২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

যারা ষড়যন্ত্রমূলক নাটক করতে চেয়েছিল তারা ব্যর্থ হয়েছে


যারা ষড়যন্ত্রমূলক নাটক করতে চেয়েছিল তারা ব্যর্থ হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে যারা ষড়যন্ত্রমূলক নাটক করতে চেয়েছিল তারা ব্যর্থ হয়েছে। বিএনপি বারবার বলছিল প্রধান বিচারপতিকে গৃহবন্দী করা হয়েছে, কিন্তু তিনি যাবার সময় বলে গেলেন তিনি স্বেচ্ছায় বিদেশ যাচ্ছেন। এভাবেই বিএনপি জামাত চক্র মিথ্যাচার করে। তারা জনগণকে বিভ্রান্তিতে ফেলে অসাংবিধানিক পন্থায় আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে সরাতে চায়। কিন্তু জনগণ আজ অনেক সচেতন, তারা উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে চায় বলে সংবিধান বহির্ভূত কোন কাজ সমর্থন করবে না। সবাইকে মনে রাখতে হবে আর কোন ১৫ আগস্ট এদেশে সৃষ্টি করা যাবে না। কোন ধরনের ক্যূ এদেশে ঘটবে না।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর উত্তরায় বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং গন্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। স্থানীয় সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, যারা ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছিল তারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন চক্রান্ত করে যাচ্ছে। সম্প্রতি তারা জুডিশিয়াল ক্যূ করার নাটক তৈরী করে শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হয়েছে। তিনি বলেন, বিএনপি জামাতের মতো খুনী ও রাজাকারের দলকে জনগণ যে প্রত্যাখ্যান করেছে তার সর্বশেষ উদাহরণ গত বৃহষ্পতিবারের তথাকথিত হরতাল। জামাতের ডাকা হরতালে বিএনপি সমর্থন দিয়েছে। কিন্তু সবাই দেখেছে তাদের হরতালে জনগণ সাড়া দেয় নাই। মোহাম্মদ নাসিম বিএনপির প্রতি আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে পুনরায় আহ্বান জানিয়ে বলেন, জনগণের প্রতি আস্থা থাকলে, সংবিধানের উপর শ্রদ্ধা থাকলে সব ষড়যন্ত্র বাদ দিয়ে নির্বাচনের প্রস্তৃতি নিন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, সামর্থ্য থাকা সত্বেও ইউরোপের অনেক ধনী দেশ মধ্যপ্রাচ্য সংকটের সময় শরণার্থী নিতে অস্বীকার করলেও আমাদের প্রধানমন্ত্রী মানবতা ও সাহস দেখিয়ে পালিয়ে আসা ছয় লক্ষ মিয়ানমার নাগরিকদের আশ্রয় দিয়ে 'মাদার অব হিউম্যানিটি' উপাধি পেয়েছেন। দেশের অভ্যন্তরেও তাঁর সাহসী ও মানবিক উদ্যোগের কারণে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, যোগাযোগ, কৃষি, বিদ্যুৎ, তথ্যপ্রযুক্তিখাতসহ সকল ক্ষেত্রে উন্নয়ন ঘটছে বলেই আমরা উন্নত রাষ্ট্রে উন্নীত হবার পথে এগিয়ে চলেছি। এই অগ্রযাত্রা ধরে রাখার লক্ষ্যে জনগণ আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে শেখ হাসিনাকে হ্যাট্রিক প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করবে।

মন্ত্রী উত্তরা অঞ্চলের মানুষের জন্য বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালকে আগামী তিন মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ হাসপাতালে রূপান্তরের আশ্বাস প্রদান করেন। এর আগে মন্ত্রী হাসপাতালের বহির্বিভাগের সেবা কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও স্বজনদের সাথে কথা বলে চিকিৎসা ব্যবস্থার খোঁজ খবর নেন এবং হাসপাতালের পরিচালক ব্রি. জে. আমিনুল ইসলামের সভাপতিত্বে চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের সাথে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: