২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

নজরুলের জীবন ও কর্ম নিয়ে তথ্যচিত্র


নজরুলের জীবন ও কর্ম নিয়ে তথ্যচিত্র

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আপন সৃষ্টিকর্মের মতোই বৈচিত্র্যময় ছিল নজরুলের জীবনপরিক্রমা। যে জীবনে লিখেছেন অবিনাশী গান, কবিতা, গল্প-উপন্যাস; সেই জীবনে কখনও তিনি বিদ্রোহী, কখনও সৈনিক, কখনও মসজিদের মুয়াজ্জিন আবার কখনও বা সাংবাদিক। এভাবেই নানা পথে ধাবমান জাতীয় কবির জীবনের সঙ্গে তাঁর বৈভবময় সৃষ্টিকর্মের আলোয় নির্মিত হয়েছে তথ্যচিত্র। পশ্চিমবঙ্গের নির্মাতা মজিবর রহমানের চিত্রনাট্য, গ্রন্থনা ও নির্দেশনায় নির্মিত তথ্যচিত্রটির শিরোনাম ‘নজরুলের জীবন পরিক্রমা’। কাজী নজরুল ইসলামের জীবনভিত্তিক সে তথ্যচিত্রটি সংগ্রহ করেছে নজরুল ইনস্টিটিউট। তথ্যচিত্রটির উদ্বোধনী প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হলো মঙ্গলবার। প্রায় দুই ঘণ্টা ব্যাপ্তির তথ্যচিত্রটি ডিভিডি আকারে প্রকাশিত হয়েছে।

জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল স্মৃতি মিলনায়তনে এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। নজরুল ইনস্টিটিউট বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান এমিরেটাস অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জাদুঘরের ফয়জুল লতিফ চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন নজরুল ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রাজ্জাক ভূঞা।

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, কাজী নজরুল ইসলামকে নিয়ে একাধিক তথ্যচিত্র নির্মিত হওয়া প্রয়োজন। কারণ, নজরুলের সৃষ্টির বৈচিত্র্য ও ব্যাপকতা ফুটিয়ে তোলা কেবল একটি তথ্যচিত্রের মাধ্যমে সম্ভব নয়। তাছাড়া একেকজন নির্মাতা তাঁর নিজস্ব দৃষ্টিকোণ ও দৃষ্টিভঙ্গি থেকে তথ্যচিত্র নির্মাণ করে থাকেন। সে সঙ্গে নজরুলকে নিয়ে নিয়মিত আন্তর্জাতিক সম্মেলন করা দরকার। এতে বিদেশে বাংলাদেশের সুনাম ও ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল হবে।

রফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা যত কথা বলি, ততটা কাজে রূপান্তরিত করতে পারি না। পাকিস্তান আমলে তথ্য মন্ত্রণালয় ও পরবর্তীতে ইংল্যান্ডের চ্যানেল ফোরে কাজী নজরুল ইসলামের জীবন নিয়ে তথ্যচিত্র নির্মাণ হয়েছে। বাংলাদেশে এর প্রয়োজনীয়তা ছিল। এর আগেও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় অর্থ দিলেও পর্যাপ্ত সময় দেয়নি। কিন্তু এবার সময় ও অর্থ দুইটিই পাওয়ায় তথ্যচিত্রটি সংগ্রহ করেছি।

আব্দুর রাজ্জাক ভূঞা বলেন, তথ্যচিত্রটি দেশে-বিদেশে প্রচারের লক্ষ্যে এর মোড়কযুক্ত ডিভিডি সংস্করণ প্রকাশের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তথ্যচিত্রটি আমাদের জাতীয় কবির শিল্প-সাহিত্য-সঙ্গীত ও জীবনাচারের নানাবিধ অনুষঙ্গ সম্পর্কে অবহিত হতে সহায়তা করবে।

বিশ্ব শিশু দিবসের সমাপনী আয়োজন ॥ বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি। ‘শিশু পেলে অধিকার খুলবে নতুন বিশ^দ্বার’ প্রতিপাদ্যে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে সমাপনী দিন ছিল মঙ্গলবার। এদিন বিকেলে শিশু একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় আমার কথা শোনো শীর্ষক ছোটদের আলোচনাসভা। সন্ধ্যায় ছিল খুদে শিল্পীদের অংশগ্রহণে মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রেবেকা মমিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাছিমা বেগম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন একাডেমির চেয়ারম্যান কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন একাডেমির পরিচালক আনজীর লিটন। শিশু বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখে পটুয়াখালী সরকারী জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শীর্ষেন্দু বিশ্বাস এবং বাংলাদেশ শিশু একাডেমির প্রশিক্ষণার্থী রাফিয়া আহমেদ।

শিশু বক্তা শীর্ষন্দেু বিশ্বাসের বক্তব্যে উঠে আসে রোহিঙ্গা শিশুদের পাশে দাঁড়ানোর প্রত্যয়। উচ্চারিত হয় বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে এগিয়ে যাওয়ার অভিপ্রায়। সেই সঙ্গে সরকারের কাছে প্রতি জেলায় একটি করে পথশিশু পুনর্বাসন কেন্দ্র গড়ে তোলার আবেদন জানায় এই শিশু বক্তা।

আলোচনা শেষে সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় অংশ নেয় শেখ রাসেল শিশু সংসদ, খেলাঘর আসর, কচি কাঁচার মেলা, ব্র্যাক, ইন্টারন্যাশনাল টার্কিস হোপ স্কুলসহ শিশু একাডেমির ঢাকা জেলা শাখা ও কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের শিশু শিল্পীরা।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: