১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ঈশ্বরদীর রোকেয়া পোল্ট্রি খামার করে এখন নারী উদ্যোক্তার মডেল


ঈশ্বরদীর রোকেয়া পোল্ট্রি খামার করে এখন নারী উদ্যোক্তার মডেল

স্টাফ রিপোর্টার, ঈশ্বরদী ॥ ঈশ্বরদীতে সাম্প্রতিক সময়ে পোল্ট্রি ব্যবসা ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। এ ব্যবসা করে এখান কার অনেকেই আর্থিকভাবে স্বচ্ছল হয়েছেন। ব্যবসায় সফলতা অর্জন ও দেশের অর্থনীতিতে ভুমিকা রাখায় ইতোমধ্যে একাধিক পোল্ট্রি খামার ব্যবসায়ী জাতীয় পদকও অর্জন করেছেন। সফল পোল্ট্রি খামার ব্যবসায়ীদের ব্যবসার প্রসার দেখে অনেকেই পোল্ট্রি খামার ব্যবসায় ঝুঁকে পড়ছেন। অন্তঃ ১২/১৫ জন শিক্ষিত ও বেকার যুবকরা ব্যবসা শুরুর প্রাথমি পর্যায়ের কাজ শুরু করেছেন। ঈশ্বরদীর অনেকের মধ্যে ঈশ্বরদী শহরের অরনকোলার রোকেয়া পোল্ট্রি খামারের স্বত্তাধিকারী মোছাঃ রোকেয়া আক্তার একজন সফল পোল্ট্রি ব্যবসায়ী। তিনি ২০০৩ সালে বাড়ির আঙ্গিনায় লেয়ার জাতের ১ হাজার মুরগি পালনের মাধ্যমে এ ব্যবসা শুরু করেন। বিয়ের আগে একটি বানিজ্যিক লেয়ার ফার্মে ম্যানেজমেন্টে বিভাগে কর্মরত থেকে অভিজ্ঞতা অর্জন করেন। ব্যবসা শুরুর পর থেকে তিনি পরিশ্রম, ধৈর্য্য, অধ্যাবসায়, সাহস ও মেধাকে কাজে লাগিয়ে আজ আর্থিক ভাবে স্বচ্ছল খামারী ব্যবসায় হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছেন। জানা যায় বিয়ের পর সংসারের অভাব দুর করতে খামার ব্যবসা শুরু করে বর্তমানে তিনি সফল পোল্ট্রি খামারি। কৃষি ক্ষেত্রে রোকেয়া তার খামারকে প্রসারিত করতে কঠোর পরিশ্রমী হয়ে উঠেছেন। রবিবার সকালে রোকেয়া পোল্ট্রি খামার পরিদর্শন করেন পাবনা জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ আবদুল গফুর। খামার পরিদর্শণ করে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন।

এ সময় উপস্থিত উৎসুকদের উদ্দেশ্যে বলেন, রোকেয়া একজন কঠোর পরিশ্রমী ও নারী উদ্যোক্তা। রোকেয়ার পরামর্শ ও সহযোগিতায় অরনকোলা এলাকার অনেক বেকার যুবক/যুবতী পোল্ট্রি ব্যবসার সাথে জড়িত হয়ে পারিবারিক ভাবে আর্থিক লাভবান হয়েছেন। এ খামারী দেশের মুরগি, ডিম ও মাছের চাহিদা পূরণ করছেন। সেই সাথে পুষ্টিরও যোগান দিচ্ছেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: