১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

পাকিস্তানের ষড়যন্ত্রে রোহিঙ্গাদের উপর আক্রমণ হয়েছে ॥ মতিয়া চৌধুরী


পাকিস্তানের ষড়যন্ত্রে রোহিঙ্গাদের উপর আক্রমণ হয়েছে ॥ মতিয়া চৌধুরী

নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর ॥ বাংলাদেশের অর্থনীতি ভেঙ্গে ফেলতে পাকিস্তানের ষড়যন্ত্রে মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিমদের উপর আক্রমণ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী। তিনি আজ শুক্রবার সকালে তার নির্বাচনী এলাকা শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার সন্ন্যাসীভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সোলার ল্যাম্প বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওই কথা বলেন। ওইসময় তিনি বলেন, যখন পদ্মা সেতু নিয়ে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি, তখন পাকিস্তান দেখলো যে বাংলাদেশকে আর ঠেকানো গেল না। মিয়ানমারের নানান মহলের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক আছে। হঠাৎ এক রাতে সেনারা রোহিঙ্গাদের উপর আক্রমণ করল। রোহিঙ্গারা দলে দলে বাংলাদেশে আসল। মোট প্রায় ১০ লাখ লোক। তারা ভাবল যে, বাংলাদেশের অর্থনীতি ভেঙ্গে পড়বে। কিন্তু ভেঙ্গে পড়েনি। আমাদের অর্থনীতিকে তারা মোটেও নষ্ট করতে পারবে না। আমাদের সাময়িক কিছু অসুবিধা হতে পারে, সে অসুবিধাগুলো আমরা কাটিয়ে উঠছি।

রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে কিছু এগোচ্ছে না বলে যাঁরা অভিযোগ করেন তাঁদের সমালোচনা করে মন্ত্রী বলেন, এর আগে তো মিয়ানমার ‘হ্যাঁ’ শব্দটাও বলেনি। উল্টো বলেছিল, তাঁরা এ দেশের নাগরিকই না। তাঁদের আমরা নেব না। এখন তাঁরা বলতে বাধ্য হচ্ছে। কারণ আন্তর্জাতিক কূটনীতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সফলভাবে এগিয়ে যাচ্ছেন।

মুক্তিযুদ্ধের সময়ের কথা উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী বলেন, আমরাও একটা দেশে আশ্রয় নিয়েছিলাম। তাই রোহিঙ্গা যখন আমাদের কাছে আশ্রয় নিতে এসেছিল, তখন আমরা তাদের ফিরিয়ে দিতে পারিনি। আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা কীভাবে রোহিঙ্গাদের বুকে টেনে নিয়েছেন, তা আপনারা দেখেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজকে মানবতার মাতা। সেজন্যই তিনি ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন। ১৯৭৮ সাল থেকে রোহিঙ্গারা এলেও জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া, এরশাদ সাহেব কিছুই করেননি বলে অভিযোগ করেন কৃষিমন্ত্রী।

এদিন মন্ত্রী উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের ২৫২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ২ হাজার ৫৬০ শিক্ষার্থী, ১৮০ জন পিয়ন ও আয়া, ৩৭৭ জন ইমাম, ৩৫১ জন মুয়াজ্জিন, ৮ জন ধাত্রী, ৪৪ জন সেবায়েত ও পুরোহিতের মধ্যে ৩ হাজার ৪৪৮টি সোলার ল্যাম্প বিতরণ করেন।

ওই সময় তার সাথে জেলা প্রশাসক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন, পুলিশ সুপার রফিকুল হাসান গণি, সেনাবাহিনীর ডিজেল প্ল্যান প্রকল্পের কর্মকর্তা মোঃ শামীম, নালিতাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম মুখলেছুর রহমান রিপন, উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা তরফদার সোহেল রহমান, জেলা খামারবাড়ির উপ-পরিচালক আশরাফ উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিয়াউল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ফজলুল হক, পৌরসভার মেয়র আবু বক্কর সিদ্দিকসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: