটার। কুড়িটি গ্রামের মানুষ পানিবন্দী দশায় পড়েছে। এসব গ্রামের আমন ফসলের ক্ষেত এখন পানির নিচে। অন্তত অর্ধশত পরিবারের ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। শত শত পরিবারে রান্না পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে।

এসব মানুষের অবর্ননীয় দুর্ভোগ এখন দূর্যোগে পরিণত হয়েছে। সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন লালুয়ার চারিপাড়া, মুন্সিপাড়া, নাওয়াপাড়া, চারিপাড়া, চৌধুরীপাড়া, বানাতিপাড়া, ১১ নং হাওলা, থঞ্জুপাড়া, পশুরবুনিয়া, বড় পাচনংসহ ১৫ টি গ্রাম এবং মহিপুরের নিজামপুর, সুধিরপুর, কমরপুর, পুরান মহিপুর গ্রামের মানুষ। এই দু’টি জায়গায় রামনাবাদ পাড়ের প্রায় চার কিলোমিটার এবং আন্ধারমানিক নদীতে প্রায় দুই কিলোমিটার বেড়িবাঁধ সম্পুর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়ে অস্বাভাবিক জোয়ারের পানিতে এখন ভাসছে।

জনপদ বাড়িঘর থেকে ফসলী জমি পর্যন্ত রক্ষা পায়নি। লালুয়ার নাওয়াপাড়া গ্রামের তফেল গাজী, রুবেল গাজী, হোসেন, আসমা ও তোফা হাওলাদারের বসতঘর পর্যন্ত লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। কারওটা ভেসে গেছে। তফেল গাজী এখন তার পরিজন নিয়ে আশ্রয় নিয়েছে মোশাররফ গাজীর বাড়িতে। আর তফেল গাজীর আশ্রয় জুটেছে আইয়ুব আলী হাওলাদারের বাড়ি। নিজামপুর গ্রামের সিদ্দিক মুন্সী জানান, তাদের ঘরবাড়ি জোয়ারের স্রোতে ভেসে গেছে। প্রায় ২০টি পরিবারের ঘরবাড়ি কমবেশি বিধ্বস্ত হয়েছে। নিজেরা বসবাসসহ গবাদিপশু হাসমুরগি নিয়ে এসব মানুষ চরম বিপদাপন্ন হয়ে পড়েছেন। কুয়াকাটায় অস্বাভাবিক জোয়ারের তান্ডবে সৈকতের গাছপালা লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। মিরাবাড়ি ও খাজুরায় বেড়িবাঁধের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। রিভার সাইটের স্লোপসহ মূলবাঁধের অর্ধেকটা সাগরে বিলীন হয়ে গেছে। কুয়াকাটার নারিকেল বাগান খ্যাত ফার্মস এন্ড ফার্মস এর ঐতিহ্যবাহী টিনশেড বাংলোটি শনিবার দুপুরের অস্বাভাবিক জোয়ারে বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। কুয়াকাটা পৌরএলাকার মানুষ রয়েছেন জলোচ্ছ্বাস আতঙ্কে। অধিকাংশ মানুষের দাবি এতো বেশি উচ্চতার জোয়ার তারা আগে কখনও দেখেননি। একদিকে বিরামহীন বৃষ্টিপাত, সঙ্গে পুবের দমকা ঝড়ো হাওয়ার পাশাপাশি নিত্যকার দুই দফা অস্বাভাবিক জোয়ারের প্লাবনে কলাপাড়ার মানুষ শঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। কলাপাড়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ তানভীর রহমান, থানার ওসি মোঃ আলাউদ্দিন শনিবার দুপুর থেকে পানিবন্দীদশা মানুষের দুরবস্থা স্বচক্ষে পরিদর্শন করছেন। সেইসঙ্গে শুকনো খাবার বিতরন করছেন। পানি উন্নয়ন বোর্ড কলাপাড়ার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবুল খায়ের জানান, বেড়িবাঁধ বিধ্বস্তের বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: