২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

শিল্পকলায় তিনদিনের জাতীয় আবৃত্তি কর্মশালা শুরু


শিল্পকলায় তিনদিনের জাতীয় আবৃত্তি কর্মশালা শুরু

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কবিতাপ্রেমীদের স্বতঃস্ফূর্ত আগমনে পাত্তা পেল না সকালের বৈরী আবহাওয়া। বৃষ্টির শব্দ ছাপিয়ে উচ্চকিত হলো আবৃত্তিশিল্পীদের কলরব। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা আঙিনা যেন হয়ে ওঠে সুন্দরের প্রতিচ্ছবি। চোখে পড়ে সারাদেশের দুইশত আবৃত্তি সংগঠনের ৬ শতাধিক সদস্যের সমাগম। আবৃত্তি কর্মশালা উপলক্ষে নানা অঞ্চল থেকে এসেছেন এসব নবীন আবৃত্তিশিল্পী। প্রতিটি দল থেকে একজন নারীসহ মোট তিনজন করে যোগ দিয়েছেন এ কর্মশালায়। সবার অভিব্যক্তিতে ধরা দেয় কবিতাপাঠে নিজেকে আরও বেশি শাণিত করার প্রত্যয়। কর্মশালার সঙ্গে আয়োজনে যুক্ত হয়েছে প্রযোজনাভিত্তিক আবৃত্তি পরিবেশনা। ‘সবার উপরে মানুষ সত্য তাহার উপর নাই’ স্লোগানে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হলো তিনদিনের জাতীয় প্রায়োগিক আবৃত্তি কর্মশালা। আয়োজক বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদ। সহযোগিতায় রয়েছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি।

জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনের সামনে বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের সঙ্গে বেলুন উড়িয়ে উৎসব উদ্বোধন করেন সংস্কৃতিমন্ত্রী ও আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সভাপতি আসাদুজ্জামান নূর। এ সময় সংগঠনের পতাকা উত্তোলন করেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আহ্কাম উল্লাহ্। জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে সত্যেন সেন শিল্পীগোষ্ঠীর শিল্পীরা। নাট্যশালা মিলনায়তনে উদ্বোধনী আলোচনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সভাপতিম-লীর সদস্য ঝুনা চৌধুরী এবং পথনাটক পরিষদের সভাপতি মান্নান হীরা। পরিষদের সভাপতিম-লীর সদস্য বেলায়েত হোসেনের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আহ্কাম উল্লাহ্।

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, আবৃত্তির জন্য কণ্ঠ ও উচ্চারণ ভাল হওয়ার পাশাপাশি কবিতার গভীরে প্রবেশ করাটা প্রয়োজন। কবিতা মানবিক, অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক সমাজ গঠনের আদর্শ তৈরি করে। আবৃত্তিকর্মীরা কবিতার মাধ্যমে জীবন ও সময়ের বাস্তব সত্যকে উচ্চারণ করে। আর কবিতা কখনও মিথ্যা বলে না। আবৃত্তিকর্মীরা সোচ্চার বলেই এ দেশে জঙ্গীবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারেনি।

উদ্বোধনী আনুষ্ঠানিকতা শেষে ছিল কর্মশালা। প্রথম অধিবেশনে ‘ভূমিকা, কর্মশালা, পরিচিতি ও ধারণা’ শীর্ষক কর্মশালায় প্রশিক্ষণ দেন গোলাম সারোয়ার, দ্বিতীয় অধিবেশনে ‘বাক্যপ্রতঙ্গের ব্যবহার’ বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেন ভাস্বর বন্দোপাধ্যায়, ‘আকর্ষণীয় ও প্রাণবন্ত মহড়া অনুষ্ঠান’ বিষয়ে প্রশিক্ষণ নেন রূপা চক্রবর্তী এবং আশরাফুল আলম প্রশিক্ষণ দেন ‘কবিতা নির্বাচন বিষয় : মুক্তিযুদ্ধ’ বিষয়ে।

এদিন সন্ধ্যায় পরিবেশিত হয় আবৃত্তি প্রযোজনা। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ধ্বনি মঞ্চায়ন করে সৈয়দ শামসুল হকের ‘পরাণের গহীন ভিতর’। মুক্তধারা সংস্কৃতিচর্চা কেন্দ্র মঞ্চস্থ করে ‘প্রীতিভা-ারের চাবি’।

আজ শুক্রবার অনুষ্ঠিত হবে আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের বার্ষিক সম্মেলন। শুক্র ও শনিবার কর্মশালায় বিষয়ভিত্তিক প্রশিক্ষণ দেবেন অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ, অধ্যাপক নিরঞ্জন অধিকারী, মীর বরকত, অধ্যাপক রূপা চক্রবর্তী, গোলাম সারোয়ার, হাসান আরিফ, ইশরাত নিশাত, কামালউদ্দিন কবির, শিমুল মুস্তাফা, আহ্কাম উল্লাহ্, মাহিদুল ইসলাম ও রাহুল আনন্দ।

গণগ্রন্থাগারে সায়েন্স ফিকশন বইমেলা

শাহবাগের সুফিয়া কামাল জাতীয় গণগণগ্রন্থাগার প্রাঙ্গণে চতুর্থবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো সায়েন্স ফিকশন বইমেলা। ‘এসো এসো, সায়েন্স ফিকশন বইমেলাতে এসো; হারিয়ে যাও কল্পবিজ্ঞানের অজানা জগতে’ প্রতিপাদ্যে বৃহস্পতিবার বিকেলে নয় দিনের এ মেলার সূচনা হয়। ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত চলমান এ বইমেলার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ সায়েন্স ফিকশন সোসাইটি (বিএসএফএস)।

প্রধান অতিথি হিসেবে বইমেলা উদ্বোধন করেন কথাসাহিত্যিক ও কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট মনোশিক্ষাবিদ ও কথাসাহিত্যিক অধ্যাপক ড. মোহিত কামাল এবং গণগ্রন্থাগার অধিদফতরের মহাপরিচালক আশীষ কুমার সরকার। সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ সায়েন্স ফিকশন সোসাইটির সভাপতি কল্পবিজ্ঞান লেখক মোশতাক আহমেদ।

মেলা থেকে ২৫ শতাংশ মূল্যছাড়ে বই সংগ্রহ করতে পারবেন পাঠকরা। উৎসবের সর্বোচ্চ সংখ্যক বই ক্রেতাকে বিশেষ পুরস্কারে ভূষিত করা হবে। ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে এ বইমেলা। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে।

যাত্রা ফেডারেশনের দ্বিতীয় সম্মেলন

শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত হলো বাংলাদেশ যাত্রা ফেডারেশনের দ্বিতীয় জাতীয় সম্মেলন। বৃহস্পতিবার সকালে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। বিশেষ অতিথি ছিলেন অধ্যাপক নিরঞ্জন অধিকারী, বাচিকশিল্পী গোলাম সারোয়ার, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সভাপতিম-লীর সদস্য ঝুনা চৌধুরী ও সেক্রেটারি জেনারেল আকতারুজ্জামান, বাংলা একাডেমির উপপরিচালক তপন বাগচী। সভাপতিত্ব করেন যাত্রা ফেডারেশনের সাম্মানিক সভাপতি তাপস সরকার এবং কাউন্সিল পর্বে সভাপতিত্ব করেন ফেডারেশনের সভাপতি মৃণাল কান্তি ভট্টাচার্য।

দুই বাংলার থিয়েটার ক্যাম্প

সমবেত শিল্প নিয়ে এসো সম্মিলিত প্রতিরোধে প্রতিপাদ্যে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আজ শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে দুই বাংলার থিয়েটার ক্যাম্প। ঢাকার নাট্যদল শব্দ নাট্যচর্চা কেন্দ্র আয়োজিত এ কর্মশালায় অংশ নেবেন বাংলাদেশ ও ভারতের প্রখ্যাত অভিনেতা, নাট্য নির্দেশক, সংগঠক ও নাট্য ব্যক্তিত্বরা। থিয়েটার ক্যাম্প সুচিতে থাকছে শান্তি নিকেতন, জোড়াসাঁকো ঠাকুর বাড়ি, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল পার্ক ও রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয় ভ্রমণসহ ‘দুই বাংলার সাম্প্রতিক নাট্যচর্চা’ এবং ‘আগামী দিনের বাংলা নাটক : আমাদের প্রত্যাশা’ শীর্ষক দুটি সেমিনার।

বৃহস্পতিবার বিকেলে শিল্পকলা একাডেমির মহড়া কক্ষে শব্দ নাট্যচর্চা কেন্দ্র আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। এতে থিয়েটার ক্যাম্পের কর্মসূচী সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন শব্দ নাট্যচর্চা কেন্দ্রের দলপ্রধান খোরশেদুল আলম। এছাড়া আলোচনায় অংশ নেন নাট্যজন আতাউর রহমান, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সেক্রেটারি জেনারেল আকতারুজ্জামান, ঢাকা থিয়েটারের কায়েজীদ প্রমুখ।

আজ শুক্রবার বেলা ২টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পশ্চিমবঙ্গের গোবরডাঙার বিচিত্রা সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে নাট্য মঞ্চায়নের পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হবে থিয়েটার। মঞ্চস্থ হবে দ্য বাটারফ্লাই পরিবেশিত নাটক ‘নকশা’।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: